Thane Gas Leak: ফের থানের রাসায়নিক কারখানা গ্যাস লিক, শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ৩৪

Chemical Vapour Leak: রাসায়নিক বাষ্প লিক হওয়ার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৩৪ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

Thane Gas Leak: ফের থানের রাসায়নিক কারখানা গ্যাস লিক, শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ৩৪
থানের রাসায়নিক কারখানায় গ্যাস লিক (নিজস্ব চিত্র)

থানে: বিশাখাপটনমে রাসায়নিক কারখানায় গ্যাস লিকের সেই ভয়বহতার স্মৃতি আজও আবছা হয়নি। সেই ক্ষত আজও ভীষণ দগদগে। আর এরই মধ্যে ফের একবার রাসায়নিকের বাষ্প লিক হল মহারাষ্ট্রের থানের এক কারখানায়। রাসায়নিক বাষ্প লিক হওয়ার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৩৪ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

মহারাষ্ট্রের থানের অম্বরনাথ শহরে এক রাসায়নিক কারখানায় দুর্ঘটনাটি ঘটে। আজ সকালে রাসায়নিক বাষ্প লিক হওয়ার পর থেকেই কারখানার আশেপাশের এলাকার বাসিন্দারা শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা অনুভব করছিলেন। এর পাশাপাশি, অনেকে চোখ জ্বালা, বমি বমি ভাব সহ একাধিক স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা অনুভব করছিলেন বলে থানে পৌরনিগমের স্থানীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বিভাগের প্রধান সন্তোষ কদম জানিয়েছেন।

আজ সকাল প্রায় ১০ টা নাগাদ সালফিউরিক অ্যাসিড লিক হতে শুরু করে অম্বরনাথের মহরাষ্ট্র শিল্প বিকাশ নিগমে (Maharashtra Industrial Development Corporation) অবস্থিত ওই কারখানাটি থেকে।  ঘটনার খবর পেতেই দুর্ঘটনাস্থলে আসে মহারাষ্ট্র পুলিশ এবং মহারাষ্ট্র দূষণ মোকাবিলা পর্ষদ। ঘটনাস্থলে আসে মহারাষ্ট্র শিল্প বিকাশ নিগমের দমকলের একটি ইঞ্জিনও। অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে প্রায় ১ ঘণ্টার চেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন দমকলের কর্মীরা।

এদিকে সালফিউরিক অ্যাসিড লিক হতে শুরু করতেই আশেপাশের এলাকার অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরবর্তী সময়ে, ৩৪ জনকে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা ও অন্যান্য সমস্যা নিয়ে উল্লাসনগর সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভরতি করা হয়।

তবে এই গ্যাস লিকের ঘটনায় মহারাষ্ট্র প্রশাসনেই দুষছেন পরিবেশবিদদের একাংশ। বিশিষ্ট সমাজকর্মী সত্যজিৎ বর্মণের মতে, মহারাষ্ট্র দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের উপরেই এই ধরনের দুর্ঘটনার দায় বর্তায়। পর্ষদ শুধু কোম্পানিকে কারখানা বন্ধ করার নোটিস ধরিয়েই ছেড়ে দেয়। তারপর আবার কিছুদিন পর সেগুলিকে আবার কারখানা খোলার অনুমতি দিয়ে দেওয়া হয়। আর সেই কারণেই এমন দুর্ঘটনাগুলি ঘটে। তিনি আরও বলেন, এই ধরনের কোম্পানিগুলির মানুষের জীবনের সঙ্গে ছিনিমিনি খেলার কোনও অধিকার নেই।

উল্লেখ্য,চলতি বছরের জানুয়ারি মাসেই মহারাষ্ট্রের বদলাপুরের একটি রাসায়নিক কারখানা থেকে গ্যাস লিক হওয়ার কারণে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল। গ্যাস লিকের কারণে এলাকার মানুষের শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল। পরে দমকলকর্মীরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছিলেন।

থানে পৌরনিগমের তরফে সেই সময় বলা হয়েছিল, “কারখানাটির ভিতরে সালফিউরিক অ্যাসিড এবং বেনজাইল অ্যাসিডের মধ্যে রাসায়নিক বিক্রিয়া হয়েছিল যার ফলে গ্যাস লিকের ঘটনা ঘটে। আর সেই  কারণে এলাকার মানুষদের শ্বাস নিতে ও চোখ খুলতে সমস্যা হচ্ছিল।

তারপর আবার আজ এক রাসায়নিক কারখানা থেকে গ্যাস লিক। বারবার এমন ঘটনায় স্বাভাবিকভাবে মহারাষ্ট্র প্রশাসনের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন সমাজকর্মীদের একাংশ।

আরও পড়ুন: NHRC : ‘আপনার হাত ধরে নতুন যুগের সূচনা হয়েছে কাশ্মীরে’, অমিত শাহে মুগ্ধ মানবাধিকার কমিশনের প্রধান

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla