বিশ্বজুড়ে ১০ মিলিয়ন ডাউনলোড, ক্রমশ জনপ্রিয়তা বাড়ছে ক্লাবহাউস অ্যাপের

গতবছর অর্থাৎ ২০২০ সালের মার্চ মাসে এই ক্লাবহাউস অ্যাপ লঞ্চ হয়েছিল।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 20:21 PM, 22 Feb 2021
বিশ্বজুড়ে ১০ মিলিয়ন ডাউনলোড, ক্রমশ জনপ্রিয়তা বাড়ছে ক্লাবহাউস অ্যাপের
আমেরিকার পাশাপাশি জাপান এবং রাশিয়াতেও জনপ্রিয়তা বাড়ছে এই অ্যাপের।

জনপ্রিয়তা ক্রমশ বাড়ছে ক্লাবহাউস অ্যাপের। সেনসর টাওয়ার সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই বিশ্বজুড়ে ১০ মিলিয়ন লোক এই অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন। কেবলমাত্র আইওএস ইউজাররাই এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। তবে নিজে নিজে অ্যাপ স্টোর থেকে ক্লাবহাউস অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন না কোনও ব্যবহারকারী। ‘ইনভাইট’ পেলে তবেই কোনও ইউজার এই অ্যাপে সাইন-ইন করতে পারবেন। ইতিমধ্যেই যে ইউজাররা ক্লাবহাউস অ্যাপ ব্যবহার করছেন, তাঁরাই কেবলমাত্র এই ‘ইনভাইট’ পাঠাতে পারবেন অন্য ইউজারকে। তবে ‘ইনভাইট’ পাঠানোর ক্ষেত্রেও রয়েছে বিধিনিষেধ। ক্লাবহাউসে যুক্ত একজন সদস্য মাত্র দু’জনকে ‘ইনভাইট’ পাঠাতে পারবেন।

ইতিমধ্যেই টেসলা সংস্থার কর্ণধার ইলন মাস্ক এবং ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গও এই ক্লাবহাউস অ্যাপ নিয়ে আলোচনা শুরু করেছেন। আইওএস এক্সক্লুসিভ ‘ইনভাইট’ ভিত্তিক এই অ্যাপের মাধ্যমে মূলত অডিয়ো আলোচনায় যুক্ত হতে পারবেন ইউজাররা। আদতে ক্লাবহাউস একটি অডিয়ো চ্যাটিং সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং অ্যাপ। এই অ্যাপ অনেকটা কনফারেন্স কলের মতো। যেখানে একসঙ্গে অনেকে একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে আলোচনা করার জন্য যুক্ত হন। সেখানে কিছু মানুষ কথা বলেন এবং বাকিরা শোনেন। যে যে বিষয়ে ইউজাররা কথা বলতে পারবেন তা নির্দিষ্ট ভাবে ক্লাবহাউস অ্যাপেই চিহ্নিত করা রয়েছে। কারও থেকে ‘ইনভাইট’ পাওয়ার পর একজন ইউজার ক্লাবহাউস অ্যাপে সাইন-ইন করতে পারবেন এবং পছন্দের আলোচনার বিষয় বেছে নিতে পারবেন। আঞ্চলিক, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক, যেকোনও স্তরের আলোচনাতেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন একজন ইউজার।

নেটাগরিকদের মধ্যে ক্রমশ জনপ্রিয় হচ্ছে এই নতুন অ্যাপ। একই সময়ে একটি নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর এই অ্যাপের মাধ্যমে আলোচনা করা সম্ভব। টেক স্যাভি জেনারেশন ওয়াইয়ের কথায়, সোশ্যাল নেটওয়ার্কিংয়ের ‘নেক্সট লেভেল’ এই ক্লাবহাউস অ্যাপ। সেনসর টাওয়ারের অনুমান, এক বছরের কম সময়ে ১১ মিলিয়ন ডাউনলোডের মাইলস্টোন ছুঁয়ে ফেলবে এই অ্যাপ। গতবছর অর্থাৎ ২০২০ সালের মার্চ মাসে এই ক্লাবহাউস অ্যাপ লঞ্চ হয়েছিল। আমেরিকার পাশাপাশি জাপান এবং রাশিয়াতেও জনপ্রিয়তা বাড়ছে এই অ্যাপের।