কলকাতা হাইকোর্ট

কলকাতা হাইকোর্ট

কলকাতা হাইকোর্ট ভারতের সবথেকে পুরনো হাইকোর্ট। ১৮৬২ সালের ২৬ জুন রানি ভিক্টোরিয়ার অনুমোদনে তৈরি হয় এই আদালত। পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের মামলার বিচারও হয় কলকাতা হাইকোর্টে। বর্তমানে এই হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানম। ‘ক্যালকাটা’ নাম বদলে ‘কলকাতা’ হয়ে গেলেও হাইকোর্টের ক্ষেত্রে এখনও ‘ক্যালকাটা’ নাম ব্যবহার করা হয়। কলকাতার এসপ্লানেডে অবস্থিত এই আদালতের ভবনটি তৈরি করেছিলেন আর্কিটেক্ট ওয়াল্টার লং বোজ্জি গ্র্যানভিল। ব্রিটিশ শাসিত ভারতে কলকাতা হাইকোর্টের প্রথম প্রধান বিচারপতি ছিলেন বার্নেস পিকক। কলকাতা হাইকোর্টের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশিদিন প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালন করেছেন বিচারপতি শঙ্কর প্রসাদ মিত্র। পোর্ট ব্লেয়ারে কলকাতা হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ রয়েছে। ২০১৯ সালে কলকাতা হাইকোর্টের আরও একটি সার্কিট বেঞ্চ চালু হয় জলপাইগুড়িতে।

Read More

Sandeshkhali Case: মাম্পির পর এবার গঙ্গাধরকে নিয়েও বড় নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের

Calcutta High Court: এফআইআর খারিজের আবেদন জানিয়ে এবং নিরাপত্তা চেয়ে আদালতে গিয়েছিলেন গঙ্গাধর। পাশাপাশি ভিডিয়োটি ভুয়ো বলে অভিযোগ জানিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি জানান তিনি।

Calcutta High Court: ‘এর পিছনে কার পরিকল্পনা?’, মাম্পির মামলায় খোদ বিচারকের ভূমিকা নিয়েই প্রশ্ন তুললেন বিচারপতি সেনগুপ্ত

Calcutta High Court: বিচারপতি বলেন, 'পুলিশের কথা না হয় ছেড়েই দিলাম, বিচারক কি করছিলেন?' গ্রেফতারির ক্ষেত্রে ১৯৫ এ ধারা যুক্ত করে দেওয়া শীর্ষ আদালতের অবমাননার সামিল বলেও মন্তব্য করেন তিনি। মা

Sandeshkhali: একচ্ছত্র ক্ষমতা প্রয়োগ করে সন্দেশখালির মাম্পিকে জামিন দিল হাইকোর্ট

Sandeshkhali: মাম্পি দাসের বাড়িতে গিয়ে নোটিস দিয়ে এসেছিল পুলিশ। সেখানে জামিন যোগ্য ধারার কথা উল্লেখ করা হয়েছিল। পরে আত্মসমর্পণ করতে যান তিনি। কিন্তু মাম্পিকে ৭ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপরই জামিনে আবেদন নিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন মাম্পি।

Calcutta High Court: তদন্ত করবে NIA-ই, ময়নার মামলা একক বেঞ্চের নির্দেশই বহাল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে

Calcutta High Court: একক বেঞ্চের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে গিয়েছিল রাজ্য। আজ সেই মামলার শুনানিতে একক বেঞ্চের নির্দেশই বহাল রাখল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। আদালত জানিয়ে দিয়েছে, যেহেতু ইতিমধ্যে এনআইএ তদন্ত শুরু করেছে, তাই সেখানে আর হস্তক্ষেপ করবে না আদালত।

Sandeshkhali: ‘আপাতত কোনও হস্তক্ষেপ নয়’, সন্দেশখালি নিয়ে প্রিয়াঙ্কার আর্জিতে সাড়া দিল না হাইকোর্ট

Calcutta High Court: সন্দেশখালির পরিস্থিতি নিয়ে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানমের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। এই মামলার যাতে দ্রুত শুনানি হয়, সেই আবেদন জানান তিনি। কিন্তু হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়ে দিয়েছে, যেহেতু বর্তমানে সিবিআই তদন্ত করছে, তাই বিষয়টি নিয়ে সিবিআইয়ের কাছেই আবেদন জানাতে হবে।

Calcutta High Court: ‘FIR খারিজ হোক’, আর্জি অভিজিৎ গাঙ্গুলির, মামলা গেল বিচারপতি ঘোষের বেঞ্চে

Calcutta High Court: আগামী ২৫ মে তমলুক কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে। তার আগে সম্প্রতি কমিশনে মনোনয়ন পেশ করেন তিনি। মনোনয়নে যাওয়ার পথে গণ্ডগোলের সূত্রপাত হয়। অভিজিতের মিছিল পৌঁছনোর পর চাকরিহারা শিক্ষকরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। তখন স্লোগান, পাল্টা স্লোগান শুরু হয়।

Calcutta High Court: ‘যত সময় গড়াবে, তত তথ্য প্রমাণ বিকৃতির সম্ভাবনা বাড়বে’, রামনবমীতে গোলমালের মামলায় জানাল হাইকোর্ট

Calcutta High Court: হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানম মন্তব্য, যত সময় গড়াবে ততই তথ্য প্রমাণ বিকৃতি করার সম্ভাবনা বাড়বে। প্রধান বিচারপতি এদিন বলেন, 'পুলিশি রিপোর্ট অনুযায়ী বোমা ছোড়ার অভিযোগ রয়েছে। সেরকম হলে তদন্তভার তো এনআইএ-র কাছেই যাওয়া উচিত।'

Calcutta High Court: ‘নিজেদের সম্পত্তি রক্ষা করতে পারছেন না’, হিডকো-কে ভর্ৎসনা করে TMC-র পার্টি অফিস ভাঙার নির্দেশ হাইকোর্টের

Calcutta High Court: নিউ টাউন ও রাজারহাট এলাকায় এই ধরনের নির্মাণ আছে বলে অভিযোগ ওঠে আগেই। হিডকো-র তরফে ১৫ নোটিসও দেওয়া হয়েছিল ওই পার্টি অফিসগুলিকে। শুক্রবার সেই মামলার শুনানি ছিল আদালতে।

Sandeshkhali Case: ভাইরাল ভিডিয়ো-র জন্য প্রাণহানির আশঙ্কা! হাইকোর্টে গেলেন গঙ্গাধর

Sandeshkhali Case: যে ভিডিয়োতে গঙ্গাধরকে দেখা যায়, সেখানে তাঁকে বলতে শোনা যায়, সন্দেশখালির মহিলাদের করা অভিযোগ মিথ্যা। পরে গঙ্গাধর সংবাদমাধ্যমকে জানান, তাঁর গলা নকল করে কেউ বা কারা এই কাজ করেছে।

Calcutta High Court: ‘Sweety’ বা ‘Baby’ নামে ডাকলেই কি যৌন হেনস্থা হয়? বিশেষ পর্যবেক্ষণ কলকাতা হাইকোর্টের

Calcutta High Court: মহিলার অভিযোগ ছিল, শুধুমাত্র এভাবে সম্বোধন করাই নয়, তাঁর ঘরে উঁকিও দিতেন ওই অফিসার। কিন্তু ঘটনার অনেকদিন পর অভিযোগ জানান মহিলা, তাই কোনও সিসিটিভি ফুটেজ এ ক্ষেত্রে পায়নি তদন্ত কমিটি।