‘বিজেপি গুজরাটির দল, বিধানসভার মানুষও বেচে দেবে’, মানস ভুঁইয়ার মন্তব্যে বিতর্কে

"বিজেপি গুজরাটি ব্যবসায়ীদের দল, এরা যেটা পারবে বেচে দেবে। কোনদিন দেখবেন আপনার বিধানসভা এলাকার মানুষগুলোকে আমেরিকার হাতে বেচে দিয়েছে।"

  • TV9 Bangla
  • Published On - 23:05 PM, 8 Apr 2021
'বিজেপি গুজরাটির দল, বিধানসভার মানুষও বেচে দেবে', মানস ভুঁইয়ার মন্তব্যে বিতর্কে
নিজস্ব চিত্র

ধূপগুড়ি: “বিজেপি গুজরাটি ব্যবসায়ীদের দল, এরা যেটা পারবে বেচে দেবে। কোনদিন দেখবেন আপনার বিধানসভা এলাকার মানুষগুলোকে আমেরিকার হাতে বেচে দিয়েছে।” বৃহস্পতিবার ধূপগুড়িতে সভা করতে গিয়ে এমনই মন্তব্য করলেন সবংয়ের তৃণমূল প্রার্থী মানস ভুঁইয়া (Manas Bhunia)।

বৃহস্পতিবার ধূপগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মিতালি রায়ের (Mitali Roy) সমর্থনে জনসভা করতে এসে নাথুয়াতে বিজেপিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন বর্ষীয়ান নেতা মানস ভুঁইয়া। তাঁর কথায়, “বিজেপি গুজরাটি ব্যবসায়ীদের দল, এরা যেটা পারবে বেচে দেবে। কোনদিন দেখবেন আপনার বিধানসভা এলাকার মানুষগুলোকে আমেরিকার হাতে বেচে দিয়েছে।” এদিন শালবাড়ি ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের নাথুয়া এলাকায় মানস ভুঁইয়া জনসভা করেন। জনসভা শুরু হতেই শুরু হয় মুশলধারে বৃষ্টি। তবে সেই বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রচুর তৃণমূল কর্মী সমর্থককে দেখা যায় কেউ ছাতা মাথায় দাঁড়িয়ে পড়েছেন। কেউ আবার পলিথিনের প্যাকেট মাথায় দিয়ে মানস ভুঁইয়ার সভার বক্তব্য শোনেন।

এদিনের সভায় শুরু থেকে একাধিক ইস্যুতে বিজেপিকে আক্রমণ শুরু করেন মানস। বিজেপি ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করছে, বিভাজন সৃষ্টির চেষ্টা করছে এবং বিজেপিকে বিপজ্জনক দল বলে অভিযোগ করেন। তার পর একের পর এক কেন্দ্রীয় সংস্থার বিলগ্নিকরণ নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে মানস ভুঁইয়ার কটাক্ষ, বিজেপি গুজরাটির দল। ক্ষমতায় এলে বিধানসভা এলাকার মানুষকেও বিক্রি করে দেবে।

পাশাপাশি একুশের বিধানসভা নির্বাচনে (West Bengal Assembly Election 2021) তৃণমূল দু’শোর বেশি আসন নিয়ে ক্ষমতায় আসতে চলেছে। এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন ধূপগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মিতালী রায়, তৃণমূল কংগ্রেসের জলপাইগুড়ি জেলা সম্পাদক রাজেশ কুমার সিংহ, বানারহাট সাংগঠনিক ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি নয়ন দত্ত, রাজু গুরুং প্রমুখ।

আরও পড়ুন: ইট খোদাই করে হুইল চেয়ারে বসা মমতার মূর্তি বানালেন বিশেষ ভাবে সক্ষম শিল্পী

কিছুদিন আগে এক দলীয় কর্মীকে চড় মারার প্রেক্ষিতে ভাইরাল হয় একটি ভিডিয়ো। তাঁর এদিনের মন্তব্য নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক।