World’s Highest Weather Station: আমেরিকা, ব্রিটেনকে পিছনে ফেলে মাউন্ট এভারেস্টে বিশ্বের সর্বোচ্চ আবহাওয়া দফতর খুলল চিন

China Latest News: চিনের এই নতুন আবহাওয়া দফতরটি ব্রিটিশ এবং মার্কিন বিজ্ঞানী দ্বারা স্থাপিত আর একটি আবহাওয়া দফতরের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। ব্রিটিশ এবং মার্কিন বিজ্ঞানীরা মাউন্ট এভারেস্টের দক্ষিণ প্রান্তে ৮,৪৩০ মিটার আর একটি আবহাওয়া দফতর স্থাপন করেছিলেন। চিনা বিজ্ঞানীরা আবহাওয়া দফতর খুললেন ৮,৮৩০ মিটার উঁচুতে গিয়ে।

World's Highest Weather Station: আমেরিকা, ব্রিটেনকে পিছনে ফেলে মাউন্ট এভারেস্টে বিশ্বের সর্বোচ্চ আবহাওয়া দফতর খুলল চিন
বড় সাফল্য চিনের।
TV9 Bangla Digital

| Edited By: Sayantan Mukherjee

May 05, 2022 | 5:28 PM

মাউন্ট এভারেস্টে (Mount Everest) বিশ্বের উচ্চতম আবহওয়া দফতরটি (World’s Highest Weather Station) খুলে ফেলল চিন (China)। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৮,৮৩০ মিটার উঁচুতে অবস্থিত চিনের সেই আবহাওয়া দফতর। চিনের একটি অভিযানকারী দল, যার নেতৃত্বে ছিলেন একাধিক বিজ্ঞানী – তাঁরাই এই উচ্চতম আবহওয়া দফতরটি স্থাপন করেছে। দলটি সফল ভাবে স্বয়ংক্রিয় আবহাওয়া স্টেশনটির পরীক্ষা করেছে এবং এত উচ্চতায় স্টেশনটি কাজ করছে কি না, তা দেখার জন্য একটি ট্রান্সমিশনও পরিচালনা করেছে। এই আবহাওয়া দফতরের পাওয়ারের দিকটি নিশ্চিত করছে সোলার প্যানেল। বিগত দুই বছর ধরে কঠিন আবহওয়ার পরিস্থিতিতে এই দফতরটি ডিজ়াইন করা হয়েছে। সংবাদমাধ্যম সিজিটিএন-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্বের উচ্চতম আবহওয়া দফতরটিতে ডেটা ট্রান্সমিশনের জন্য রয়েছে স্যাটেলাইট কমিউনিকেশন সিস্টেম। এদিকে আবার আর এক সংবাদমাধ্যম জ়িনহুয়া-র রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে, রেডিও স্টেশনটি এমন ভাবেই কোড করা হয়েছে, যেখান থেকে প্রতি ১২ মিনিট অন্ত ট্রান্সমিট করা সম্ভব হবে।

চিনের এই নতুন আবহাওয়া দফতরটি ব্রিটিশ এবং মার্কিন বিজ্ঞানী দ্বারা স্থাপিত আর একটি আবহাওয়া দফতরের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। ব্রিটিশ এবং মার্কিন বিজ্ঞানীরা মাউন্ট এভারেস্টের দক্ষিণ প্রান্তে ৮,৪৩০ মিটার আর একটি আবহাওয়া দফতর স্থাপন করেছিলেন। চিনা বিজ্ঞানীরা আবহাওয়া দফতর খুললেন ৮,৮৩০ মিটার উঁচুতে গিয়ে। প্রসঙ্গত, চিনের আরও তিনটি মেটেরোজিক্যাল স্টেশন রয়েছে মাউন্ট এভারেস্টের বিভিন্ন প্রান্তে, যেগুলি যথাক্রমে ৭,০২৮ মিটার, ৭,৭৯০ মিটার এবং ৮,৩০০ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত।

সংবাদমাধ্যম সিজিটিএন-এর একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, বেজিংয়ের কাছে এখন মোট ৭টি স্টেশনও রয়েছে, যেগুলি থেকে ৫,২০০ মিটার – ৮,৩০০ মিটারের মধ্যে অপারেট করা যেতে পারে। রিপোর্টে পরিষ্কার ভাবে উল্লেখ করা হয়েছে, স্টেশন স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামগুলির ওজন প্রায় ৫০ কিলোগ্রাম এবং এটিকে শীর্ষে নিয়ে যাওয়ার জন্য ভেঙেও দেওয়া হয়েছিল। আবহাওয়া দফতরটি আশপাশের এলাকা থেকে তথ্য সংগ্রহ করবে এবং বিশ্বের ‘তৃতীয় মেরু’র আবহাওয়ার রেকর্ডের শূন্যস্থানও পূরণ করবে।

এই অভিযানটি ‘আর্থ সামিট মিশন 2022’-এর অধীনে পরিচালিত হয়েছিল। মাউন্ট এভারেস্টের শিখরে পৌঁছানোর পরে, বৈজ্ঞানিক দলটি পর্যবেক্ষণ এবং একটি নমুনা মিশনও পরিচালনা করে। অভিযানটি শিখরের বরফ এবং তুষারের পুরুত্ব সনাক্ত করার জন্য গবেষণাও পরিচালনা করছে। এই গবেষণা দলটি ৫,৮০০ মিটার এবং ৮,৩০০ মিটার উচ্চতায় তুষার বরফ এবং পাথরেরও নমুনা সংগ্রহ করেছে।

এই খবরটিও পড়ুন

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, এই অভিযানের লক্ষ্য কী এবং কেনই বা এত উঁচুতে একটা আবহাওয়া দফতর খোলা হয়েছে? অভিযানটির মূল লক্ষ্য হল, জলবায়ু পরিবর্তনের ধরন খুঁজে বের করা এবং মাউন্ট এভারেস্টের এই বিরাট উচ্চতায় গ্রীন হাউস গ্যাসের ঘনত্বের বৈচিত্রের অধ্যয়ন করা। চাইনিজ় অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্সেস, ইনস্টিটিউট অফ তিবেতান প্ল্যাটু রিসার্চের (আইটিপি) মুখ্য গবেষক উ জিয়াংগুয়াং বলছেন, “পৃথিবীর সর্বাধিক উচ্চতায় বরফের ভিতরে কী থাকে, তা আমরা জানতে চাই।” ২০ এপ্রিল অভিযানটি শুরু করে চিনের মোট ২৭০ সদস্য। ১০টি দলে বিভক্ত হয়ে এই অভিযান চালান তাঁরা।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla