মমতার ‘ভাতিজা’ চ্যালেঞ্জের পর অভিষেককে ‘তৃণমূলের পাপ্পু’ বললেন বিজেপি সাংসদ

পৈলানে কর্মিসভা থেকে শাহকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে মমতা বলেন, “আগে ভাতিজার সঙ্গে লড়”

  • Updated On - 8:43 pm, Thu, 18 February 21 Edited By: সোমনাথ মিত্র
মমতার ‘ভাতিজা’ চ্যালেঞ্জের পর অভিষেককে ‘তৃণমূলের পাপ্পু’ বললেন বিজেপি সাংসদ

শিলিগুড়ি: বাংলার মাটিতে বৃহস্পতিবার পরিবর্তন যাত্রায় সামিল হয়েছিলেন অমিত শাহ। আর সে দিনই অমিত শাহকে অভিষেকের সঙ্গে লড়াই করার চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেই অভিষেককেই পাপ্পু বলে সম্বোধন করলেন বিজেপি সাংসদ।

এ দিন, পৈলানে কর্মিসভা থেকে শাহকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে মমতা বলেন, “খালি দিদি আর ভাতিজা নিয়ে বলে, আরে আমি বলছি, আগে ভাতিজার সঙ্গে লড়, পরে দিদির সঙ্গে লড়বি। একুশের নির্বাচনে আগে ভাতিজার সঙ্গে লড়ে দেখা, আমি চ্যালেঞ্জ ছুড়ছি।”

এ দিকে শিলিগুড়িতে রাস্তার উদ্বোধন করতে গিয়ে বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্তা বলেন, “দিল্লিতে কংগ্রেসের পাপ্পু আছেন, আর বাংলায় তৃণমূলের পাপ্পু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।” পাশাপাশি এ ভাবে অমিত শাহকে চ্যালেঞ্জ করার অধিকার মুখ্যমন্ত্রীর নেই বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাপ্পু সম্বোধন অবশ্য নতুন নয়। গত বছর কৈলাস বিজয়বর্গী ছোট পাপ্পু বলে উল্লেখ করেছিলেন। ছোট পাপ্পু চার লক্ষ টাকার সোনার চশমা পরেন, ১০-১৫ হাজার টাকার জুতো পরেন বলেও কটাক্ষ করেছিলেন। দিল্লিতে রাহুল গান্ধীকে পাপ্পু বলে যে ভাবমূর্তি তৈরি করা হয়েছে, রাজ্যেও অভিষেককে সে ভাবেই প্রতিপন্ন করা হচ্ছে বলে মত রাজনৈতিক মহলের। এ দিনই অভিষেককে নিয়ে পৈলানের সভা থেকে একগুচ্ছ সাফাই দেন মমতা। তিনি বলেন, “উপ-মুখ্যমন্ত্রীও করিনি, দলের সভাপতিও করিনি। সাংসদ হতেও বারণ করেছিলাম। রাজ্যসভায় পাঠানো তো হাতের মুঠোয় ছিল। কিন্তু অভিষেক নিজে মানুষের দ্বারা নির্বাচিত হয়ে কাজ করতে চেয়েছিল।”

অন্য দিকে, রাজ্যের মন্ত্রী জাকির হোসেনের উপর হামলায় জাতীয় তদন্তকারী সংস্থাকে দিয়ে কেন তদন্ত করানো হচ্ছে না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাংসদ। মন্ত্রীর উপর হামলার নিন্দা করে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন দিলীপ ঘোষও।

রাজু বিস্তা মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে আরও বলেন, “উনি ৩০ শতাংশ ভোট নিয়ে রাজনীতি করতে ও ভোটে জিততে চান। হিন্দু ধর্ম নিয়ে আমাদের কান ধরে শেখাতে চাইছেন তিনি। কিন্তু আমরা সকলের বিকাশ চাইছি, সকলের উন্নয়ন চাইছি। নির্দিষ্ট কোন ধর্ম নিয়ে মন্তব্য করতে চাই না।”

আরও পড়ুন: অমিতাভ-অক্ষয়ের মুখে কুলুপ জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধিতে, শুটিং বন্ধের হুমকি কংগ্রেস নেতার

গ্যাসের দাম বৃদ্ধি, পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধি ইত্যাদি নিয়ে জনসভায় কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। আমি চ্যালেঞ্জ করছি মুখ্যমন্ত্রী এই প্রতিটি ক্ষেত্রে রাজ্যের তরফে সে সব শেষ নিয়ে থাকেন সেস তুলে নিন। তাহলে জনগণ কিছুটা ছাড় পাবে।