Bankura: ‘সরকারি টাকা জলে যাচ্ছে, কাজ কিছুই হচ্ছে না’ বৃষ্টিতে ফের সেতু জলের তলায় যাওয়ার ক্ষোভ উগরে দিলেন এলাকাবাসী

Rainfall: তিন থেকে চার মাস সেতু ঠিক থাকছে তারপর আবার আগের মত।

Bankura: 'সরকারি টাকা জলে যাচ্ছে, কাজ কিছুই হচ্ছে না' বৃষ্টিতে ফের সেতু জলের তলায় যাওয়ার ক্ষোভ উগরে দিলেন এলাকাবাসী
জলের তলায় সেতু

বাঁকুড়া: উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং মধ্য বঙ্গোপসাগরের উপরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের জেরে রবি ও সোমবার দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায় ভারী বৃষ্টিপাত হবে। পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এদিকে, রবিবার সন্ধে থেকে টানা নিম্নচাপের বৃষ্টিতে ভাসল বাঁকুড়া। সঙ্গে দারকেশ্বর নদের উপর থাকা ভাদুল সেতু।

বাঁকুড়ার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেতু হল ভাদুল। সুরপানগর, বীরবাঁধ, মালাতোড়, বালিয়াড়া, সানতোড়, নতুনগ্রাম সহ বিভিন্ন গ্রামকে। দৈনন্দিন কাজে মানুষকে এই সেতু পারাপার করতে হয়। কিন্তু নিম্নচাপের জেরে সেতু জলের তলায় চলে যাওয়ায় এখন বাধ্য হয়ে প্রায় দশ কিলোমিটার ঘুরে মানুষকে বাঁকুড়া শহরে যাতায়াত করতে হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, সেতু অবস্থা প্রচণ্ড খারাপ । বারবার তৈরি করা হলেও তা অল্প বৃষ্টির জলের তোড়ে ভেসে যায়। সরকারি সব টাকা জলে যাচ্ছে। তিন থেকে চার মাস সেতু ঠিক থাকছে তারপর আবার আগের মত। ৪-৫ বেশি গ্রামের মানুষকে অনেকটা ঘুরপথে আসতে হচ্ছে। রেললাইন পারাপারের সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। অগত্যা ঘুরপথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করতে হচ্ছে। শুধু দাবি একটাই সেতু ভালোভাবে নির্মাণ হোক।

উল্লেখ্য, রাতভর অবিরাম বৃষ্টি (Weather Update) হয়েছে কলকাতা-সহ উত্তর ২৪ পরগনার বিভিন্ন জায়গায়। বাংলা এবং ওড়িশার উত্তর অংশে নিম্নচাপের জেরে মঙ্গলবারও ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা-সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায়।

গত কয়েকদিন ধরে নাগাড়ে বৃষ্টিপাত চলছে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায়। কলকাতা-সহ একাধিক জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিও হচ্ছে। প্রশ্ন একটাই কবে এই বিপদ থেকে মুক্তি মিলতে পারে? হাওয়া অফিস বলছে, লক্ষ্মীপুজো অর্থাৎ বুধবার অবধি এমনটাই থাকবে আবহাওয়ার গতিপ্রকৃতি। কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া, ঝাড়গ্রাম ও দুই মেদিনীপুরে ভারী বৃষ্টি হতে পারে মঙ্গলবার। এই জেলাগুলিতে হলুদ সতর্কতা জারি রয়েছে।

অন্যদিকে মঙ্গলবার কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারের বেশ কিছু জায়গায়। কমলা সতর্কতার অর্থ ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস। অন্যদিকে হলুদ সতর্কতা রয়েছে মালদহ, উত্তর দিনাজপুর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে। হলুদ সতর্কতা মানে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা।

হাওয়া অফিস মনে করছে, বুধবারের পর থেকে নিম্নচাপের প্রভাব কমতে শুরু করবে। ফলে টানা বৃষ্টি থেকে মুক্তি মিলতে পারে। তবে কোনও ভাবেই পুরোপুরি দুর্যোগ কেটে রোদ ঝলমলে আকাশ দেখা যাবে, এমন পূর্বাভাস এখনও হাওয়া অফিসের তরফে দেওয়া হয়নি। বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি চলবেই।

একের পর এক নিম্নচাপে বিধ্বস্ত বাংলা। বাংলার উপর তৈরি হওয়া নিম্নচাপ এই মুহূর্তে ওড়িশা লাগোয়া বাংলার উপর রয়েছে। ফলে দখিনা পূবালি বাতাস প্রবল গতিতে এ রাজ্যের ভিতর ঢুকে পড়েছে। অর্থাৎ ঝাঁপিয়ে বৃষ্টির জন্য যা যা দরকার, সবরকম ইন্ধন নিয়ে এই মুহূর্তে বাংলা তৈরি। উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা, লাগোয়া রাজ্য ওড়িশা এবং ঝাড়খণ্ডেও ভারী বৃষ্টি হবে।

আরও পড়ুন: Petrol Price Today: দিল্লিকে হারিয়ে পেট্রোলের দামে এগিয়ে কলকাতা, জানুন কত বাড়ল দাম

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla