শুভেন্দু অধিকারী

শুভেন্দু অধিকারী

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামের বিধায়ক তিনি। ছাত্র রাজনীতি দিয়ে রাজনীতির হাতেখড়ি। ১৯৯৫ সাল থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত কাঁথি পুরসভার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কংগ্রেস কাউন্সিলর ছিলেন। এরপর তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান। যে তমলুককে এক সময় সিপিএম নেতা লক্ষ্মণ শেঠের তালুক বলা হত, ২০০৯ সালে সেখানেই ঘাসফুল ফোটান শুভেন্দু। যার মাটি তৈরি হয়েছিল ২০০৭ সালে নন্দীগ্রাম আন্দোলনের হাত ধরে। তখন তিনি অবশ্য দক্ষিণ কাঁথির তৃণমূল বিধায়ক। ২০১৬ সালে নন্দীগ্রামের বিধায়ক হন তিনি। ছেড়ে দেন তমলুকের সাংসদ পদ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারে রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রীও হয়েছেন। ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপিতে যোগদান। আবারও নন্দীগ্রাম থেকে লড়াই এবং পদ্মপ্রতীকে জয়।

Read More

Suvendu Adhikari: ‘জুডিশিয়ারি জিন্দা হ্যায়’, বোস-সাক্ষাৎ সফল করে বিচারব্যবস্থার বন্দনা শুভেন্দুর

Suvendu Adhikari: রবিবার সন্ধেয় শতাধিক ঘরছাড়া বিজেপি কর্মী-সমর্থককে সঙ্গে নিয়ে রাজভবনে যান শুভেন্দু অধিকারী। প্রায় ১০-১২ মিনিটে সংক্ষেপে রাজ্যপালকে সামগ্রিক পরিস্থিতির কথা তুলে ধরেন তিনি। নিজেদের অভিযোগের স্বপক্ষে লিখিত নথি, ভিডিয়ো ফুটেজ, স্টিল ছবি তুলে দেন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের কাছে।

Suvendu Adhikari: দুর্গাপুজো পর্যন্ত থাকুক কেন্দ্রীয় বাহিনী, বোসের দুয়ারে দাবি শুভেন্দুর

Suvendu Adhikari: বৃহস্পতিবার রাজভবনের দুয়ারে পৌঁছে গিয়েও রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে পারেননি শুভেন্দু। পুলিশি বাধার অভিযোগ তুলে হাইকোর্টে গিয়েছিলেন তিনি। এরপর রবিবাসরীয় সন্ধেয় ফের একবার শতাধিক বিজেপি কর্মী-সমর্থককে নিয়ে রাজভবনে বোসের দুয়ারে শুভেন্দু অধিকারী।

C V Ananda Bose: ‘হিংসার বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়াই’, বিজেপির ঘরছাড়াদের বার্তা বোসের

C V Ananda Bose: বিজেপি কর্মীদের রাজভবনে স্বাগত জানিয়ে রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস স্পষ্ট বাংলায় বললেন, 'আমরা হিংসার বিরুদ্ধে লড়াই করব। একসঙ্গে লড়াই করব। আমরা বাংলাকে হিংসামুক্ত করব।' এরপর বাংলার সাংবিধানিক প্রধানের আরও সংযোজন, 'আমি শেষ পর্যন্ত লড়াই করব। বাংলার দশ কোটি ভাই-বোনেরা আমার সঙ্গে আছেন।'

Suvendu Adhikari: ‘মুসলিম হয়েও কেন বিজেপি করি, এটাই আমার দোষ’, শুভেন্দুকে আতঙ্কের বর্ণনা দিলেন সংখ্যালঘু মহিলা

Post Poll Violence: শনিবার কোচবিহারে অশান্তির শিকার হওয়া দলীয় কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে দেখা করতে যান বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁদের সমস্যার কথা শোনেন তিনি। সেই সময়েই বিজেপির এক সংখ্যালঘু মহিলা সমর্থক উঠে দাঁড়িয়ে শুভেন্দুকে শোনান আতঙ্কের পরিস্থিতির কথা।

Suvendu Adhikari: রাজভবনের সামনে ধরনার অনুমতি চেয়ে সিপিকে চিঠি শুভেন্দু, তৃণমূল বলছে অভিষেককে নকল করছে

Suvendu Adhikari: ভোট পরবর্তী হিংসায় আক্রান্তদের নিয়ে ১৯ জুন থেকে পাঁচদিন ধরনায় বসতে চান শুভেন্দু। তৃণমূল পাঁচদিন ধরনার অনুমতি পেলেও তাঁদের কেন নয়? প্রশ্ন তুলছেন শুভেন্দু। রাজ্যপাল সময় দিলে রবিবার ভোট পরবর্তী হিংসায় আক্রান্ত ১০০ জনকে নিয়ে রাজভবনে যাবেন বলে জানিয়েছেন বিরোধী দলনেতা।

Calcutta High Court: ‘রাজ্যপালকে কি গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে?’, প্রশ্ন তুললেন বিচারপতি

Calcutta High Court: বিচারপতি অমৃতা সিনহা জানিয়েছেন, রাজ্যপাল অনুমতি সাপেক্ষে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে পারবেন শুভেন্দু অধিকারী ও নির্বাচন পরবর্তী অশান্তিতে 'আক্রান্ত' ব্যক্তিরা। তবে রাজ্যপালের সঙ্গে কতজন দেখা করতে যাবেন, সেটা পুলিশকে জানাতে হবে। পাশাপাশি বিচারপতি অমৃতা সিনহার আরও নির্দেশ, যদি গাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়, তাহলে কতগুলি গাড়ি রাজভবনের ভিতরে ঢুকবে, সেটাও জানাতে হবে পুলিশকে।

Suvendu Adhikari: তৃণমূলের চার সাংসদের ভবিষ্যৎ কি অনিশ্চিত? বড় ইঙ্গিত শুভেন্দুর

Suvendu Adhikari: সাংবাদিক বৈঠক ছাপ্পা ভোটের প্রসঙ্গ তুলে তৃণমূলকে আক্রমণ করেন শুভেন্দু। তাঁর অভিযোগ, "এবারের লোকসভা ভোটে প্রায় ২০-২৫ লক্ষ ছাপ্পা ভোট পড়েছে।" চার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থীরা কলকাতা হাইকোর্টে ইলেকশন পিটিশন দাখিল করছেন জানিয়ে শুভেন্দুর হুঁশিয়ারি, "তৃণমূল শুনে রাখুক, এই ইলেকশন পিটিশন চার-পাঁচ বছর ধরে ঝুলে থাকবে না।"

Suvendu Adhikari: ‘…BJP-তে খারাপ হলে দায় আমার’, অভিমানী শুভেন্দু?

Suvendu Adhikari On BJP: বলতে শোনা গিয়েছে, সব সিদ্ধান্ত তিনি নেন না, কিন্তু রাজ্য সভাপতি হওয়ার দরুন দায় তাঁকেই নিতেই হবে। রাজনৈতিক কারবারিদের একাংশ প্রশ্ন তুলেছেন আকার ইঙ্গিতে এই সকল রাজ্য নেতারা কি বিজেপির ফলাফল খারাপের পিছনে আঙুল তুলছেন শুভেন্দু অধিকারীর দিকে?

Suvendu Adhikari on Mamata: ‘মানুষ মমতাকে মেনে নিয়েছেন…’, বলেই ফেললেন শুভেন্দু

Suvendu Adhikari on Mamata: ওয়াকিবহাল মহলের মতে, বিরোধী দলনেতা হয়ত বোঝাতে চেয়েছেন প্রার্থী ঘোষণা প্রশাসনিক ভবন থেকে হোক বা দলীয় কার্যালয় থেকে এই সব জিনিস সাধারণ মানুষের বিচার্য বিষয় নয়। আখেরে ভোট তৃণমূল পায় এবং জয়ীও হয়।

Suvendu Adhikari: এখনও মমতার সব খবর আসে শুভেন্দুর কাছে! জানালেন নিজেই

Suvendu Adhikari: এখানেই শেষ নয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতকাল অভিযোগ করেছিলেন, কাঁথিতে নাকি পাচারের টাকা যাচ্ছে। সঙ্গে-সঙ্গে শুভেন্দু বলেন, "কাঁথিতে আমি একা থাকি না। আরও অনেকে থাকেন। রাষ্ট্রমন্ত্রী (অখিল গিরি) ওখানে থাকেন। আমায় বললে উত্তর দেব। উনি নিম্নমেধার। কাঁথি লোকজন পড়াশোনায় উন্নত।"