‘প্রেমিককে নিয়ে ফুর্তি করতে গিয়ে আমার ছেলেটাকে বিষ খাওয়াল’, পুত্রবধূকে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে ‘মারধর’!

Crime: মৃত শুভদীপের মা মমতা মিস্ত্রীর অভিযোগ, তিন বছর আগে শুভদীপের সঙ্গে গোয়ালটুলির প্রিয়াঙ্কার বিয়ে হয়। কিন্তু সেই বিয়ের কথা জানতেন না শুভদীপের পরিবার।

'প্রেমিককে নিয়ে ফুর্তি করতে গিয়ে আমার ছেলেটাকে বিষ খাওয়াল', পুত্রবধূকে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে 'মারধর'!
সেই বধূ, নিজস্ব চিত্র

হুগলি: বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের জেরে স্বামীকে বিষ খাইয়ে খুন (Murder) করার অভিযোগ উঠল স্ত্রীর বিরুদ্ধে। স্বামীর মৃতদেহ নিয়ে গ্রামে পৌঁছতেই অভিযুক্ত মহিলাকে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে ‘মারধর’ গ্রামবাসীদের। ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার রাতে তোলপাড় চুঁচুড়ার কাপাসডাঙ্গা। জানা গিয়েছে মৃত যুবকের নাম শুভদীপ মিস্ত্রী।

মৃত শুভদীপের মা মমতা মিস্ত্রীর অভিযোগ, তিন বছর আগে শুভদীপের সঙ্গে গোয়ালটুলির প্রিয়াঙ্কার বিয়ে হয়। কিন্তু সেই বিয়ের কথা জানতেন না শুভদীপের পরিবার। তাঁদের একটি ছোট সন্তানও রয়েছে। অভিযোগ, এরপরেই পাড়ারই টিঙ্কু দত্ত নামে এক যুবকের সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। সেই সম্পর্কের কথা জানাজানি হয় পাড়াতেও। কিন্তু, তারপরেও ‘বেপরোয়াভাবে’ টিঙ্কুর সঙ্গে সম্পর্ক রেখে চলেছিলেন প্রিয়াঙ্কা অভিযোগ এমনটাই। এই নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝামেলাও হয়। অভিযোগ, গত মঙ্গলবার শুভদীপকে মদ বা অন্য কোনও পানীয়ের সঙ্গে ঘাস মারার বিষ খাইয়ে খুন (murder) করেন টিঙ্কু ও প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু সেই খবর শুভদীপের বাড়িতে জানানো হয় বুধবার রাতে বলে অভিযোগ।

শুভদীপের মায়ের কথায়, “আমার ছেলের সঙ্গে ওই মেয়েটার কবে বিয়ে হয়েছে তা জানা নেই। আমরা কোনওদিন ওই বিয়ে মেনে নিইনি। ওরা আলাদা থাকত। আমি অনেকবার ওদের বাড়িতে যেতে গেলে আমায় ঢুকতে দেয়নি। টিঙ্কু নামে অন্য একটা ছেলের সঙ্গে প্রেম করছিল মেয়েটা। শনিবার আমার ছেলেকে বিষ খাওয়ায় ওরা দুজনে। প্রেমিককে নিয়ে ফুর্তি করবে বলে আমার ছেলেটাকে বিষ খাইয়ে মারল। ছেলেটা আমার মারা গিয়েছে বৃহস্পতিবার। কল্যাণীতে ভর্তি ছিল। একটা খবর দেয়নি। মারা যাওয়ার বডি নিয়ে এসেছে। ওকে কি ছেড়ে দেব!”

স্থানীয় এক বাসিন্দার কথায়, “আমরা তো নিজের চোখে দেখেছি, অন্য ছেলেকে নিয়ে মেয়েটাকে ফুর্তি করতে। ওই ছেলেটাকে ডেকে নিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাটাত। ছেলেটাকে ভাল পেয়ে বউটা নিজের প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে মদের মধ্যে বিষ খাইয়ে মেরে দিল।” এদিন, অভিযুক্ত প্রিয়াঙ্কা তাঁর স্বামীর মৃতদেহ নিয়ে পাড়ায় আসতেই তাঁকে ল্যাম্পপোস্টের সঙ্গে বেঁধে ‘মারধর’ করতে শুরু করেন গ্রামবাসীরা। পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে শুরু করলে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় পুলিশ। প্রিয়াঙ্কাকে গ্রামবাসীদের হাত থেকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয়। মৃতের পরিবার তরফ থেকেও চুঁচুড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আরও পড়ুন: মুখোমুখি দুই ‘ব্রত’! নেতা-অভিনেতা বৈঠকে বাড়ছে জল্পনা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla