করোনা কেয়ার সেন্টারে মালাবদল! অন্যরকম বিয়ের সাক্ষী মহারাষ্ট্র

কোভিড কেয়ার সেন্টারে ফেস মাস্ক, স্যানিটাইজার, পিপিই কিট, প্রয়োজনীয় ওষুধ দান করেছেন দুই দম্পতি। বিয়েতে খরচ করার জন্য ৩৭ হাজার টাকা জমিয়েছিলেন, তাও রোগীদের চিকিৎসা খআতে দান করেছেন তাঁরা।

  • Publish Date - 7:52 pm, Wed, 9 June 21 Edited By: স্বরলিপি ভট্টাচার্য
করোনা কেয়ার সেন্টারে মালাবদল! অন্যরকম বিয়ের সাক্ষী মহারাষ্ট্র
-প্রতীকী ছবি।

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই দুটি অন্যরকম বিয়ের সাক্ষী থাকল মহারাষ্ট্র। মহারাষ্ট্রের আহমেদনগরের পারনারে কোভিড কেয়ার সেন্টারে বিয়ে করলেন দুই দম্পতি। শুধু তাই নয়, বিয়ে উপলক্ষ্যে খরচ করবেন বলে যে অর্থ সঞ্চয় করেছিলেন, তা দান করলেন কোভিড কেয়ার সেন্টারে।

অতীতে বিয়ের ভেনু হিসেবে কেউ বিলাসবহুল জাহাজ বেছে নিয়েছেন। কেউ বা আকাশপথে উড়তে উড়তে বিয়ে করবেন বলে বেছে নিয়েছেন বিমান। কিন্তু এই দুঃসময়ে বিয়ের ভেনু হিসেবে করোনা কেয়ার সেন্টার বেছে নেওয়া নিঃসন্দেহে অন্যরকম। সে কারণেই জনৈক অঙ্কিত ব্যাবাহারে ও আরতি শিন্ড এবং জনার্দন কদম ও রাজশ্রী কালের এই বিয়ের ঘটনা আপাতত সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

কোভিড কেয়ার সেন্টারে ফেস মাস্ক, স্যানিটাইজার, পিপিই কিট, প্রয়োজনীয় ওষুধ দান করেছেন দুই দম্পতি। বিয়েতে খরচ করার জন্য ৩৭ হাজার টাকা জমিয়েছিলেন, তাও রোগীদের চিকিৎসা খআতে দান করেছেন তাঁরা।

এ প্রসঙ্গে অঙ্কিত সাংবাদিকদের বলেন, “প্যানডেমিকের কারণে গোটা বিশ্ব ভয়ঙ্কর সমস্যার সম্মুখীন। বিয়ের মতো সামাজিক অনুষ্ঠানে কত জনকে নিমন্ত্রণ করা যাবে, তার উপর বাধা নিষেধ রয়েছে। আমাদের গ্রামের অনেকেই করোনা কেয়ার সেন্টারে চিকিৎসাধীন। সে কারণেই আমাদের মনে হল, এখানে বিয়ে করলে ওদের মানসিক ভাবে উৎসাহ দিতে পারব।”

সর্বস্তরে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাতে গোনা আত্মীয়ের উপস্থিতিতে বিয়ে করেছেন এই দম্পতি যুগল। উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় এমএলএ নীলেশ লঙ্কে। এভাবে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য দম্পতিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নীলেশ। তাঁর কথায়, “ওঁরা শিক্ষিত। পরিবারের সম্মতিতে এখানে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এতে বহু রোগীর মনের ভয় কেটে যাবে।”