TOKYO OLYMPICS 2020 : ‘ভারত মাতা কি জয়’ স্লোগানে চানু বরণ

অলিম্পিকে যাওয়ার আগে রেলের টিকিট পরীক্ষক হিসেবে চাকরি করতেন মীরাবাঈ। রুপো জয়ের পর মনিপুরেের মুখ্যমন্ত্রী এন মুখ্যমন্ত্রী চানুকে জানান, দেশে ফেরো, উপহার আছে তোমার জন্য। সেই মত, এবার তাঁকে পুলিশের এএসপি(অ্যাডিশনাল সুপারিন্টেনডেন্ট অফ পুলিশ) করার কথা ঘোষণা করল মনিপুর সরকার।

TOKYO OLYMPICS 2020 : 'ভারত মাতা কি জয়' স্লোগানে চানু বরণ
দিল্লি বিমানবন্দরের বাইরে চানু

নয়াদিল্লিঃ ঘড়ির কাঁটা তখন সাড়ে তিনটে পেরিয়ে গিয়েছে। টোকিও থেকে বিমান যখন নয়াদিল্লির ইন্দিরা গান্ধী বিমানবন্দর ছুঁল, তখন থেকেই যে সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন, উসখুশ করছেন তাঁরা। কখন বেরিয়ে আসবেন তিনি। ঘড়ির কাঁটা তখন ৪টে ছুঁইছুঁই। দিল্লি বিমানবন্দরে আবশ্যক আরটিপিসিআর টেস্ট করিয়ে বেরিয়ে এলেন অলিম্পিকে রুপোজয়ী মীরাবাঈ চানু।

নিরাপত্তাবাহিনীর মোড়কে বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে এলেন চানু। আর চারদিকে স্লোগান ‘ভারত মাতা কি জয়!’ তার মধ্যে বিমানবন্দরের টার্মিনাল থেকে বাইরে বেরিয়ে এলেন ভারতের গর্বের মেয়ে। চানুর মুখ তখন দেখা মুশকিল। মাস্ক ও ফেস শিল্ডে ঢাকা রুপোজয়ী ভারোত্তলকের।দ্রুত পায়ে বেরিয়ে আসছেন তিনি। বিমানবন্দরেই ফুল দিয়ে তাঁকে সংবর্ধনা জানান স্পোর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়া ও অন্যান্য সংস্থার কর্তারা। আর তার মাঝেই দেশে ফিরে চানুর ছোট্ট ট্যুইট, “দেশে ফিরে ভালবাসা ও সমর্থন পেয়ে আমি অভিভূত। ধন্যবাদ সবাইকে।”

শুধু তাই নয়, কেন্দ্রীয় ক্রীড়াদফতর থেকেও সংবর্ধিত করা চানুকে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর, প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক এবং মন্ত্রী কিরেন রিজিজু।

আর দেশে ফিরেই তাঁকে ফুল ও মালার সঙ্গে তাকে জড়ানো হল মনিপুরের শালে। এদিনই অবশ্য নয়াদিল্লি থেকে তাঁর মনিপুরে উড়ে যআওয়ার কথা। তাঁর গ্রাম নংপক কাকচিং অপেক্ষায় চানুকে বরণ করে নিতে। অলিম্পিকে যাওয়ার আগে রেলের টিকিট পরীক্ষক হিসেবে চাকরি করতেন মীরাবাঈ। রুপো জয়ের পর মনিপুরেের মুখ্যমন্ত্রী এন মুখ্যমন্ত্রী চানুকে জানান, দেশে ফেরো, উপহার আছে তোমার জন্য। সেই মত, এবার তাঁকে পুলিশের এএসপি(অ্যাডিশনাল সুপারিন্টেনডেন্ট অফ পুলিশ) করার কথা ঘোষণা করল মনিপুর সরকার। শুধু  নতুন পদে উন্নত হওয়াই নয়, চানুকে ১ কোটি টাকা পুরস্কারের ঘোষণা করেছে তাঁর রাজ্যের সরকার।

এদিকে চানু দেশে ফেরার মাঝেই নতুন করে জল্পনা শুরু হয়। চানুর পদক রুপো বদলে যেতে পারে সোনায়। কিভাবে? কারন চানুর ইভেন্টে যিনি সোনা জিতেছেন চিনের সেই ভারোত্তলককে ফের একবার ডোপ টেস্টের জন্য ডাকা হয়েছে। তাঁকে ছাড়তে বলা হয়েছে টোকিও। এতেই শুরু হয় জল্পনা। ডোপ টেস্টে পাশ করতে না পারলে চানুর ভাগ্যে জুটে যাবে সোনা। এখন সেদিকেও নজর রয়েছে ভারতের।

অলিম্পিকের আরও খবর দেখতে ক্লিক করুনঃ টোকিও অলিম্পিক ২০২০

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla