Manik Saha : কে মানিক? বিপ্লবের হাত ধরে পদ্মে যোগ কংগ্রেস নেতার, তাঁকে সরিয়েই এবার ত্রিপুরার মসনদে

Manik Saha : কে মানিক? বিপ্লবের হাত ধরে পদ্মে যোগ কংগ্রেস নেতার, তাঁকে সরিয়েই এবার ত্রিপুরার মসনদে
ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন মানিক সাহা (ছবি সৌজন্যে : টুইটার)

Manik Saha : বিপ্লব দেবের জায়গায় এবার মুখ্যমন্ত্রীর গদিতে বসতে চলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি মানিক সাহা। তাঁর সাংগঠনিক দক্ষতার জন্যই এই প্রাপ্তি প্রাক্তন কংগ্রেস নেতার।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: অঙ্কিতা পাল

May 14, 2022 | 7:47 PM

আগরতলা : ত্রিপুরার রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে নয়া মোড়। উত্তর-পূর্বের এই ভারতীয় জনতা পার্টি শাসিত রাজ্য় নতুন মুখ্যমন্ত্রী পেতে চলেছে। ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন মানিক সাহা। আজ শনিবার ইস্তফা দেন ত্রিপুরার বিজেপি মুখ্য়মন্ত্রী বিপ্লব দেব। এরপরই তড়িঘড়ি বৈঠকে বসেন বিজেপি বিধায়করা। ত্রিপুরার নয়া মুখ্যমন্ত্রীর তালিকায় ছিলেন বর্তমান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক ও জিষ্ণু দেববর্মাও। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মুখ্য়মন্ত্রী হিসেবে বেছে নেওয়া হল বিজেপির রাজ্য় সভাপতি ও রাজ্য়সভার সাংসদ মানিক সাহাকে। সূত্রের খবর, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে তাঁর ভাবমূর্তি খুব ভাল। সেই ভাবমূর্তির কারণেই মুখ্য়মন্ত্রী হওয়ার ঘোড়দৌড়ে বাকি দু’জনকে পিছনে ফেলে গদি পেলেন তিনিই। তবে জিষ্ণু দেববর্মা নিজেই মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব খারিজ করেছেন বলে জানা গিয়েছে।

কে এই মানিক সাহা? 

৬৯ বছর বয়সী মানিক সাহা একজন ডেন্টাল সার্জারির অধ্যাপক। কাগজে-কলমে ত্রিপুরার ছেলে এই মানিক সাহা। কংগ্রেসের হাত ধরে শুরু হয়েছিল রাজনৈতিক জীবন। তবে কংগ্রেসের হাত ধরে তাঁর রাজনৈতিক যাত্রা বেশিদিন চলেনি। তিনি কংগ্রেস ছেড়ে দেন। হাত ছেড়ে পদ্মে অভিষেক হয় তাঁর। ২০১৬ সালে বিজেপিতে যোগ দেন তিনি। বিপ্লব দেবের হাত ধরেই তিনি বিজেপিতে আসেন। এরপর সেই বিপ্লব দেবের গদিতেই বসতে চলেছেন মানিক সাহা। গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েই খুব তাড়াতাড়ি রাজ্য-কেন্দ্রীয় সব নেতৃত্বের মন জয় করেছিলেন তিনি। তাঁর সাংগঠনিক দক্ষতা মন কেড়েছিল কেন্দ্রীয় নেতৃত্বদের। তাই অল্প সময়েই পান দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। ২০২০ সালে তাঁকে রাজ্য সভাপতি করা হয়। তিনি এ বছর রাজ্য সভার সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি ত্রিপুরা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতিও।

মানিক সাহাকে কেন ত্রিপুরার মুখ্য়মন্ত্রী হিসেবে বেছে নেওয়া হল?

উত্তর-পূর্বের এই রাজ্যে তৃণমূল পা রাখার পর থেকেই বিপ্লব দেব চালিত প্রশাসনের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ উঠেছে। বিপ্লব দেবের প্রশাসনিক অসফলতা ও সরকারের কঙ্কালসাড় ছবি প্রকাশ্যে আসতেই বিজেপিকে অস্বস্তিতে ফেলেছিল। তাই নির্বাচনের আগে রাজ্যে বিজেপির মুখ বদলের প্রয়োজন পড়েছিল। ত্রিপুরায় তৃণমূলের পদার্পণে কিছুটা ভয় পেয়েছিল বিজেপি প্রশাসন। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বিধানসভা নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ বদল করে নিজেদের ভাবমূর্তি পালিশ করতে চাইছে বিজেপি। সেই উদ্দেশ্যে মানিক সাহাকেই নির্বাচন করার পিছনে রয়েছে কিছু নির্দিষ্ট কারণ।

এই খবরটিও পড়ুন

  • মানিক সাহার চরিত্রে সেরকম দাগ নেই। বিপ্লব দেবের বিরুদ্ধে একাধিকবার বিভিন্ন অভিযোগ উঠেছে এদিক থেকে।
  • তাঁর সাংগঠনিক কাজে খুশি বিজেপি নেতৃত্ব। রাজ্যে বিজেপির বিস্তারের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন তিনি।
  • সংগঠনের মধ্যে সবাইকে পাশে নিয়ে চলতে পারেন মানিক। এই গুণটি বিপ্লবের মধ্যে একেবারেই ছিল না।
  • ত্রিপুরায় যেহেতু বাঙালি জনসংখ্য়া বেশি তৃণমূল গিয়ে সেখানে তাঁদেরকে ভোটব্যাঙ্ক বানানোর চেষ্টা করছে। তাই মুখ্যমন্ত্রীর গদিতে একজন বাঙালিকে বসানো হল বিজেপির তরফে। তদোপুরি মানিক সাহা মূল ত্রিপুরাতে। সেখানে বিপ্লব দেবকে দিল্লি থেকে নিয়ে এসে এখানে মুখ্যমন্ত্রী বানানো হয়েছে।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA