Anis Khan Death Case: ‘আনিস পড়ে গিয়েছে জেনেও পাশ কাটিয়ে চলে গেল পুলিশ?’ সিট রিপোর্ট নিয়েই উঠছে প্রশ্ন

Anis Khan Death Case: 'আনিস পড়ে গিয়েছে জেনেও পাশ কাটিয়ে চলে গেল পুলিশ?' সিট রিপোর্ট নিয়েই উঠছে প্রশ্ন
আনিস খানের মামলায় উছল একাধিক প্রশ্ন

Anis Khan Death Case: আনিসের মৃত্যু তদন্তের সিট-রিপোর্টে সন্তুষ্ট নয় আনিসের পরিবার। রিপোর্ট বলছে, ছাদ থেকে পড়ে মৃত্যু হয়েছে আনিসের।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: tannistha bhandari

May 13, 2022 | 10:59 AM

কলকাতা : আনিস খানের মৃত্যুর কারণ জানতে তদন্ত করে রাজ্য পুলিশের সিট। সেই রিপোর্ট ইতিমধ্যেই জমা পড়েছে আদালতে। কিন্তু সিটের রিপোর্টে সন্তুষ্ট নয় আনিসের পরিবার। ছাদ থেকে পড়ে আনিসের মৃত্যু হয়েছে বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হলেও ছাদ থেকে কী ভাবে পড়ে গেলেন আনিস, বাড়ির চারপাশ যখন পুলিশ ঘিরে রেখেছিল, তখনই কেন এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটল, এই সব প্রশ্নই উঠেছে আদালতে। বিচারপতি রাজাশেখর মান্থার বেঞ্চে বৃহস্পতিবার ছিল সেই মামলার শুনানি। এ দিন আদালতে সিটের রিপোর্টকে চ্যালেঞ্জ করে সওয়াল করেন আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য।

যে যে বিষয়গুলি উল্লেখ করলেন আইনজীবী

১. পুলিশ রেডে যদি কেউ এ ভাবে মারা যায় তাহলে সুপ্রিম কোর্ট তাকে খুন আখ্যা দিয়ে থাকে।

২. আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অর্থাৎ আঘাতের ফলে মৃত্যু হয়েছে। জানা গিয়েছে, পুলিশ তাঁকে খুঁজছিল। কেন ফেলে দেওয়া হল সেটা পুলিশই ভাল বলতে পারবে।

৩. আনিসের ফেসবুকে বিতর্কিত পোস্ট ছিল। কী পোস্ট ছিল, তা জানতে চান বিচারপতি রাজাশেখর মান্থা। আইনজীবী জানান, হিজাব ইস্যুতে ছিল সেই পোস্ট। এরপরেই পুলিশ বাড়ি ঘিরে ফেলে। ফেসবুকে যখন পোস্ট দেখা যায়, তারপরই অ্যাডিশনাল এস পি আনিসের ফোন নম্বর নেন৷ তাঁকে তুলে আনার নির্দেশ দেন পুলিশ সুপারও।

৪. সিটের রিপোর্ট বলছে, সানসেট থেকে ইলেক্ট্রিক তারের দূরত্ব ১ মিটারের বেশি নয়। ফলে লাফ দিলে ইলেক্ট্রিক তারে পড়তে পারত। তিন তলা থেকে পড়লে তাঁর হাত পা ভাঙার সম্ভাবনা থাকত। সেটা হয়নি। এ জন্য পলিগ্রাফি টেস্ট করতে বলা হয়। রিপোর্টে বলা হয় সিমেন্টের উপর পড়েছে। অথচ বাড়ির পাশে মাঠ ছিল।

৫. পলিগ্রাফি টেস্টে পুলিশ জানায় তারা রেড করতে যায়, কিন্তু আনিশের মৃত্যু কী ভাবে তা জানে না। তিন জন পুলিশ বাড়ির বাইরে ছিল। বাকিরা উপরে যায়। রিপোর্টে লেখা হয়েছে, একজন ছাদে রয়েছে এটা বুঝতে পেরেই পুলিশ উপরে যায়। তখনই কেউ যদি সত্যি কেউ পড়ে যায়, তাহলে তাঁকে ফেলে কী ভাবে পুলিশ চলে যেতে পারে? হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল না কেন?

পুলিশ রেড করেছিল সেটা স্পষ্ট। কিন্তু বাড়িতে যাওয়ার পর কী ঘটেছিল সেটা স্পষ্ট নয়। ৩০৪ (গাফিলতিতে মৃত্যু) ধারা কেন যুক্ত করা হল না? সেই প্রশ্ন তুলেছেন আইনজীবী। তাঁর দাবি, একজনের মৃত্যু দেখার পরেও পুলিশ সাধারণ মানুষের মতো পাশ কাটিয়ে যেতে পারে না।

রাজ্যের পক্ষ থেকে আইনজীবী অমিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ফরেনসিক রিপোর্ট দেখে চার্জশিট দেওয়া হবে। রাজ্য যা পদক্ষেপ করার, তা করেছে বলে উল্লেখ করেছেন এজি সৌম্যেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়। পাশাপশি তিনি জানিয়েছেন, এ রাজ্যে পলিগ্রাফি টেস্ট হয় না। সিবিআই অফিসারেরাই ওই পরীক্ষা করেন।

এই খবরটিও পড়ুন

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA