নীতীশের শিক্ষামন্ত্রী জানেন না জাতীয় সঙ্গীতও!

TV9 বাংলা ডিজিটাল: শপথ গ্রহণের তিনদিনের মধ্যেই দুর্নীতির অভিযোগে ইস্তফা দিতে হল বিহার (Bihar)-এর শিক্ষামন্ত্রীকে। জনতা দল ইউনাইটেড (জেডিইউ)-এর বিধায়ক মেওয়ালাল চৌধুরী (Mewalal Chowdhury)। নীতীশ কুমারের মন্ত্রিসভায় শিক্ষা দফতরের ভার পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে যে ভুরি ভুরি দুর্নীতির অভিযোগ, তা মনে করিয়ে দেন তেজস্বী যাদবরা। শুরু হয় জল ঘোলা। এরপরই বৃহস্পতিবার তাঁর ইস্তফার খবর […]

নীতীশের শিক্ষামন্ত্রী জানেন না জাতীয় সঙ্গীতও!
সায়নী জোয়ারদার

| Edited By: সোমনাথ মিত্র

Nov 20, 2020 | 7:19 AM

TV9 বাংলা ডিজিটাল: শপথ গ্রহণের তিনদিনের মধ্যেই দুর্নীতির অভিযোগে ইস্তফা দিতে হল বিহার (Bihar)-এর শিক্ষামন্ত্রীকে। জনতা দল ইউনাইটেড (জেডিইউ)-এর বিধায়ক মেওয়ালাল চৌধুরী (Mewalal Chowdhury)। নীতীশ কুমারের মন্ত্রিসভায় শিক্ষা দফতরের ভার পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে যে ভুরি ভুরি দুর্নীতির অভিযোগ, তা মনে করিয়ে দেন তেজস্বী যাদবরা। শুরু হয় জল ঘোলা। এরপরই বৃহস্পতিবার তাঁর ইস্তফার খবর প্রকাশ্যে আসে।

এরইমধ্যে মেওয়ালালের একটি ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে বিহার (Bihar)-এ এনডিএ’র শরিক জেডিইউ-এর এই বিধায়ক একদল কচিকাঁচা নিয়ে ‘জনগণমন’ গাইছেন। তবে জাতীয় সঙ্গীত গাইতে গিয়ে তাঁর একেবারে নাকানি চোবানি দশা। বিধায়ক মহাশয় করবেন বা কী! ওঁর যে জাতীয় সঙ্গীতের কথাগুলোই মুখস্ত নেই, দাবি আরজেডির। তবে বলতে ভোলেননি, ‘ভারত মাতা কী জয়’, ‘বন্দে মাতরম’।

একদিকে দুর্নীতির অভিযোগে গলা অবধি ডুবে, অন্যদিকে আবার জাতীয় সঙ্গীত গাইতে গিয়ে কাপড়ে চোপড়ে! সেই বিধায়ককে ঘটা করে রাজ্যের শিক্ষার ভার দিয়েছিল এনডিএ। প্রথম থেকেই তেজস্বী যাদবের রাষ্ট্রীয় জনতা দল বা আরজেডি এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় সরব হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এ নিয়ে নীতীশ কুমারের বিরুদ্ধে কটাক্ষও করে তারা।

আরজেডির টুইটার হ্যান্ডেলে মেওয়ালালের ৩৮ সেকেন্ডের ওই ভিডিয়ো ক্লিপটি শেয়ার করে লেখা হয়, ‘দুর্নীতির বহু মামলায় অভিযুক্ত বিহারের শিক্ষামন্ত্রী মন্ত্রী মেওয়ালাল চৌধুরী তো জাতীয় সঙ্গীতও জানেন না। নীতীশ কুমারজি কোনও লজ্জা আছে আপনার? অন্তরাত্মাকে কোথায় ডুবিয়েছেন?’

আরও পড়ুন: মুম্বই হামলার মূলচক্রীকে ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিল পাক আদালত

ভাগলপুর এগ্রিকালচার ইউনিভার্সিটিতে অধ্যাপক ও গবেষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে মেওয়ালাল চৌধুরীর বিরুদ্ধে। এছাড়াও আবাসন প্রকল্পে দুর্নীতিতেও অভিযুক্ত তারাপুরের এই বিধায়ক। তিনদিন আগে বিহারের নতুন মন্ত্রিসভার শপথ অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী হিসাবে শপথ নেন তিনি। এ নিয়ে সরব হয় বিহার বিধানসভা নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোটের নিরিখে সংখ্যাগরিষ্ঠ দল আরজেডি। এরইমধ্যে এদিন ইস্তফার কথা জানান মেওয়ালাল।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla