‘অনিলবাবুর মেয়ে মানেই অনিলবাবু হবেন তা তো নয়,’ অজন্তা ‘বিতর্কে’ মন্তব্য অশোকের

Asok Bhattacharya: "আমাদের লেখা দিতে হলে দলের অনুমতি নিতে হয়। আমি খুব বেশি মন্তব্য করতে চাই না। তিনি খুব ভালো লেখেন, কিনা তাও জানা নেই। ইদানীং ওঁর নাম দেখছি। ওঁর লেখা কখনও পড়িওনি।''

'অনিলবাবুর মেয়ে মানেই অনিলবাবু হবেন তা তো নয়,' অজন্তা 'বিতর্কে' মন্তব্য অশোকের
অলংকরণ: অভিজিৎ বিশ্বাস

শিলিগুড়ি: শনিবার তৃণমূলের (TMC) মুখপত্র ‘জাগো বাংলা’য় তৃতীয় কিস্তি লিখলেন অনিল কন্যা অজন্তা বিশ্বাস। সেখানে লেখার উপজীব্য রাজনীতিতে বাঙালি নারীর প্রভাব ও অবদান। স্বাধীনতার আগে ও পরে রাজ্য রাজনীতিতে নারীর অবদান সহ অনিল বিশ্বাসের মেয়ের লেখায় উঠে এসেছে সমসাময়িক ঘটনাপ্রবাহের ভিত্তিতে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির মূল্যায়ন।

এই পর্বে তিনি লিখেছেন সক্রিয় রাজনীতিতে মমতার উত্থান বাংলার রাজনৈতিক পরিসরে মহিলাদের সামগ্রিক অবস্থানে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছে। কন্যাশ্রী, রুপশ্রী প্রভৃতি প্রকল্পের মাধ্যমে মমতা বাংলার মেয়েদের আরও কাছে এসেছেন। এ নিয়ে কী বলছেন বামেরা?

প্রাক্তন মন্ত্রী তথা শিলিগুড়ির প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক অশোক ভট্টাচার্যের কথায়, “অজন্তা আমাদের পার্টি মেম্বার কিনা তাও জানি না। কথা হচ্ছে, কমিউনিষ্ট পার্টিতে শৃঙ্খলা রয়েছে। সেটা তিনি দলে থাকলে তাঁকেও মানতে হবে।” উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্সিতে পড়াকালীন সিপিএমের ছাত্র সংগঠন এসএফআইয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন অজন্তা বিশ্বাস। কলকাতা জেলা থেকে এখনও সিপিএমের পার্টি সদস্য তিনি।

এদিকে অশোকবাবু যোগ করেন, “স্তালিনের মেয়েও অনেক কিছু লিখেছেন। অনিলবাবুর মেয়ে মানেই তিনিও অনিলবাবু হয়েছেন তা নয়। তিনি এসএফআই করতেন এটুকুই। পরে চাকরি পেয়ে অধ্যাপিকা হয়েছেন।”

রবীন্দ্রভারতীর ইতিহাসের অধ্যাপক বাংলার রাজনীতিতে নারীর প্রভাব নিয়ে নিবন্ধ লিখছেন তাতে আপাতদৃষ্টিতে আপত্তির কিছু নেই। কিন্তু নিবন্ধকার যেহেতু সিপিএম সদস্য অজন্তা বিশ্বাস এবং লেখাটি তৃণমূলের মুখপত্রে প্রকাশ হয়েছে, তাই ঝড় উঠেছে সিপিএমের অন্দরে।

এ নিয়ে অশোকবাবুর মন্তব্য, “আমাদের লেখা দিতে হলে দলের অনুমতি নিতে হয়। আমি খুব বেশি মন্তব্য করতে চাই না। তিনি খুব ভালো লেখেন, কিনা তাও জানা নেই। ইদানীং ওঁর নাম দেখছি। ওঁর লেখা কখনও পড়িওনি।” প্রবীণ সিপিএম নেতা আরও যোগ করেন, “কমিউনিটি পার্টির নীতি কেউ না মানলে যেভাবে এক্স, ওয়াই, জেডকে দেখা হয় সেভাবেই দেখবে।”

উল্লেখ্য, এর আগে অজন্তা বিতর্কে মন্তব্য করেছেন বাম নেতা সুজন চক্রবর্তী। শিলিগুড়ি থেকেই তিনি কটাক্ষ করে বলেছিলেন, জাগো বাংলা জেগে উঠেছে। এবার এ নিয়ে মন্তব্য করলেন অশোক ভট্টাচার্য। আরও পড়ুন: ‘ভ্যাকসিনেশনের কাজে রয়েছি, ঝামেলা করিস না’, আক্রান্ত তৃণমূল যুব সভাপতি!

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla