North Korea vs South Korea: উপযুক্ত সম্মান পেলে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে কথা বলতে আমরা রাজি, জানালেন কিমের বোন

Kim Jong Un, রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ পরিষদের সভায়, মঙ্গলবার দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রপতি মুন জায়ে ইন (Moon Jae In) চিরস্থায়ীভাবে যুদ্ধ বিরতির পক্ষে জোরলো সওয়াল করেছিলেন।

North Korea vs South Korea: উপযুক্ত সম্মান পেলে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে কথা বলতে আমরা রাজি, জানালেন কিমের বোন
দুই কোরিয়ার মধ্যে পারস্পরিক সম্মান বজায় থাকলে আলোচনা হতেই পারে, ছবি গ্রাফিক্স

সিওল: দুই কোরিয়ার মধ্যে পারস্পরিক সম্মান বজায় থাকলে আলোচনা হতেই পারে। শনিবার, উত্তর কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা (North Korean News Agency) কেসিএনএ (KCNA) রাষ্ট্রপতি কিম জং উনের (Kim Jong Un) বোন, কিম ইয়ো জংকে (Kim Yo Jong) উদ্ধৃত করে এমনটাই জানিয়েছে। তাদের দেশের প্রতি আমেরিকার (USA) নেতিবাচক মনোভাব এবং মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার সুসম্পর্কের কথা তুলে ধরার পরেই, উত্তর কোরিয়ার শীর্ষস্তর থেকে এই ধরণের বার্তা খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

১৯৫০ থেকে ১৯৫৩ সাল অবধি চলা কোরিয়ান যুদ্ধ কোনও শান্তি চুক্তির দ্বারা শেষে হয়নি। আমেরিকার নেতৃত্বে রাষ্ট্রপুঞ্জের (United Nations) বাহিনী গুলির সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার সামরিক সমস্যা এখনও চলছে। উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে বারবার পারমাণবিক অস্ত্রের (Nuclear Weapon) পরীক্ষা নিরীক্ষার ফলে আনুষ্ঠানিকভাবে যুদ্ধে ইতি টানার প্রক্রিয়া বারবার ব্যাহত হয়েছে।

 

আরও পড়ুন Xiaomi Watch Color 2: আসছে শাওমির নতুন স্মার্টওয়াচ, কবে লঞ্চ হবে শাওমি ওয়াচ কালার ২?

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রপতি কিম জং উনের বোন বলেন “আমার মনে হয় নিরপেক্ষতা ভিত্তিতে যখন দুই দেশের মধ্যে পারস্পারিক সম্মান অটুট থাকবে তখন উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার (South Korea) মধ্যে বোঝাপড়ার পথ মসৃণ হতে পারে। গঠনমূলক আলেচনার মাধ্যমে সংহতিপূর্ণ পরিবেশে যাবতীয় সমস্যার সফল সমাধান সম্ভব এবং এই আলোচনার মাধ্যমে চলে আসা যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক সমাধান হতে পারে।”

তিনি আরও বলেন “আমি ব্যক্তিগতভাবে অনুভব করেছি দক্ষিণ কোরিয়ার জনসাধারণ, স্তব্ধ হয়ে থাকা আন্তঃকোরিয়ান সম্পর্ক উন্নতির পক্ষে। দুই দেশের সম্পর্কের মধ্যে চলে আসা অচলবস্থা দ্রুত কেটে যাক, এটাই তারা চান। আমরাও সেটারই পক্ষে।”

দুই দেশের মধ্যে চলা দীর্ঘ সময় ধরে চলা সমস্যা সাম্প্রতিক কালে তীব্র আকার ধারণ করেছিল। খুব সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ার পক্ষ থেকে সম্প্রতি আনুষ্ঠানিকভাবে কোরিয়ান যুদ্ধ (Korean War) শেষ করার কথা বলা হলেও তা মানতে নারাজ ছিল উত্তর কোরিয়া (North Korea)। এমনকি প্য়াংগংয়ের পক্ষ থেকে দক্ষিণ কোরিয়া তরফ থেকে আসা প্রস্তাবকে ‘শিশুসুলভ মন্তব্য’ বলে কটাক্ষ করা হয়েছিল।

রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ পরিষদের সভায়, মঙ্গলবার দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রপতি মুন জায়ে ইন (Moon Jae In) চিরস্থায়ীভাবে যুদ্ধ বিরতির পক্ষে জোরলো সওয়াল করেছিলেন। রাষ্ট্রপতি হিসেব ২০২২ সালের মে মাসে মুনের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার কথা। তাই তিনি চান অতি দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করতে।

অনেক বছর ধরেই উত্তর কোরিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে যুদ্ধ শেষ করার পক্ষে ছিল। কিন্তু নানা অছিলায় নিজেদের পারমাণবিক শক্তির ব্যবহার ছেড়ে না দিলে, যুদ্ধে আনুষ্ঠানিক ইতি সম্ভব নয়, তা স্পষ্ট করে দেওয়া হয় ওয়াশিংটনের (Washington) পক্ষ থেকে। এখন কিম ইয়ো জংয়ের এই মন্তব্যের পর পরিস্থিতি কোন দিকে যায় সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

 

আরও পড়ুন Digha: গুটি গুটি করে উপকূলগামী ‘গুলাব’, আগেভাগেই দিঘার সমস্ত হোটেল খালি করার নির্দেশ

 

 

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla