Rishi Kapoor: শেষের ক’দিন একটাও কথা বলেনি ঋষি, আমি আর নিতে পারছিলাম না: নিতু

Rishi Kapoor: শেষের ক'দিন একটাও কথা বলেনি ঋষি, আমি আর নিতে পারছিলাম না: নিতু
শেষের কয়দিন কেমন কেটেছিল অভিনেতার?

Rishi Kapoor: ৩০ এপ্রিল, ২০২০। কাপুর পরিবারে নেমে আসে শোকের ছায়া। শেষের কয়দিন কেমন কেটেছিল অভিনেতার?

TV9 Bangla Digital

| Edited By: বিহঙ্গী বিশ্বাস

May 07, 2022 | 6:39 PM

দু’বছরের যুদ্ধে পরাজিত হয়েছিলেন ঋষি কাপুর। ক্যানসার থামিয়ে দেয় তাঁর শেষ যাত্রা। ৩০ এপ্রিল, ২০২০। কাপুর পরিবারে নেমে আসে শোকের ছায়া। শেষের কয়দিন কেমন কেটেছিল অভিনেতার? নিতু কাপুর যা জানিয়েছেন, তা শুনলে চোখের জল ধরে রাখতে পারবেন না আপনি। শেষের ১৭ দিন পরিবারের কারও সঙ্গে কথা বলার মতো অবস্থাতে ছিলেন না অভিনেতা, তাকিয়ে থাকতেন চুপ করে। শেষ কোথা বলেছিলেন বিবাহবার্ষিকীর দিন– জানিয়েছেন নিতু নিজেই।

১৩ এপ্রিল তাঁদের বিবাহবার্ষিকী। নিতুর কথায়, “ওই দিনই আমাদের শেষ কথা। পরের দুই সপ্তাহ ওর কাটে হাসপাতালেই। অনেক কিছু বলতে চাইত। আমার দিকে তাকিয়ে থাকত। আমি অ্যালফাবেট যুক্ত আইপ্যাড নিয়ে গিয়েছিলাম। যদি কিছু বলে। কিন্তু হাত তোলার মতো ক্ষমতাও হারিয়ে ফেলেছিল ঋষি।” নিতু আরও জানান, সে সময় হাসপাতালে শুধু তিনি আর ছেলে রণবীর। রাতের পর রাত ঘুম নেই। স্বামীর ওই অসহায় অবস্থা দেখতে পারতেন না নিতু। কষ্ট জল হয়ে গড়িয়ে পড়ত চোখের কোণ বেয়ে।” ঋষি-পত্নীর কথায়, “কত কথা বলার ছিল, কিন্তু বলতে পারল কোথায়? ওকে এভাবে দেখতে আমি চাইনি।”

অথচ এই নিতুকে ছাড়াই এক মুহূর্ত নাকি চলত না ঋষির। মেয়ের বিয়ে হয়ে যায়, ছেলেও নিজের জীবনে বেশি। স্ত্রীকে জড়িয়ে ছিল অভিনেতার রঙিন দুনিয়া। সম্প্রতি ছেলের বিয়ে দিয়েছেন নিতু। কী অদ্ভুত সমাপতন। ছেলের বিয়ে হয় ১৪ এপ্রিল। আর এর ঠিক দু’ বছর আগে ১৩ এপ্রিল বাবার মুখে শেষ বারের মতো কথা শুনেছিলেন রণবীর। সাদামাঠা ভাবে হয়েছে আলিয়া-রণবীরের বিয়ে। বিয়ের আসর বসেছিল রণবীরের বাড়িতেই। তবে ঋষি বেঁচে থাকলে এমনটা যে কোনও ভাবেই হত না সে কথা স্পষ্টতই জানিয়েছেন নিতু কাপুর। তাঁর কথায়, “ও ছিল শোম্যান। শোম্যানের ছেলে। তবে রণবীর অনেক শান্ত।” স্বামী নেই। স্বামীর স্মৃতি আজও এক। তা আকড়েই বাঁচতে চান নিতু। সঙ্গে রয়েছে ছেলে, বৌমা, মেয়ে ও নাতি-নাতনিরা।

এই খবরটিও পড়ুন

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA