আদি নেতাদের পা ধুয়ে দিয়ে সম্মান বিজেপি প্রার্থীর, কেঁদে ফেললেন প্রবীণরা

বিজেপি প্রার্থী (BJP Candidate) কৌশিক রায়ের কথায়, "এদিন সকালে ময়নাগুড়ির সবজি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে জনসংযোগ করেছি। তার পর যাঁরা দলের দুর্দিনের সঙ্গী ছিলেন, দলের পতাকা ছাড়েননি, তাঁদের সম্মান জানালাম।''

  • TV9 Bangla
  • Published On - 18:25 PM, 5 Apr 2021
আদি নেতাদের পা ধুয়ে দিয়ে সম্মান বিজেপি প্রার্থীর, কেঁদে ফেললেন প্রবীণরা
নিজস্ব চিত্র

জলপাইগুড়ি: একুশের বিধানসভা নির্বাচনে (West Bengal Assembly Election 2021) ভোটে লড়ার টিকিট নিয়ে আদি ও নব্য বিজেপির নেতাদের কোন্দল দেখা গিয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। কোথাও আবার প্রার্থীকে মেনে নিতে না পেরে দলও ছেড়েছেন কোনও আদি বিজেপি নেতা। তবে ময়নাগুড়িতে দেখা গেল ভিন্ন চিত্র। আদি বিজেপি নেতাদের পা ধুইয়ে দিয়ে প্রচার শুরু করলেন ময়নাগুড়ি (Moynaguri)-র বিজেপি প্রার্থী কৌশিক রায়। প্রার্থী নিজে হাতে তাঁদের পা মুছিয়ে দেওয়ায় কেঁদে ফেললেন আবেগবিহ্বল প্রবীণ বিজেপি সদস্যরা।

সোমবার ময়নাগুড়ি মাড়োয়ারি ধর্মসভায় এক অভিনব উদ্যোগ নেন ময়নাগুড়ির বিজেপি প্রার্থী। যাঁরা এতদিন ধরে দল করেছেন, যাঁদের পরিশ্রমে তাঁরা আজ এই জায়গায় এসেছে সেই পুরনো কর্মীদের শ্রদ্ধা জানাতে তাঁদের পা ধুইয়ে আশীর্বাদ চাইলেন তিনি। এই অপ্রত্যাশিত সম্মানে আনন্দাশ্রু দেখা গেল প্রবীণ নেতাদের চোখে। তাঁদের মধ্যে একজন জানালেন, এমন অমায়িক প্রার্থী তো জিতবেনই। মানুষ তাঁর পাশেই থাকবে।

কিন্তু এমন উদ্যোগ কেন? বিজেপির প্রাক্তন ব্লক সভাপতি অনুপ পালের কথায়, এটাই দলের সংস্কৃতি। বাড়ির ছেলে বাইরে যাওয়ার আগে যেমন বয়ঃজ্যেষ্ঠদের প্রণাম করেন তেমনি ভোটযুদ্ধে বেরনোর আগে প্রার্থীও আদি নেতাকর্মীদের পা ধুইয়ে তাঁদের সম্মান জানালেন। তবে পুরো পরিকল্পনাই কৌশিকবাবুর বলে জানান তিনি। ওই বিজেপি নেতা যোগ করেন, “যাঁরা দল প্রতিষ্ঠা করেছেন, যাঁরা এতদিন ধরে দলকে এতদূর টেনে নিয়ে এসেছেন তাঁদের তো সম্মান জানাতে হবেই।” এতে কোনও অভিনবত্ব নেই বলে জানান তাঁরা। “বলেন, শাখা সংগঠনের এভাবেই ভাবে। আমরা এভাবেই কাজ করি। শুভ কাজ করতে গেলে বাইরে বেরোই বড়দের প্রমাণ করেন।” রাজেশ্বর দে সরকার নামে আদি বিজেপি নেতা এই সম্মানে প্রচণ্ড খুশি। তাঁর কথায়, ‘আমাদের প্রার্থী অমায়িক। জিত হবেই”

আর প্রার্থী নিজে কী বলছেন? কৌশিক রায়ের কথায়, “এদিন সকালে ময়নাগুড়ির সবজি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে জনসংযোগ করেছি। তার পর যাঁরা দলের দুর্দিনের সঙ্গী ছিলেন, দলের পতাকা ছাড়েননি, তাঁদের সম্মান জানালাম।”

২০১৯ সালে প্রয়াগরাজের কুম্ভমেলায় পুণ্যস্নান করতে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানে গঙ্গায় স্নান ও আরতি করার পর নিজের হাতেই ওই এলাকার সাফাই কর্মীদের পা ধুইয়ে দিয়েছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। ‘স্বচ্ছ কুম্ভ স্বচ্ছ আবহার’ নামে এই অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য ছিল কুম্ভমেলাকে স্বচ্ছ রাখতে যাঁরা নিঃশব্দে অবদান রাখেন তাঁদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন। তাই প্রধানমন্ত্রী এই উদ্যোগ নিয়েছিলেন। এদিকে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতা তথা একুশের ভোটে ময়নাগুড়ির বিজেপি প্রার্থী ও আরও কয়েকজন নেতা মিলে এর আগেও এ ধরনের উদ্যোগ নিয়েছেন। করোনা আবহে দলিত শ্রেণির মানুষদের পা ধুইয়ে দিয়ে তাঁদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: এক পায়ে বাংলা জয় করব, দু’ পায়ে হবে দিল্লি জয়: মমতা

এদিকে ভোট প্রচারে পিছিয়ে নেই ময়নাগুড়ির তৃণমূল প্রার্থী মনোজ রায়ও। চন্দননগর থেকে নিয়ে আসা আলোকসজ্জার মাধ্যমে ময়নাগুড়ি জুড়ে মনোজ রায়ের সমর্থনে প্রচার শুরু করেছেন সমর্থকেরা। সংশ্লিষ্ট বিধানসভা কেন্দ্রে ভোট রয়েছে আগামী ১৭ এপ্রিল।