আইডি-পাসপোর্ট না দিলে খুলবে না টুইটার! ভেরিফিকেশন করার নয়া নিয়মগুলি জেনে নিন…

জনপ্রিয় সামাজিক মাধ্যম ট্যুইটার। গুছিয়ে নিজের বক্তব্য পেশ করা হোক বা অন্যের বক্তব্য শোনা, কিংবা ঝগড়া করা, অথবা ভার্চুয়াল বিতণ্ডার মজা নেওয়ার আদর্শ প্লাটফর্ম।

  • Publish Date - 4:43 pm, Fri, 21 May 21
আইডি-পাসপোর্ট না দিলে খুলবে না টুইটার! ভেরিফিকেশন করার নয়া নিয়মগুলি জেনে নিন...
প্রোফাইলে চান নীল টিক মার্ক

প্রথম হোক বা তৃতীয় বিশ্ব, সব ধরনের সমাজের সাংবাদিক বা শিক্ষক হিসেবে পরিচয় দিয়ে ট্যুইটারের মতো সামাজিক মাধ্যমে যা খুশি তাই লিখে দিতে পারে। ছড়াতে পারে বিদ্বেষ, ঘৃণা, ভ্রান্ত তথ্য। সাংবাদিক, শিক্ষক, চিকিৎসকদের একটু বেশিই সম্মানের নজরে দেখা হয়। তাদের কথা চোখ বুঁজে বিশ্বাস করতে চান মানুষ। সত্যিই তিনি তাঁর পেশার ব্যাপারে সত্য তথ্য দিয়েছেন কি না, অথবা সত্যিই ওই ব্যক্তির অস্তিত্ব কৃত্রিম জগতের বাইরেও রয়েছে কি না! কারণ ফেক প্রোফাইল খুলে ঘৃণা ছড়ানো বা কোনও নির্দিষ্ট বিষয়ে মতামত তৈরি করার চেষ্টা করার ঘটনা আগেও নজরে এসেছে।

উপায় একটাই, নিজের প্রোফাইল ‘ভেরিফাই’ করানো। সেক্ষেত্রে ট্যুইটারে আপনার প্রোফাইলে নামের পাশে থাকবে একটুকরো ‘নীল টিক মার্ক’। অর্থাৎ আপনি মানুষটি খাঁটি এবং কৃত্রিম জগতের বাইরেও আপনার অস্তিত্ব আছে।সম্প্রতি ট্যুইটারের তরফে ফের ভেরিফিকেশন করা এবং ব্লু চেক মার্ক দেওয়া শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন:  সন্দেহ এড়িয়ে, স্ত্রী বা প্রেমিকার মোবাইল ট্র্যাক করবেন কীভাবে?

তবে ট্যুইটারে ভেরিফিকেশন ব্যাচ বা ব্লু টিক পেতে হলে অনেকগুলি ধাপ পেরতে হবে। প্রোফাইল খুলতে ইচ্ছুক ব্যক্তিকে জমা করতে হতে পারে সরকার প্রদত্ত ফটো আইডি (যেমন ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট)। দিতে হতে পারে অফিশিয়াল ইমেল অ্যাড্রেস। কোনও সংস্থা প্রোফাইল চালু রাখতে চাইলে দিতে হতে পারে ওই প্রতিষ্ঠানের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটের লিংক ইত্যাদি।

তবে ভেরিফিকেশন সকলেই করাতে পারবেন এমন নয়। যতটুকু জানা গিয়েছে, ট্যুইটারের পক্ষ থেকে নতুন নিয়ম চালু করা হয়েছে। সেই নিয়ম অনুযায়ী—

  • গত ছয় মাসে অ্যাকাউন্ট চালু থাকতে হবে।
  •  প্রোফাইলের সঙ্গে যোগ থাকতে হবে সরকার, কোনও নির্দিষ্ট সংস্থা, ব্রান্ড ও প্রতিষ্ঠান, সংবাদসংস্থা এবং সাংবাদিক, বিনোদন, খেলার জগৎ, সমাজকর্মী, সংগঠক বা প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের। এছাড়াও বৈজ্ঞানিক, শিক্ষাবিদ, ধার্মিক নেতাদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করারও পরিকল্পনাও রয়েছে।
  • গত বছরে ১২ ঘণ্টা বা এক সপ্তাহের জন্য অ্যাকউন্ট লক করে দেওয়া হয়ে থাকলে ভেরিফিকেশনে সমস্যা হতে পারে।
  • এখানেই শেষ নয়। ট্যুইটারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ব্লু চেক মার্ক পাওয়ার অনুমোদন নির্ভর করছে আরও বেশ কিছু বিষয়ের উপর যথা, ট্যুইটার ব্যবহারকারীর আচরণ কেমন, অ্যাকাউন্টটির মাধ্যমে শুধুমাত্র নিজের বা কোনও গোষ্ঠীর শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের চেষ্টা করা হয়েছে কি না তার উপরেও। এমনকী ট্যুইটারের বাইরেও এমন আচরণ করলে তাও নজরে রাখা হচ্ছে।
  • অ্যাকউন্টে অবশ্যই থাকতে হবে ছবি।
  • মৃত ব্যক্তির প্রোফাইলের ক্ষেত্রেও বিশেষ ব্যবস্থা নিতে পারে ট্যুইটার।
  •  ট্যুইটার ব্যবহারকারীরা যাতে অ্যাকাউন্টে আরও বেশি করে ব্যক্তিগত তথ্য যোগ করতে পারেন সেই বিষয়ে সচেষ্ট হচ্ছে ট্যুইটার।

 

আরও পড়ুন: জুন থেকেই বন্ধ হচ্ছে Google Photos! কীভাবে ছবি ডাউনলোড করবেন, পদ্ধতিগুলি জেনে নিন