Gangasagar Mela: বাফার জোনে বসেই জায়ান্ট স্ক্রিনে দেখা যাবে গঙ্গাসাগর মেলা

Gangasagar Mela in giant screen: সেই সঙ্গে যদি কেউ শারীরিক অসুস্থতা বোধ করেন, বা যদি কেউ মেলা পর্যন্ত যেতে না পারেন, সেক্ষেত্রে তাঁদের কথা মাথায় রেখে করা হচ্ছে জায়ন্ট স্ক্রিনের ব্যবস্থা।

Gangasagar Mela: বাফার জোনে বসেই জায়ান্ট স্ক্রিনে দেখা যাবে গঙ্গাসাগর মেলা
গঙ্গাসাগর মেলার বাফার জোনে থাকছে জায়ান্ট স্ক্রিন (নিজস্ব চিত্র)

কলকাতা : কথিত আছে, সবতীর্থ বারবার, গঙ্গাসাগর (Gangasagar Mela) একবার। আর সেই গঙ্গার মেলায় দূর দূরান্ত থেকে আসা পূণ্যার্থীদের কথা মাথায় রেখে, তাঁদের বিশ্রামের জন্য অন্যান্য বছরের মতো বিষ্ণুপুর পৈলানে তৈরি হয়েছে বাফার জোন। সেই বাফার জোনে বিশ্রাম রত পূণ্যার্থীদের যাতে কোনও সমস্যা না হয়, তা নিশ্চিত করার জন্য বুধবার এলাকা পরিদর্শন করেন বিধায়ক দিলীপ মণ্ডল। সেই সঙ্গে খতিয়ে দেখেন বাফার জোনের পরিকাঠামো। ওই বাফার জোনে এখন একটি ওয়াচ টাওয়ার রয়েছে। এছাড়াও থাকছে পূণ্যার্থীদের জন্য গাড়ি পার্কিংয়ের বিশেষ জায়গা। থাকছে পর্যাপ্ত পানীয় জল, শৌচালয়ের ব্যবস্থা। এর পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ব়্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে। থাকছে অন্যান্য চিকিৎসার ব্যবস্থাও।

বাফার জোনে বসেই জায়ান্ট স্ক্রিন দেখা যাবে মেলা

সেই সঙ্গে যদি কেউ শারীরিক অসুস্থতা বোধ করেন, বা যদি কেউ মেলা পর্যন্ত যেতে না পারেন, সেক্ষেত্রে তাঁদের কথা মাথায় রেখে করা হচ্ছে জায়ন্ট স্ক্রিনের ব্যবস্থা। ওই জায়ন্ট স্ক্রিনের মাধ্যমেই দেখা যাবে গঙ্গা সাগরের মেলা ও মন্দিরের পুজো। এর পাশাপাশি পূণ্যার্থীদের সঙ্গে যাতে কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তার দিকেও জোর দেওয়া হয়েছে। বিশ্রামরত পূণ্য়ার্থীদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে পুলিশ প্রশাসনের তরফে বাফার জোনে লাগানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা।

কী বলছেন স্থানীয় বিধায়ক?

বিষ্ণুপুর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক দিলীপ মণ্ডল জানিয়েছেন, ” আমাদের এই এলাকায় একটিই বাফার জোন করা হয়েছে। প্রতি বছরই এটি হয়ে থাকে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সহযোগিতায় এটি তৈরি করা হয়। এর পাশাপাশি আমরা আরও একটি ব্যবস্থা করে থাকি গঙ্গাসাগরগামী পূণ্যার্থীদের জন্য। আমরা এখানে সবজি দিয়ে ভোগের ব্যবস্থা করে থাকি। যাঁরা দূর দূর থেকে আসেন, অনেক সময় তাঁদের খাবার তৈরি করার ক্ষেত্রে সমস্যা হয়। সে ক্ষেত্রে অনেকেই জানেন, এখানে ভোগের ব্যবস্থা হয়। তাই অনেকেই এখানে চলে আসেন। আমরাও তাঁদের জন্য সব রকম ব্যবস্থা করি। যদিও বর্তমানে কোভিডের এই কঠিন অবস্থা চলছে, তার মধ্যেও আমরা চেষ্টা করছি, সব কিছু বজায় রেখে, কোভিড বিধি মেনে সব কিছু চালানোর। যাঁরা পূণ্যার্থী, তাঁদের যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তার চেষ্টা আমরা বিগত কয়েক বছর ধরে যেভাবে করে আসছি, এবারও সেই চেষ্টা করছি।”

বিধায়ক আরও জানিয়েছেন, “এই বাফার জোনে প্রায় ১০০ জন পূণ্যার্থী বিশ্রাম নিতে পারবেন। এখানে একটি ওয়াচ টাওয়ার আছে। আগে যখন ভেসেল চলাচল করত, তখন যানজটের কারণে বাফার জোনগুলি তৈরি রাখা হত বিশ্রাম নেওয়ার জন্য। আমাদের এখন রাস্তা সুন্দরভাবে তৈরি হয়ে গিয়েছে। ভেসেল ২০ ঘণ্টা চলাচল করতে পারে। সেদিক থেকে কোনও অসুবিধা হবে না। তবু আমরা সাবধানতার জন্য এগুলি তৈরি রাখছি।”

আরও পড়ুন : Covid Test in Diamond Harbour: একদিনে ৫৩ হাজার কোভিড পরীক্ষা ডায়মন্ড হারবারে, পজিটিভিটি রেট সর্বনিম্ন বলে দাবি সাংসদের

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla