‘কাল যা পদ্মফুল, আজ তা জোড়াফুল!’ দুবরাজপুরে রাতারাতি ভোল বদল দলীয় কার্যালয়ের

TMC BJP Clash: সূত্রের খবর, নির্বাচনের আগে দুবরাজপুরের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের দিলীপ হাজরা নামের এক ব্যক্তির বাড়িতে নির্বাচনী কার্যালয় তৈরি করেছিল বিজেপি।

'কাল যা পদ্মফুল, আজ তা জোড়াফুল!' দুবরাজপুরে রাতারাতি ভোল বদল দলীয় কার্যালয়ের
মোছা হচ্ছে বিজেপির প্রতীক, নিজস্ব চিত্র

বীরভূম: বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকেই বেড়েছে দলবদলের হিড়িক। পদ্মফুল ছেড়ে তৃণমূলে যোগদানের হিড়িক পড়েছে। এ বার, দুবরাজপুরে বিজেপির(BJP) দলীয় কার্যালয় রাতারাতি বদলে গেল তৃণমূলে। তড়িঘড়ি দেওয়াল লিখন মুছে  সেখানে তৃণমূলের (TMC) প্রতীক আঁকা হল।

সূত্রের খবর, নির্বাচনের আগে দুবরাজপুরের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের দিলীপ হাজরা নামের এক ব্যক্তির বাড়িতে নির্বাচনী কার্যালয় তৈরি করেছিল বিজেপি(BJP)। বাড়ির মালিক নিজেও বিজেপির সক্রিয় কর্মী ছিলেন। সেই কার্যালয়ে বিজেপির নেতা কর্মীরা এসে নিজেদের কাজকর্মও করতেন। কিন্তু ভোটের ফলপ্রকাশ হওয়ার দিনকয়েকের মধ্যেই বাড়ির মালিক-সহ বিজেপি কর্মীদের একাংশ তৃণমূলে নাম লেখান। তার পরেই বিজেপির সেই কার্যালয় রাতারাতি বদলে যায় তৃণমূলের কার্যালয়ে।

স্থানীয় তৃণমূল নেতার কথায়, “অনুব্রত মণ্ডল আমাদের নেতা। তাঁর আদর্শে ও নির্দেশে যাঁরা বিধানসভা নির্বাচনের পর আমাদের দলে যোগ দিতে চেয়েছেন তাঁদের আমরা যোগদান করিয়েছি। এই কার্যালয়ে বিজেপিরই এক কর্মীর বাড়িতে  প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। বাড়ির মালিক-সহ আরও অনেকে নির্বাচনের পর আমাদের দলে যোগ দেওয়ায় দুবরাজপুরের এই কার্যালয় তৃণমূলের কার্যালয়ে রূপান্তরিত হল।” প্রাক্তন বিজেপি কর্মী জানিয়েছেন, উন্নয়নের শরিক হতে তাঁরা তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। যদিও এই ঘটনায় বিজেপি নেতৃত্বের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। আরও পড়ুন: ‘বিজেমূল স্লোগানে ভুল নেই’, সূর্যকান্তের ‘বিরুদ্ধ সুর’ সুশান্তের!

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla