Narendra Modi: শীতকালীন অধিবেশনের ঠিক আগেই রবিবাসরীয় সকালে সর্বদল বৈঠকের ডাক মোদীর

All Party Meeting: তিনটি কৃষি আইনের বাতিলের প্রক্রিয়া ওই বৈঠক বিশেষ গুরুত্ব পেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। একইসঙ্গে কৃষকরা ফসলের যে ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের জন্য আইনের দাবি করে আসছেন, সেই নিয়ে সর্বদল বৈঠকে আলোচনা হতে পারে বলে সূত্রের খবর।

Narendra Modi: শীতকালীন অধিবেশনের ঠিক আগেই রবিবাসরীয় সকালে সর্বদল বৈঠকের ডাক মোদীর
নয়া বিমানবন্দরের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ফাইল ছবি

নয়া দিল্লি: কয়েক দিন আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Prime Minister Narendra Modi) জাতির উদ্দেশে ভাষণে ঘোষণা করেছেন, তিনটি কৃষি আইন বাতিল করা হবে। কিন্তু, আন্দোলনে এখনও ইতি পড়েনি। এখনও কৃষকদের একটি অংশ আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। এরই মধ্যে আগামী রবিবার অর্থাৎ, ২৮ নভেম্বর সর্বদল বৈঠক (All Party Meeting) ডাকলেন প্রধানমন্ত্রী। রবিবার সকাল ১১ টায় সব রাজনৈতিক দলগুলির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চাইছেন তিনি।

আগামী সোমবার থেকে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শুরু হচ্ছে। আর ঠিক তার আগের দিনই প্রধানমন্ত্রীর ডাকা এই সর্বদল বৈঠক বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তিনটি কৃষি আইনের বাতিলের প্রক্রিয়া ওই বৈঠক বিশেষ গুরুত্ব পেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। একইসঙ্গে কৃষকরা ফসলের যে ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের জন্য আইনের দাবি করে আসছেন, সেই নিয়ে সর্বদল বৈঠকে আলোচনা হতে পারে বলে সূত্রের খবর।

উল্লেখ্য, রবিবার সর্বদল বৈঠকের শেষে সন্ধ্যায় বিজেপির সংসদীয় এক্সিকিউটিভ কমিটির বৈঠক রয়েছে। তার আগে দুপুর তিনটে নাগাদ এনডিএর দলগুলির প্রতিনিধিরাও বৈঠকে বসতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। সূত্রের খবর, রবিবারের এই সবক’টি বৈঠকেই থাকতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আসন্ন শীতকালীন অধিবেশনে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হতে চলেছে তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহার। সম্ভবত বুধবারই এই সংক্রান্ত বিলে সবুজ সংকেত দিতে পারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। উল্লেখ্য, কেন্দ্র তিন কৃষি আইন বাতিলের সিদ্ধান্তের কথা জানানোর পর থেকেই বিরোধী দলগুলি চাপ বাড়াতে শুরু করেছে। কৃষকদের অন্যান্য দাবি দাওয়াগুলিও যাতে কেন্দ্র মেনে নেয়, তার জন্য চাপ দিচ্ছে বিরোধী দলগুলি। এর মধ্যে অন্যতনম একটি ইস্যু হল, ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য নিশ্চিত করার জন্য একটি আইন। এদিকে কৃষকদের যে একটি অংশ বিক্ষোভ করছে, তাদেরও বক্তব্য, এই দাবিটিও না মানা পর্যন্ত তারা বিক্ষোভ চালিয়ে যাবে।

এর পাশাপাশি, ত্রিপুরার সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়ানোর চেষ্টা দেখা যেতে পারে। এ দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে সময় চেয়েছিল তৃণমূল। তিনি সময় না দেওয়ায় বিক্ষোভ শুরু করেন সাংসদরা। নর্থ ব্লকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অফিসের ঠিক সামনে ধর্নায় বসেছেন তাঁরা। ত্রিপুরার আইন- শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতেই অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিল তৃণমূল। নির্ধারিত সময়ের পরও সাক্ষাতের সময় না মেলায় ধর্নায় বসে তৃণমূল। রয়েছেন সৌগত রায়, শান্তনু সেন, দোলা সেন, কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়, অপরূপা পোদ্দার সহ ১৬ জন সাংসদ।

আরও পড়ুন : TMC in Delhi: ‘অমিত শাহ জবাব চাই’, নর্থ ব্লকের সামনে ধর্নায় বসলেন তৃণমূল সাংসদরা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla