Ayurveda: ভ্রমণে বেরলেই কোষ্ঠকাঠিন্য আর গ্যাসের সমস্যায় ভোগেন? রইল আয়ুর্বেদিক সহজ সমাধান

Digestive System: প্রথমত হাতের কাছে সবসময় একটা জলের বোতল রাখবেন। অল্প অল্প করে জল পান করবেন। খাবার খান হালকা ধরনের। এছাড়া প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে ব্রিদিং এক্সারসাইজ করুন।

Ayurveda: ভ্রমণে বেরলেই কোষ্ঠকাঠিন্য আর গ্যাসের সমস্যায় ভোগেন? রইল আয়ুর্বেদিক সহজ সমাধান
প্রথমত হাতের কাছে সবসময় একটা জলের বোতল রাখবেন
TV9 Bangla Digital

| Edited By: dipta das

May 29, 2022 | 10:05 PM

স্কুলে স্কুলে গরমের ছুটি পড়ে গিয়েছে। সপরিবারে বেড়াতে যাওয়ার (Travelling) এই তো সময়! নতুন জায়গায় যাওয়া, নতুন দ্রষ্টব্য খুঁজে বের করা, দারুণ হুল্লোড় আর দেদার খাওয়া দাওয়া— এই হল ভ্রমণ! তবে ঘুরতে সব আনন্দই নষ্ট হয় যদি পেট ঠিক করে পরিষ্কার না হয় কিংবা ভুগতে হয় প্রবল গ্যাসের সমস্যায় (Gas Problem)! হুড়োহুড়ি করাই যায় না শারীরিক অস্বস্তির (Health Problems) কারণে। পরিবারের অন্য সদস্যরাও বিরক্ত হয়। সব মিলিয়ে এক অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঘুরতে যাওয়ার সময় এমন শারীরিক সমস্যা হওয়ার পিছনে একাধিক কারণ থাকতে পারে। প্রথমত সফরকালে দীর্ঘসময় বসেই কাটিয়ে দিতে হয়। রোজকার জীবনের রুটিনও যায় একধাক্কায় বদলে। খাবার খাওয়ার সময়ের বদল ঘটে। জল পানের মাত্রাও যায় কমে।

এছাড়া প্রতিদিন যে ধরনের খাদ্য আপনি গ্রহণ করেন সেই রকম খাদ্যও বাইরে বেড়াতে গেলে পাওয়া যায় না, খাওয়াও হয় না। ফলে শরীরের পাচনতন্ত্রের পক্ষে গোটা বিষয়টা সামলানো মুশকিল হয়ে যায়। ঘোরাঘুরির সময় খুব বেশি গ্যাস হলে, পেট দারুণ ফুলে গেলে, কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভুগলে বা যে কোনও ধরনের হাজমসংক্রান্ত সমস্যায় ভুগলে আপনার কতকগুলি গুরুত্বপূর্ণ টিপস মাথায় রাখা দরকার। প্রথমত হাতের কাছে সবসময় একটা জলের বোতল রাখবেন। অল্প অল্প করে জল পান করবেন। খাবার খান হালকা ধরনের। এছাড়া প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে ব্রিদিং এক্সারসাইজ করুন।

আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরা বলছেন, ভ্রমণের সময় কতকগুলি বিষয় মাথায় রাখুন, তাহলেই মুক্তি পাবেন ঝামেলা থেকে!

জল পান করুন: একসঙ্গে প্রচুর জল পানের দরকার নেই। শুধু পর্যাপ্ত মাত্রায় জলপান করলেই চলবে। ঠান্ডা জায়গা যেমন পাহাড়ে ঘুরতে গেলে দিনের বেলায় অন্তত পাঁচ গ্লাস জল পান করতেই হবে। অন্যদিকে সমুদ্র বা উষ্ণ আবহাওয়াযুক্ত এলাকায় ঘুরতে গেলে অবশ্যই ৭ থেকে ৮ গ্লাস জল পান করা দরকার।

সক্রিয় থাকুন: ঘুরতে গেলেও সকাল সকাল উঠে পড়ুন। যোগা প্রাণায়াম অভ্যেস করুন। এই ধরনের আসন ও প্রাণায়াম খাদ্য হজমে সাহায্য করে। কিছু না পারলে অন্তত ৩০ মিনিট ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজও করতে পারেন। তাও সম্ভব না হলে অন্তত ৫ হাজার পা হাঁটুন।

গ্রিন টি অথবা উষ্ণ জল: সকালে ঘুম থেকে উঠে একগ্লাস গরম জল নিন। অল্প অল্প করে চুমুক দিন। অথবা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগেও উষ্ণ জল পান করতে পারেন। এভাবে সকালে বা ঘুমাতে যাওয়ার আগে উষ্ণ জল পান করলে তা পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া সকালটা গ্রিন টি পান করেও শুরু করতে পারেন। আর হ্যাঁ, সকালের দিকে ভাজাভুজি খাবেন না।

স্বাস্থ্যকর খাদ্য: কলা, পেঁপে, স্থানীয় ফল খান। হালকা ধরনের ব্রেকফাস্ট করুন। ময়দার তৈরি খাদ্য না খাওয়ারই চেষ্টা করুন। অন্তত প্রাতঃরাশে ময়দার তৈরি খাদ্য না খাওয়াই ভালো।

লাঞ্চ এবং ডিনার: রুটি, পরোটা, কারি, স্যালাড সহযোগে লাঞ্চ করার চেষ্টা করুন। সম্ভব হলে লাঞ্চের সময় বাটারমিল্ক-এ চুমুক দিতে পারেন। তবে ডিনার করতে হবে খুবই হালকা। ভাত নির্ভর খাদ্য খান। একাধিক ধরনের স্যুপও খুব ভালো নির্বাচন হতে পারে।

হজমের ওষুধ: আয়ুর্বেদিক পদ্ধতিতে তৈরি পুদিনা বটি, আমলা ক্যান্ডি, হিং বটির মতো ওষুধগুলি হজমের জন্য সেরা। পেট ভার লাগলে বা কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা দেখা দিলে বটিকাগুলি মুখে ফেলে চুষতে থাকুন।

ঘি: সম্ভব হলে সঙ্গে করে ঘি নিয়ে যেতে পারেন। প্রতিদিন সকালে উঠে বা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে উষ্ণ জলের সঙ্গে সময় ১ চামচ ঘি খেলে দুর্দান্ত পেট পরিষ্কার হয়।

এই খবরটিও পড়ুন

আয়ুর্বেদিক ভেষজ: উপরিউক্ত জিনিসগুলি সঙ্গে করে নিয়ে যাওয়ার পরেও বা নিয়মমতো চলেও গ্যাস ও কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা হলে ত্রিফলা হল কোষ্ঠকাঠিন্য তাড়ানোর সেরা নিদান। মারাত্মক ধরনের গ্যাস ও কোষ্ঠকাঠিন্যে সারাতে হরিতকী, আমলকী, বহেড়ার চূর্ণ সেবন করাই বিধেয়। অন্যদিকে মাঝারি ধরনের কোষ্ঠকাঠিন্যে ত্রিফলা ট্যাবলেটও সেবন করা যায়। কাজ হয় ম্যাজিকের মতো।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla