সিবিআই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওম্মেন চাণ্ডি, লোকসভার সদস্য আদুর প্রকাশ, রাজ্যসভার সদস্য কেসি বেণুগোপাল, প্রাক্তন রাজ্যমন্ত্রী এপি অনিল কুমার ও বিজেপির সহ-সভাপতি এপি আবদুল্লা কুট্টির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে। ওই অভিয়োগের ভিত্তিতেই গতকাল মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে প্রমাণের খোঁজে তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। উল্লেখ্য, বর্তমান মুখ্য়মন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন আমেরিকায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এর আগে গত ৫ এপ্রিল তদন্তকারী দল নির্যাতিতাকে নিয়ে কেরলের আইনসভার সদস্যদের কোয়ার্টারেও নিয়ে যাওয়া হয় প্রমাণ সংগ্রহের জন্য। নির্যাতিতা ২০২১ সালে প্রথমে মুখ্যমন্ত্রী বিজয়নের কাছেই অভিযোগ জানিয়েছিলেন। এরপর তিনি সিবিআইয়ের হাতে তদন্তভার তুলে দেন। বর্তমানে সিবিআই জেলা দায়রা আদালতে তিনটি মামলা দায়ের করেছে। একটি আদালত কোচি আদালতে চলছে। আগে কেরল পুলিশের তরফে এই ঘটনার তদন্ত করা হলেও, সেই সময় কোনও প্রমাণ মেলেনি। চাণ্ডি সহ বাকি অভিযুক্তরা জানিয়েছিলেন, তাঁরা কোনও অপরাধ করেননি এবং তদন্তে সবরকমের সহযোগিতা করতে রাজি।

অন্যদিকে, অভিযোগকারিণী ওই মহিলার বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ, ওই মহিলা ও তাঁর লিভ-ইন পার্টনার ভুয়ো সোলার প্যানেল বিক্রি করে টাকা সংগ্রহ করতেন। তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী চাণ্ডির দফতরের কয়েকজন কর্মচারীদের সঙ্গে তাঁদের যোগাযোগ ছিল বলেই জানা গিয়েছিল।

এই খবরটিও পড়ুন