Bankura TMC Clash: জুয়াখেলাকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের ‘কোন্দল’, গ্রেফতার ২, আটক ৩

Bankura: হামলা মারধরের ঘটনার পর থেকেই  থমথমে গোটা এলাকা। শনিবার সকালে পুলিশি ধরপাকড় চলার পর আরও থমথমে হয়ে যায় গ্রাম। ইতিমধ্যেই আহতদের বয়ান সংগ্রহ করেছে পুলিশ।

Bankura TMC Clash: জুয়াখেলাকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের 'কোন্দল', গ্রেফতার ২, আটক ৩
বাঁকুড়ায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব (নিজস্ব চিত্র)

বাঁকুড়া: মকর সংক্রান্তির সকালে জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ শাসক দলের (TMC Clash) মধ্যে। সেই ঘটনায় এ বার ২ জনকে গ্রেফতার ও ৩ জনকে আটক করেছে জয়পুর থানার পুলিশ। ধৃতেরা সকলেই তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী বলে জানা গিয়েছে। শনিবার, ধৃতদের বিষ্ণুপুর আদালতে তোলা হবে বলে জানা গিয়েছে। ধৃতদের বিরুদ্ধে, হামলা,মারধর ও বেআইনীভাবে জমায়েতের ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, জয়পুরের যাদবনগরের জঙ্গলে জুয়া খেলাকে (Gambling) কেন্দ্র করে দুপক্ষের বচসার সূত্রপাত হয় শুক্রবার। অভিযোগ, স্থানীয় তৃনমূল নেতা সুকুর শেখের ভাই কবিরালি শেখের ওপর তৃনমূলের অপর গোষ্ঠী খিলাফত খাঁ-এর লোকজন হামলা চালায়। প্রতিরোধ গড়ে তুললে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। বাঁশ, লাঠি, লোহার রড নিয়ে চলে হামলা। স্থানীয়রাই প্রাথমিকভাবে বিষয়টি মিটমাট করার চেষ্টা করেন। কিন্তু পরিস্থিতি তাঁরা সামলাতে পারেননি।

খবর দেওয়া হয় পুলিশে। আহতদের উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় জয়পুর ব্লক হাসপাতালে। দু’পক্ষের মধ্যে কমবেশি ৬ জন আহত হয়। তবে, গোষ্ঠী সংঘর্ষের অভিযোগ অস্বীকার করেছে শাসক দল। ঘাসফুল শিবিরের দাবি, এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই।

যদিও প্রত্যক্ষদর্শী গ্রামবাসীদের কথায়, “আমরা তো বাজার থেকে বাড়ি যাচ্ছিলাম। দেখলাম ঠ্যাঙা, লাঠি নিয়ে, হাঁসুয়া নিয়ে মারপিট করছি। আমরা আসছিলাম, আমাদের ওপরও হামলা করে। পুলিশ দাঁড়িয়ে দেখছিল সব। পুলিশের সামনেই মারধর হয়েছে।”

স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা বলেছেন, “ঘটনা একটা ঘটেছে, আমি শুনেছি। তবে এর সঙ্গে দলের কোনও যোগ নেই। যত দূর শুনেছি জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে ঝামেলা হয়েছে। এর সঙ্গে দলের কেউ জড়িত থাকলে, উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

তবে হামলা মারধরের ঘটনার পর থেকেই  থমথমে গোটা এলাকা। শনিবার সকালে পুলিশি ধরপাকড় চলার পর আরও থমথমে হয়ে যায় গ্রাম। ইতিমধ্যেই আহতদের বয়ান সংগ্রহ করেছে পুলিশ। তাদেরই বয়ানের ভিত্তিতে শনিবার ২ জনকে গ্রেফতার ও ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

তৃণমূল জেলা চেয়ারম্যান শ্যামল সাঁতরার দাবি, জুয়া খেলার বিষয় নয়। ঘটনাটি কী ঘটেছে, তা স্পষ্ট ভাবে জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। দলের কেউ যুক্ত থাকলে, তাঁদের বিরুদ্ধে দল উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে। তাঁর কথায়, “জুয়া খেলার কোনও ঘটনাই নয়। এটুকু আমি বলতে পারি। কারণ জগন্নাথপুর অঞ্চলে মেলা চলছে। সেখানে উত্তরপাড়া অঞ্চলের কোনও সম্পর্ক নেই। কী ঘটেছে, সেটা বিস্তারিত জানা দরকার। যে পক্ষই দায়ী হোক না কেন, দল ব্যবস্থা নেবে।”

আরও পড়ুন: TMC Clash: ‘প্রকাশ্যে মুখ খুলে বিতর্ক তৈরি করা যাবে না’, সকল তৃণমূল সাংসদদের সতর্কবার্তা

আরও পড়ুন: Suvendu Adhikari on COVID19: ‘ওরা খারাপ করলে, নিয়ম ভাঙলে আমরাও তাই করব না’

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla