AstraZeneca: ওমিক্রনের বিরুদ্ধে ‘শক্তিমান’ অ্যাস্ট্রাজ়েনেকার ভ্যাক্সজ়েব্রিয়ার বুস্টার ডোজ়: সমীক্ষা

Covid Vaccine: ইতিমধ্যেই বিভিন্ন সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে এই প্রিকশন ডোজ় সংক্রমণের সঙ্গে লড়াইয়ে কার্যকরী।

AstraZeneca: ওমিক্রনের বিরুদ্ধে 'শক্তিমান' অ্যাস্ট্রাজ়েনেকার ভ্যাক্সজ়েব্রিয়ার বুস্টার ডোজ়: সমীক্ষা
প্রতীকী ছবি।

নয়া দিল্লি: বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ জেট গতিতে ছড়াচ্ছে। কোভিডের তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় যখন প্রমাদ গুনছে দেশ, তখন নতুন বিপদ ওমিক্রন এসে হাজির। সংক্রমণ মোকাবিলায় ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ় দেওয়া শুরু হয়েছে। যদিও এই ডোজ়কে প্রিকশন ডোজ় বা বুস্টার ডোজ় হিসাবে দেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে এই প্রিকশন ডোজ় সংক্রমণের সঙ্গে লড়াইয়ে কার্যকরী। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার অ্যাস্ট্রাজ়েনেকা জানিয়েছে, তাদের ভ্যাকসিন করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে অত্যন্ত কার্যকর। অ্যাস্ট্রাজ়েনেকার (AstraZeneca) ভ্যাকসিন ভ্যাক্সজ়েব্রিয়া (Vaxzevria) নিয়ে একটি সমীক্ষা করা হয়।

এ বিষয়ে টুইট করেন সেরাম ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়ার সিইও আদর পুন্নাওয়ালা। তিনি লেখেন, এই ধরনের খবর নিঃসন্দেহে অনুপ্রেরণা দেয়। প্রাথমিকভাবে সেই সমীক্ষাতেই দেখা গিয়েছে, টিকার বুস্টার ডোজ় হিসাবে ভ্যাক্সজ়েব্রিয়ার ব্যবহার করা হলে করোনার ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট ও বিটা, ডেল্টা, আলফা ও গামা সার্স-কোভ-২ (SARS-CoV-2) ভ্যারিয়েন্টের সঙ্গে লড়াইয়ে সক্ষম। প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এই ভ্যাক্সজ়েব্রিয়ার তৃতীয় ডোজ়। দ্য হিন্দু প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে।

অ্যাস্ট্রাজ়েনেকার ভ্যাকসিন ভ্যাক্সজ়েব্রিয়া (Vaxzevria) নিয়ে একটি সমীক্ষা করা হয়। প্রাথমিকভাবে সেই সমীক্ষাতেই দেখা গিয়েছে, টিকার বুস্টার ডোজ় হিসাবে ভ্যাক্সজ়েব্রিয়ার ব্যবহার করা হলে করোনার ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট ও বিটা, ডেল্টা, আলফা ও গামা সার্স-কোভ-২ (SARS-CoV-2) ভ্যারিয়েন্টের সঙ্গে লড়াইয়ে সক্ষম। প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এই ভ্যাক্সজ়েব্রিয়ার তৃতীয় ডোজ়।

অ্যাস্ট্রাজ়েনেকার এক্সিকিউটিভ ভাইস-প্রেসিডেন্ট মেনে পানগালোস জানিয়েছেন, “করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে ভ্যাক্সজ়েব্রিয়া বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষের ঢাল হতে পারে। পরিসংখ্যান বলছে তৃতীয় ডোজ় বুস্টার হিসাবে ভ্যাক্সজ়েব্রিয়ার ভূমিকা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ হবে। এমনকী এটা যদি অন্য ভ্যাকসিনের ব্যবহারের পরও নেওয়া হয় তাতেও লাভ হবে।” সংস্থার তরফে দাবি করা হয়েছে, যাদের আগে ভ্যাক্সজ়েব্রিয়া বা এমআরএনএ (mRNA) ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে, তাদের মধ্যে প্রমাণও রয়েছে।

করোনা রোগীদের চিকিৎসায় দু’টি নতুন ওষুধ ব্যবহার করার সুপারিশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু (WHO)। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, সঙ্কটজনক বা গুরুতর করোনা রোগীদের চিকিৎসায় রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিসের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত বারিসিটিনিব (Baricitinib) ব্যবহার করা যাবে। পাশাপাশি তুলনামূলকভাবে স্থিতিশীল বা কম সংক্রমিত করোনা রোগীর ক্ষেত্রে সোট্রোভিমাব (Sotrovimab) ব্যবহার করা যাবে বলে জানিয়েছে হু। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তাদের নির্দেশিকায় জানিয়েছে, যেসব করোনা রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি করার সম্ভাবনা বেশি তাদের ক্ষেত্রে সোট্রোভিমাব ব্যবহার করা যাবে।

আরও পড়ুন: PM Modi Meeting: করোনা পরিস্থিতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Published On - 7:06 pm, Thu, 13 January 22

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla