Sitaram Yechury: বিজেপি, তৃণমূল পেরনো যশবন্তকে কেন সমর্থন? ব্যাখ্যা করলেন ইয়েচুরি

Sitaram Yechury: বিজেপি, তৃণমূল পেরনো যশবন্তকে কেন সমর্থন? ব্যাখ্যা করলেন ইয়েচুরি
যশবন্তকে সমর্থন নিয়ে কী বললেন ইয়েচুরি

Sitaram Yechury: বঙ্গ সিপিএমের অন্দরে নাকি কেউ কেউ যশবন্ত সিনহাকে প্রার্থী করা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে বার্তা দেওয়া হয়েছে আলিমুদ্দিনের তরফে।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: tannistha bhandari

Jun 23, 2022 | 2:29 PM

আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধীদের তরফে প্রার্থী হিসেবে সমর্থন করা হয়েছে যশবন্ত সিনহাকে। তাঁকে সমর্থনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিপিআইএম-সহ বাম দলগুলিও। কিন্তু প্রার্থীকে সমর্থন করার ক্ষেত্রে বামেরা একজোট হলেও বাংলায় অনেক বাম নেতা যে বিষয়টাতে খুব একটা সন্তুষ্ট নন, তেমনটাই শোনা যাচ্ছে। এমনকি বর্ষীয়ান বাম নেতা বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যও বলেছেন, তেতো গেলার মতো গিলতে হবে আপাতত। কিন্তু সমর্থনের ক্ষেত্রে যে কোনওভাবেই বামেরা পিছপা হবে না, এ কথা বুঝিয়ে দিলেন সিপিআইএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। তাঁর দাবি, মূলত সংবিধান রক্ষা করার জন্য এখন যশবন্তকে সমর্থন করা জরুরি। বামেদের মুখপত্রে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই উল্লেখ করেছেন ইয়েচুরি।

একসময় বিজেপি’র মন্ত্রী ছিলেন যশবন্ত সিনহা, পরে তিনি তৃণমূলে যোগ দেন। তা সত্ত্বেও কেন তাঁর নাম বামপন্থীরা সমর্থন করলেন, সেই প্রশ্ন সামনে আসে।

ইয়েচুরির দাবি, রাষ্ট্রপতি নির্বাচন আসলে সংবিধানকে রক্ষা করা আর সাধারণতন্ত্রের চরিত্র রক্ষা করার লড়াই। পরিস্থিতির কারণে যশবন্ত সিনহাকে সমর্থন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। সাক্ষাৎকারে তিনি উল্লেখ করেন, শরদ পাওয়ার, ফারুক আবদুল্লা ও গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর নাম সামনে আসে। সে ক্ষেত্রে সব দলেরই সম্মতি ছিল। কিন্তু তাঁরা তিনজনই রাজি হননি। এরপরই এমন একটি নাম খোঁজা হচ্ছিল, যে নাম নিয়ে মতভেদ থাকবে না। এই পরিস্থিতিতেই যশবন্ত সিনহার নাম আসে। তাই তাঁর অতীত রাজনৈতিক অবস্থান না দেখেই তাঁকে সমর্থন করা হচ্ছে বলে উল্লেখ করেছেন ইয়েচুরি।

এমন ঘটনা যে প্রথম নয়, সে কথাও জানিয়েছেন ইয়েচুরি। তিনি মনে করিয়ে দেন ইন্দিরা গান্ধীর আমলে জরুরি অবস্থার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সময় জগজীবন রাম যখন কংগ্রেস থেকে বেরিয়ে এলেন, তখন তাঁর অতীত না দেখেই বামেরা তাঁকে সমর্থন করেছিল। কারণ, সেই পরিস্থিতিতে সেটাই প্রয়োজন ছিল। তিনি আরও জানান, রাজীব গান্ধী সরকারের অর্থমন্ত্রী ছিলেন ভি পি সিং। কিন্তু দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়ে যখন তিনি কংগ্রেস ছেড়েছিলেন, তাঁকেও সমর্থন করা হয়েছিল। আর এবারও তাই। সংবিধানকে রক্ষা করার যে অভিযান, সে কথা মাথায় রেখেই যশবন্তকে সমর্থন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এই খবরটিও পড়ুন

তবে ইয়েচুরি এও স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে, যশবন্ত সিনহা তৃণমূল কংগ্রেস থেকে পদত্যাগ করার পরই তাঁর নাম আলোচনায় এসেছে, তার আগে নয়। তবে যশবন্ত প্রার্থী হওয়ায় তৃণমূল কৌশলগতভাবে সফল হয়েছে বলে মনে করেন না ইয়েচুরি। তাঁর দাবি, শরদ পাওয়ার, ফারুক আবদুল্লা ও গোপালকৃষ্ণ গান্ধী রাজি না হওয়ায় তৃণমূলের কৌশল আদতে ব্যর্থ হয়েছে।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA