TOKYO OLYMPIC 2020: ১৩ বছরে অলিম্পিকে সোনা জাপানের মমিজি নিশিয়ার

মমিজির স্কেট বোর্ডিং ইভেন্টে যিনি রুপো জিতেছেন, তিনি ব্রাজিলের রায়সা লিল। তার বয়স ১৩ বছর ২০৩ দিন। তিনি যদি মমিজিকে হারিয়ে সোনা জিততেন, তবে তিনিই হতেন অলিম্পিকের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ সোনাজয়ী।

TOKYO OLYMPIC 2020: ১৩ বছরে অলিম্পিকে সোনা জাপানের মমিজি নিশিয়ার
ইতিহাস মমিজির

টোকিওঃ অলিম্পিকে আরও এক নজির। মাত্র ১৩ বছর বয়সে অলিম্পিকে সোনা জিতলেন জাপানের প্রতিযোগী মমিজি নিশিয়ার। স্ট্রিট স্কেট বোর্ডিংয়ের ব্যক্তিগত ইভেন্টে সোনা জিতলেন জাপানের এই খেলোয়াড়।

মমিজি নিশিয়ার বয়স মাত্র ১৩ বছর ৩৩০ দিন। মাত্র ১৩ বছরেই স্কিট বোর্ডিংয়ে ঘরের মাঠে যা কীর্তি দেখালেন মমিজি, তা দেখে তাজ্জব বনে গিয়েছে অলিম্পিক। জাপানের কোনও মহিলা হিসেবে এই প্রথম কীর্তি গড়লেন মমিজি। ১৩ বছরে অলিম্পিক সোনা! কল্পনাও করতে পারেননা এদেশেরমানুষ। জাপানের মেয়েটি করে দেখাল। এর আগে কোনও এশীয় হিসেবে কম বয়সে পদক জিতে নজর কেড়েছিলেন চিনের ফু মিংশিয়া। ১৯৯২ অলিম্পিকে চিনের এই ডাইভার জিতেছিলেন সোনা। তখন তার বয়স ছিল ১৩ বছর ৩৪৫ দিন। মমিজির থেকে ১৫ দিনের বড় ছিলেন তিনি।

মমিজির স্কেট বোর্ডিং ইভেন্টে যিনি রুপো জিতেছেন, তিনি ব্রাজিলের রায়সা লিল। তার বয়স ১৩ বছর ২০৩ দিন। তিনি যদি মমিজিকে হারিয়ে সোনা জিততেন, তবে তিনিই হতেন অলিম্পিকের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ সোনাজয়ী। এর আগে  ১৯৩৬ বার্লিন অলিম্পিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডাইভার ম্যাজোরি জেস্ট্রিং ব্যক্তিগত ইভেন্টে সোনা জিতেছিলেন। তখন জেস্ট্রিংয়ের বয়স ছিল ১৩ বছর ২৬৮ দিন। রায়সা জিতলে তবে তাঁকেও ছাপিয়ে যেত। প্রসঙ্গত, নাদিয়া কোমানিচি মন্ট্রিল অলিম্পিকে যখন পজক জিতেছিলেন তখন তাঁর বয়স ছিল ১৪ বছর। মমিজি ও রায়াস তাঁর থেকে অনেক কম বয়সে এই কীর্তি গড়লেন।

অলিম্পিকের আরও খবর পড়তে ক্লিক করুনঃ টোকিও অলিম্পিক ২০২০

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla