হোলির মধ্যেই বাইকে সওয়ার, কীভাবে বাঁচাবেন বাইক? রঙের হাত থেকে নিজেকেই বা বাঁচাবেন কীভাবে

যাঁরা বাইকে চড়ে অফিসে যাবেন, রঙের হাত থেকে নিজেকে এবং বাইক বাঁচানোর কিছু টিপস দেওয়ার চেষ্টা করলাম আমরা।

হোলির মধ্যেই বাইকে সওয়ার, কীভাবে বাঁচাবেন বাইক? রঙের হাত থেকে নিজেকেই বা বাঁচাবেন কীভাবে
যদি বাইকে প্রচুর পরিমাণে রঙ লেগে যায়, তাহলে একবার ওয়াক্স পলিশ করিয়ে নেওয়াই ভাল।

আজ ছিল হোলিকা দহন। আজকের দিনেই বাঙালি দোল উৎসব পালন করেছেন। তবে অবাঙালি অধ্যুষিত অনেক রাজ্যে আগামিকাল হোলি উৎসব পালন হবে। উদযাপন চলবে বঙ্গেরও অনেক জেলায়। এদিকে আগামিকাল সোমবার। অনেকেরই অফিস ছুটি নেই। কাজের সূত্রে বাইরে বেরোতে হবে। যাঁরা বাইকে চড়ে অফিসে যাবেন, রঙের হাত থেকে নিজেকে এবং বাইক বাঁচানোর কিছু টিপস দেওয়ার চেষ্টা করলাম আমরা।

নিজেকে কীভাবে বাঁচাবেন-

১। অতি অবশ্যই হেলমেট পরুন এবং সামনের কাচ নামিয়ে দিন। তাহলে এপাশ-ওপাশ থেকে উড়ে আসা আবির কিংবা রঙ ভরা বেলুন আপনাকে ছুঁতেও পারবে না। সুরক্ষিত থাকবেন আপনি।

২। চেষ্টা করবেন গাঢ় রঙের পোশাক পরতে। আগামিকালের জন্য কষ্ট করে ওয়াটারপ্রুফ জ্যাকেট বা উইনচিটার পরুন। পায়ে থাকুক ওয়াটারপ্রুফ জুতো। সতর্কতা সব দিক থেকেই নেওয়া ভাল।

৩। কাল হাতে গ্লাভস পরে বাইক চালান। আর যেখানে প্রতিবছর দোল খেলা হয় প্রতিবছর সেইসব এলাকা বা রাস্তাঘাট এড়িয়ে চলুন। হাতে সময় নিয়ে বেরোন। রাস্তাঘাট ভিজে থাকতে পারে। তাই প্রবল গতিতে বাইক না চালানোই ভাল। বিপদের সম্ভাবনা থেকেই যায়।

বাইক বাঁচাবেন কীভাবে-

১। যাঁদের বাইরে বেরোতে হবে তাঁদের বাইকে একটু আধটু রঙ লাগবেই। হোলি মিটে গেলে পরিষ্কার করিয়ে নিতে হবে বাইক।

২। বাড়িতে যদি খোলা জায়গায় বাইক রাখেন, তাহলে কালকের জন্য গ্যারেজে বা ঢাকা জায়গায় বাইক রাখুন।

৩। সম্ভব হলে ওয়াটারপ্রুফ শিট দিয়ে বাইক ঢেকে রাখুন।

৪। যদি বাইকের কোনও অংশে সামান্য মরচেও ধরে থাকে তাহলে সেটা আগেভাগেই পরিষ্কার করে নিন। কারণ সামান্য রঙ ওই জায়গায় পড়লেও সমস্যা হতে পারে।।

৫। যদি বাইকে প্রচুর পরিমাণে রঙ লেগে যায়, তাহলে একবার ওয়াক্স পলিশ করিয়ে নেওয়াই ভাল। এক্ষেত্রে কিছুটা খরচ হতে পারে। আর যদি আপনার বাইকে টেফলন কোটিং না থাকে, তাহলে অতি অবশ্যই ওয়াক্স পলিশ করিয়ে রাখুন। যেকোনও রকম রঙ, দাগছোপ থেকে বাইকের বডিকে উদ্ধার করবে এই ওয়াকশ পলিশ।