Sperm Count And Fertility: অতিরিক্ত যৌনতাই কমিয়ে দিচ্ছে গর্ভধারণের সম্ভাবনা! চাঞ্চল্যকর তথ্য নয়া সমীক্ষায়

Sperm Count: মেডিক্যাল কলেজ, মনিপাল এবং জার্মানির মুয়েনস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা থেকে উঠে এসেছে একটি নতুন তথ্য। অতিরিক্ত পরিমাণ যৌন মিলনের ফলেই কমছে গর্ভধারণের সম্ভাবনা। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি

Sperm Count And Fertility: অতিরিক্ত যৌনতাই কমিয়ে দিচ্ছে গর্ভধারণের সম্ভাবনা! চাঞ্চল্যকর তথ্য নয়া সমীক্ষায়
পুরুষদের মধ্যেও বাড়ছে বন্ধ্যাত্ব
TV9 Bangla Digital

| Edited By: Reshmi Pramanik

Jul 08, 2022 | 4:49 PM

কোভিড পরবর্তী সময়ে একাধিক শারীরিক সমস্যা বেড়েছে। তার মধ্যে অন্যতম হল হরমোমের তারতম্য। মহিলাদের মধ্যে বেড়েছে থাইরয়েড, পিসিওএস ( PCOS) এবং (PCOD)- এর মত সমস্যা। এই সমস্যা যত বাড়ছে, তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ইনফার্টিলিটির (Infertility) সমস্যা। আর এই সমস্যা যে শুধুমাত্র মেয়েদের হচ্ছে তা নয়। ছেলেদের মধ্যেও বেড়েছে বন্ধ্যাত্ব। কমছে শুক্রাণুর সংখ্যা, সেই সঙ্গে কমছে শুক্রাণুর গুণগত মানও। কস্তুরবা মেডিক্যাল কলেজ, মনিপাল এবং জার্মানির মুয়েনস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা থেকে উঠে এসেছে একটি নতুন তথ্য। অতিরিক্ত পরিমাণ যৌন মিলনের ফলেই কমছে গর্ভধারণের সম্ভাবনা। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। বিশেষজ্ঞদের মতে, অতিরিক্ত যৌনমিলন ( Sex) এর ফলে কমছে পুরুষদের শুক্রাণুর পরিমাণ। সেই সঙ্গে শুক্রাণুর গুণগত মানও খারাপ হচ্ছে। যে কারণে সমস্যা হচ্ছে গর্ভধারণে। সমীক্ষায় আরও দেখা গিয়েছে আমাদের দেশে বন্ধ্যাত্বের জন্য ৫০ % দায় পুরুষদেরই। 

কেন বাড়ছে বন্ধ্যাত্বের সমস্যা? 

এই সমস্যার পিছনে অন্যতম কারণ হল জীবনযাত্রা। বর্তমানের জীবনে সকলেরই মানসিক চাপ, স্ট্রেস অত্যন্ত বেশি। পাশাপাশি খাদ্যাভ্যাস, শরীরচর্চা কোনওটিই ঠিক নেই। মাত্রাতিরিক্ত ফাস্টফুড খাওয়া, তেল-মশলাদার খাবার, খাবারের মধ্যে অতিরিক্ত গ্যাপের কারণেই বাড়ছে ওজন। ওজন বাড়লেই আসছে ওবেসিটি, ডায়াবেটিস, হাইব্লাড প্রেসারের মত একাধিক সমস্যা। রোজকার যৌনমিলনে উৎসাহ হারাচ্ছেন অনেকে। ইনফার্টিলিটির কারণ হিসেবে উঠে আসছে দীর্ঘসময় ল্যাপটপে বসে কাজ করা। এর থেকেও কমছে পুরুষদের শুক্রাণুকৃর সমস্যা। মেয়েদের মধ্যেও হরমোন ঘটিত নানা রোগের প্রকোপ আগের তুলনায় অনেকখানি বেড়েছে। PCOS/PCOD-এর সমস্যা হলে প্রভাব পড়ে মাসিকে। সেখান থেকেও পরবর্তীতে প্রভাব পড়ে গর্ভধারণে। তবে আমাদের দেশে বন্ধ্যাত্বের সমস্যায় প্রধানত দায়ী করা হয় মেয়েদেরই। যা একেবারেই ভুল।  জার্মানি আর মনিপালের গবেষকরা মোট ১০ হাজার পুরুষের উপর সমীক্ষা চালান। সেখানেই দেখা গিয়েছে অধিকাংশ পুরুষেরই শুক্রাণুর গুণগত মান খারাপ।

যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা- 

যৌনতা নিয়ে মানুষ এখন আগের থেকে অনেক বেশি খোলামেলা। কম বয়স থেকেই ঘনিষ্ঠ ভাবে মেলামেশা করছেন যুগলেরা। অতিরিক্ত যৌন মিলনের কারণেই পুরুষদের স্পার্ম কাউন্ট কমছে। ফলে যখন তাঁরা সন্তান চাইছেন, তখন কিছুতেই সফল হচ্ছেন না। যে কারণে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যে সব দম্পতিরা সন্তান চাইছেন তাঁদের প্রতি যৌন মিলনের মধ্যে ৬-১৫ দিনের গ্যাপ দিতেই হবে। রোজ সেক্সের চাহিদা কমিয়ে আনার পক্ষে তাঁরা। যৈন মিলনের ক্ষেত্রে অন্তত ৩ দিনের গ্যাপ দিতেই গবে। তবেই কিন্তু গর্ভবতী হওয়া সম্ভব। এ ব্যাপারে ছেলে এবং মেয়ে উভয়কেই সচেতন হতে হবে। সঙ্গে মনে রাখতে হবে, গর্ভধারণ না হলে দোষ একা মেয়েদের নয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে দায়ী  ছেলেরাই।

Disclaimer: এই প্রতিবেদনটি শুধুমাত্র তথ্যের জন্য, কোনও ওষুধ বা চিকিৎসা সংক্রান্ত নয়। বিস্তারিত তথ্যের জন্য আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করুন।

এই খবরটিও পড়ুন

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla