iPhone: নদীতে পড়ে গিয়েছিল সাধের আইফোন, 10 মাস পর মালিকের কাছে ফিরল বহাল তবিয়তেই

10 মাস আগে নদীতে পরে গিয়েছিল একটা iPhone। সেই ফোনই তার মালিকের কাছে ফিরল। অবাক করার মতো বিষয়টি হল, ফোনটি দিব্যি কাজ করছে।

iPhone: নদীতে পড়ে গিয়েছিল সাধের আইফোন, 10 মাস পর মালিকের কাছে ফিরল বহাল তবিয়তেই
বাঁ দিকে, ওয়েইন ও তাঁর স্ত্রী। ডান দিকে, 10 মাস পর সেই iPhone-এর পরিস্থিতি।
TV9 Bangla Digital

| Edited By: Sayantan Mukherjee

Jul 01, 2022 | 4:15 AM

ধরুন, নদীর ধারে বেড়াতে গিয়েছেন। পা দুটো আরাম করে জলে রেখেছেন, আর মনটা ফোনের দিকে – খুটখুট করেই চলেছেন। আচমকা কোনও এক কারণে অন্যমনস্ক হয়ে গেলেন। আর ফোনটা পড়ে গেল জলে। এবার 10 মাস পরে আবার গিয়েছেন সেই নদীর ধারেই বেড়াতে। নিজেকে কথাও দিয়েছেন, ফোনটা বের করবেন না। এমন সময়ে 10 মাস আগে পড়ে যাওয়া সেই ফোনটা আপনার কাছেই ফিরে এল। কেমন হয় বলুন তো তাহলে? অবিশ্বাস্য বলে মনে হচ্ছে, তাই না? ব্রিটেনের এক ব্যক্তির সঙ্গে কিন্তু এমনই এক ঘটনা ঘটেছে। দশ মাস আগে একটি নদীতে (River) তাঁর সাধের আইফোনটা (iPhone) পড়ে যায়। ফিরে পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়ে একদিন রাস্তায় বেরিয়ে জানতে পারেন, তাঁর সেই ফোনটি উদ্ধার (Recovered) করা গিয়েছে এবং সেটি সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় আছে।

বিবিসি-র একটি রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে, ব্রিটেনের ওয়েইন ডেভিস নামের এক ব্যক্তির আইফোনটি 2021 সালের অগস্ট মাসে সিন্ডারফোর্ডের, গ্লুসেস্টারশ্যায়ারে ওয়াই নদীতে পড়ে যায়। জীবনে কখনও ফোনটা আর ফিরে পাবেন না, এই আশা বুকে বেঁধেই বাড়ি ফেরেন ওয়েইন। 10 মাস পরে ওই অঞ্চলে, ওই নদীর ধারেই বেড়াতে যান মিগুয়েল প্যাশিও নামের এক ব্যক্তি। ওয়েইনের ফোনটি নজরে আসে মিগুয়েলের। ডেভিসের সেই আইফোনটি তিনি নদী থেকে তোলেন। এই ফোনের মালিক কে, তা জানার জন্য সেটিকে ভাল করে শুকিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন। বিবিসি-র কাছে তিনি বলেছেন, “জলে ভর্তি ছিল ফোনটা। ভেবেছিলাম, এর অবস্থা শোচনীয়।”

শুকিয়ে যাওয়ার পর ফোনটা যে রিস্টার্ট হবে না, সেটা ধরে নিয়েই রিস্টার্ট করেন মিগুয়েল। কিন্তু ব্যাটারি যে লো ছিল। সেই কারণে ফোনটা অন হচ্ছিল না। তাঁর কথায়, “একটা ফোনে অনেক সংবেদনশীল তথ্য থাকে। আমার যদি কোনও ফোন হারিয়ে যায়, আমি সেটিকে অবশ্যই খোঁজার চেষ্ট করব। কারণ, তাতে আমি এবং আমার সন্তানদের অনেক ছবি থাকবে।”

মিগুয়েল ফোনটিকে চার্জে বসান। তারপর যে কাণ্ডটা ঘটে, বিশ্বাস করতে পারেনি তাঁর চোখ। চার্জ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি ফোনটির স্যুইচ অন করেন এবং অবিশ্বাস্যজনক ভাবে সেটি অনও হয়ে যায়। ফোনটা খোলার সঙ্গেই মিগুয়েল একটি স্ক্রিনসেভার দেখেন। 13 অগস্ট এক ব্যক্তি এবং এক মহিলার ছবি ছিল সেখানে। ঠিক সেই দিনই ফোনটা পড়ে গিয়েছিল জলে।

হারিয়ে আইফোনের মালিকের সন্ধানে ফেসবুকে পোস্ট করেন মিগুয়েল। 4000-এরও বেশি বার ছবিটি শেয়ার করা হয়। এদিকে ফোনের মালিক অর্থাৎ ওয়েইন ডেভিস প্রায় ফেসবুক খোলেনই না। তবে তাঁর বন্ধুরা ফেসবুকে পোস্টটির সংস্পর্শে আসেন এবং মিগুয়েলের সঙ্গে যোগাযোগ করার বন্দোবস্তও করে দেন। “আমরা দুজনে একটি ক্যানোতে (নৌকা বিশেষ) চড়ে যাচ্ছিলাম এবং আমার স্ত্রী উঠে দাঁড়াতেই আমরা পড়ে যাই। আমার পিছনের পকেটে ফোনটা ছিল। সেটাও যথারীতি পড়ে যায়। আমি ধরেই নিয়েছিলাম ফোনটা আর ফিরে পাব না,” বিবিসি-র কাছে বলেছেন ওয়েইন। পাশাপাশি এ-ও যোগ করেছেন যে, হারিয়ে যাওয়া ফোন তার মালিকের কাছে ফেরাতে মিগুয়েলের প্রচেষ্টা ছিল প্রশংসনীয়।

এই খবরটিও পড়ুন

এই ঘটনায় সবথেকে নজরকাড়া বিষয়টি হল, 10 মাস নদীতে থাকার পরেও বহাল তবিয়তে ছিল একটা ফোন। আর তার কারণ হল, হালফিলের প্রায় সব আইফোনই IP68 রেটেড। এর অর্থ হল, একটা ফোন জলের 1.5 মিটার পর্যন্ত গভীরতায় প্রায় 30 মিনিট সচল থাকে। কিন্তু ওয়েইনের এই ঘটনা যেন মিরাকলের থেকেও কয়েক ধাপ এগিয়ে ছিল।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla