খাস বালিগঞ্জে রমরমিয়ে চলত পর্ন ছবির শুটিং! ‘স্পট’-এ পৌঁছে হাতেনাতে ধরল পুলিশ

পর্নকাণ্ডে ধৃত অভিনেত্রীর মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরিকল্পনা রয়েছে পুলিশের।

খাস বালিগঞ্জে রমরমিয়ে চলত পর্ন ছবির শুটিং! 'স্পট'-এ পৌঁছে হাতেনাতে ধরল পুলিশ
ছবি ফেসবুক
TV9 Bangla Digital

| Edited By: বিহঙ্গী বিশ্বাস

Jul 31, 2021 | 8:42 PM

কলকাতা: খাস কলকাতার বুকেই চলত নীল ছবির শুটিং! হ্যাঁ, নিউটাউনে নীল ছবি কাণ্ডে দুই ধৃতকে জেরা করার পর এমনই তথ্য উঠে আসে, এবং শনিবার বালিগঞ্জের একটি বাড়িতে হানা দেয় নিউটাউন থানার পুলিশ। সূত্রের খবর, বালিগঞ্জের ওই বাড়িতেই নীল ছবির শুটিং হতো। হানা দিয়ে ওই বাড়ির মালিককেই আটক করেছে নিউটাউন থানার পুলিশ।

নীল ছবি কাণ্ডে অভিযুক্ত ফটোগ্রাফার মৈনাক ঘোষকে জেরা করেই বালিগঞ্জের এই ঠিকানার খোঁজ পায় পুলিশ। সেই মতো শনিবার বালিগঞ্জের গড়চা এলাকার শরৎ পার্ক রোডের একটি বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। পুলিশ সূত্রে খবর, পর্ন ছবি শুটিংয়ের জন্য যে সমস্ত ক্যামেরা এবং যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হত, তাও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। অন্যদিকে, বাড়ির মালিককে মৈনাক এবং পর্নকাণ্ডে ধৃত অভিনেত্রীর মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরিকল্পনা রয়েছে পুলিশের।

কিছুদিন আগে এক যুবতী নিউটাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশকে জানান, মডেলিং জগতে বড় সুযোগ করে দেওয়ার নামে তাঁর ‘বোল্ড’ ছবি তুলে এখন তা পর্ন সাইটে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। পুলিশ তাঁর সঙ্গে কথা বলে জানতে পারে, ফেসবুকে এক ফটোগ্রাফারের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় হয়েছিল। সেখান থেকেই ফটোশুটের প্রস্তাব আসে। গ্ল্যামার দুনিয়ার হাতছানিতে সাড়া দিয়ে ওই তরুণীও ছবি তুলতে রাজি হন। এরপরই বালিগঞ্জের একটি বাড়িতে ছবি তোলার ব্যবস্থা করা হয়।

ওই তরুণীর অভিযোগ, সোশ্যাল মিডিয়াতে অভিযুক্তদের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। এরপরই তাঁকে নিউটাউনের একটি তিন তারা হোটেলে যেতে বলা হয়। সেখানে আট তলার একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে জোর করে নীল ছবির জন্য ভিডিয়ো করানো হয়। সম্প্রতি তিনি দেখেন, সেই সমস্ত ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হন তিনি।

ওই অভিযোগকারী তরুণীর কথায়, “আমরা তিনজন সেদিন গিয়েছিলাম। ম্যাডামকে বললাম আমাদের তো অন্য ছবির কথা বলা হয়েছিল। এখন তো অন্য কথা বলছেন। উনি বললেন, আমাদের কোঅর্ডিনেটরকে জানিয়েছেন। এই শুট না হলে আমরা বেরোতেও পারব না। আমাদের হুমকি দেওয়া হয়।”

অভিযোগ, ধৃতদের শুট করা ভিডিয়ো পৌঁছে যেত সিঙ্গাপুরে যশ ঠাকুর ওরফে অরবিন্দ শ্রীবাস্তবের হাতে। এই যশ একটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে যুক্ত। সবথেকে চাঞ্চল্যকর তথ্য হল, এই যশ ঠাকুরের সঙ্গে বলিউড তারকা শিল্পা শেট্টির স্বামী রাজ কুন্দ্রার নামও জড়িয়ে রয়েছে। এই মুহূর্তে যিনি পর্নকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগে মুম্বই পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন। যশ অবশ্য রাজের সঙ্গে যুক্ত থাকার কথা অস্বীকার করেছেন।

নিউটাউন থানার পুলিশ জানতে পেরেছে, ধৃত তরুণী নিজেও প্রাপ্ত বয়স্কদের বেশ কিছু ছবিতে অভিনয় করেছেন। গ্ল্যামার জগতে তাঁর পরিচিতি নাকি ‘ন্যান্সি’ নামে। অর্থাৎ এই জাল যে শহর কলকাতায় সীমাবদ্ধ নয়, বহু দূর অবধি ছড়ানো তা ইতিমধ্যেই আঁচ করেছে পুলিশ। তবে এই প্রথম এ সংক্রান্ত কোনও অভিযোগ এল। তবে এমন ঘটনা শহরের আরও তরুণীদের সঙ্গে ঘটেছে কি না তা নিয়েও বড় প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। আরও পড়ুন: বাবুল-প্রশ্নে তিতিবিরক্ত দিলীপের সাংবাদিক বৈঠক বন্ধ করার হুমকি, দূর থেকেই জল মাপছে ঘাসফুল

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla