ইয়াসের তাণ্ডবে এলাকায় জমেছে জল, সেই জল নিকাশি নিয়েও এলাকায় উঠল ‘ঝড়’

ইয়াসের (Yaas) কারণে জলমগ্ন হয়ে গিয়েছে গঙ্গাসাগরের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। সেখানকার কশতলা ও শিবপুর বকুলতলা এলাকাও ভেসে গিয়েছে।

ইয়াসের তাণ্ডবে এলাকায় জমেছে জল, সেই জল নিকাশি নিয়েও এলাকায় উঠল 'ঝড়'
নিজস্ব চিত্র।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: দুই গ্রামের মধ্যে জল নিকাশি নিয়ে ঝামেলা গড়াল গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামীকে মারধরের অভিযোগ পর্যন্ত। শুক্রবার গঙ্গাসাগরের কচুবেড়িয়া এলাকার ঘটনা। ঘটনার জেরে ভাঙচুর হয়েছে বাইক থেকে বাড়ি সমস্ত কিছু। আহত বেশ কয়েকজন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নেমেছে পুলিশ।

ইয়াসের কারণে জলমগ্ন হয়ে গিয়েছে গঙ্গাসাগরের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। সেখানকার কশতলা ও শিবপুর বকুলতলা এলাকাও ভেসে গিয়েছে। ঘটনার পর দ্রুত জল নিকাশ হয়ে যায় কশতলা গ্রামে। অন্যদিকে, শিবপুর বকুলতলার জল তখনও দাঁড়িয়ে। তাতেই ক্ষেপে যান বাসিন্দারা। ক্ষোভে রাস্তা কেটে দিয়ে জল নিকাশির ব্যবস্থা করেন তাঁরা নিজেরাই।

অভিযোগ, এই কাজে বাধা দিতে আসেন কশতলা গ্রামের বাসিন্দারা। তাতেই দুই গ্রামের মধ্যে বেধে যায় ঝামেলা। এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে আসে সাগর থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। তারা সমস্যার সমাধান হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিলে উত্তেজনা কমে।

আরও পড়ুন: ইয়াস বিপর্যস্ত এলাকায় পৌঁছবে ‘দুয়ারে ত্রাণ’, কবে কী ভাবে আবেদন করতে হবে জানালেন মমতা

সকালের এই ঘটনার পর বিকেলে আরও এক দফায় বিক্ষোভ দেখান বকুলতলার বাসিন্দারা। তখনও এলাকায় জল নামেনি। ফলে প্রশাসনের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ না হওয়ায় মুড়িগঙ্গা পঞ্চায়েতে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। এর মধ্যেই অভিযোগ, কশতলার গ্রামপঞ্চায়েত সদস্যের স্বামী শক্তিপদ মাইতির নির্দেশে কয়েকজন ছেলে মুড়িগঙ্গা গ্রামপঞ্চায়েত প্রধান প্রীতিলতা প্রামানিকের স্বামী রবিন প্রামানিক–সহ আরও দু’জনকে মারধর করে। তারপরই এলাকায় উত্তেজনা একেবারে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। দুই পক্ষের বেশ কয়েকজন মারাত্মক আহত হন। শেষে আবার পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। যদিও এ নিয়ে শক্তিপদ মাইতির তরফে কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla