বিকেলের পর বাড়ি ফেরেননি প্রৌঢ়, রাতের বেলা মাঠের মধ্যে পাওয়া গেল মৃতদেহ!

Thunderstorm: মৃতের পরিবার ও স্থানীয়দের তরফে জানা গিয়েছে, বুধবার বিকেলে মাঠে চাষের কাজ করতে যান বছর একান্নর প্রৌঢ়। সন্ধ্য়া নামলেও বাড়ি ফেরেননি তিনি।

বিকেলের পর বাড়ি ফেরেননি প্রৌঢ়, রাতের বেলা মাঠের মধ্যে পাওয়া গেল মৃতদেহ!
বজ্রপাতে মৃত ১, নিজস্ব চিত্র

বীরভূম: ফের বজ্রপাতে মৃত্য়ু। বুধবারই রাজ্যের দুই জেলা হাওড়া ও পূর্ব মেদিনীপুরে বাজ পড়ে মৃত্যু হয়েছে দুই ব্যক্তির। ওইদিনিই বাজ (Thunderstorm) পড়ে দুবরাজপুরে মৃত্য়ু হয় আরও এক প্রৌঢ়ের। জানা গিয়েছে মৃতের নাম নিমাই দাস। দুবরাজপুরের বালিজুরি গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন নিমাই।

মৃতের পরিবার ও স্থানীয়দের তরফে জানা গিয়েছে, বুধবার বিকেলে মাঠে চাষের কাজ করতে যান বছর একান্নর প্রৌঢ়। সন্ধ্য়া নামলেও বাড়ি ফেরেননি তিনি। নানা জায়গায় খোঁজাখুঁজিও করেও কোনও হদিশ পাওয়া যায়নি। অবশেষে রাত আটটার কিছু পড়ে মাঠের মধ্যেই বৃদ্ধের অচৈতন্য দেহ আবিষ্কার করেন স্থানীয়রা। তাঁর গায়ে বজ্রপাতের চিহ্ন ছিল জানিয়েছেন স্থানীয়রা। সঙ্গে সঙ্গে ওই প্রৌঢ়কে দুবরাজপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। হাসপাতাল সূত্রে খবর, বজ্রপাতের (Thunderstorm) জেরেই মৃত্য়ু হয়েছে ওই ব্যক্তির। মৃত ব্যক্তির দেহ সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

বুধবার বজ্রবিদ্যুর-সহ বৃষ্টিপাতের জেরে দুই জেলায় মৃত্যু হয়েছে দুই ব্যক্তির। জানা গিয়েছে, ওই দুই ব্যক্তিই খোলা জায়গায় নয়, বরং বদ্ধ ঘরে ছিলেন। এই নিয়ে রাজ্যে বজ্রপাতে মৃত্য়ুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩৬। সংশ্লিষ্ট মহলের আশঙ্কা, এভাবে চলতে থাকলে বজ্রপাতে মৃত্য়ুর সংখ্যা পঞ্চাশও ছাড়িয়ে যেতে পারে। বজ্রবিপর্যয়ে এত মৃত্য়ু বোধহয় এর আগে এত প্রবল ভাবে দেখেনি বাংলা। তাই মৃত্য়ুহার ক্রমবর্ধমান হতেই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। জেলায় জেলায় চলছে সতর্কীকরণ বার্তাও।

আরও পড়ুন: ‘বাদুরঝোলা’ ভিড় ট্রেনে, টাল সামলাতে না পেরে রেললাইনে পড়ে গেলেন যাত্রী!

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla