Kunal Ghosh: থানাতেই অসুস্থ কুণাল ঘোষ, নিয়ে যাওয়া হল হাসপাতালে

TMC at Tripura: সরকারি বাধা দেওয়ার অভিযোগে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষকে নোটিস দিয়েছিল ত্রিপুরা পুলিশ।

Kunal Ghosh: থানাতেই অসুস্থ কুণাল ঘোষ, নিয়ে যাওয়া হল হাসপাতালে
এই মামলায় আগেই এনসিসি থানায় হাজিরা দেন কুণাল (ফাইল ছবি-PTI)

আগরতলা: জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কুণাল ঘোষকে (Kunal Ghosh)  সমন পাঠিয়েছিল ত্রিপুরা পুলিশ (Tripura Police)। সেই মতো আজই হাজিরা দেন তিনি। জিজ্ঞাসাবাদও চলে বেশ কিছুক্ষণ। কিন্তু থানাতেই এ দিন অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। আচমকা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে। ত্রিপুরার আইএলএস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জানা গিয়েছে, সুগার লেভেল বেশি থাকায় ও প্রেসার কম থাকায় অসুস্থ হয়ে পড়েন কুণাল ঘোষ। আপাতত তাঁর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।

এ দিন ঠিক ১১টা ৪৫ মিনিটে ত্রিপুরার এনসিসি থানায় হাজিরা দেব কুণাল ঘোষ। সেখানেই তাঁর জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হওয়ার পর কুণাল ঘোষ সহযোগিতা করেছেন বলে চিঠিও দেওয়া হয় থানার তরফে। সেখান থেকে বেরনোর মুখে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তখনই তাঁকে নিয়ে যাওয়া হল ত্রিপুরা আইএলএস হাসপাতালে।

এই ঘটনার পর টুইট করেছেন কুণাল। তাঁর দাবি, তাঁর অসুস্থতার সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। আর সেই প্রশ্নের মুখে জবাব দিয়ে থানার চিঠি পোস্ট করেছেন তিনি। যেখানে লেখা আছে যে তিনি জিজ্ঞাসাবাদে সহযোগিতা করেছেন। কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, তাঁর সুগার বেশি ও প্রেসার কম থাকায় অসুস্থ বোধ করেন তিনি। হাসপাতালে তাঁর এমআরআই-ও হয়েছে।

প্রথমে কুণাল ঘোষকে খোয়াই থানায় তলব করা হয়েছিল। ১০ দিনে যেতে বলা হয়েছিল তাঁকে। আর চার দিনের মধ্যেই যাওয়ার কথা জানান কুণাল ঘোষ। খোয়াই থানায় যাওয়ার কথা জানিয়ে ফোন করেন আইও-কে। কিন্তু কিণাল ঘোষ জানিয়েছেন, সোমবার তিনি আগরতলা পৌঁছলে খোয়াই থানা থেকে তাঁকে আমাকে ফোন করে জানানো হয় যে তাঁকে খোয়াই থানায় যেতে হবে না। এনসিসি থানায় যাওয়ার কথা বলা হয়।

গত অগস্ট মাসে দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে গিয়ে আক্রান্ত হন সুদীপ রাহা, জয়া দত্ত। দেবাংশু ভট্টাভার্য, সুদীপ ও জয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ। খোয়াই থানায় রাখা হয়েছিল তাঁদের। সেই খবর পেয়েই ত্রিপুরায় ছুটে যান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের একাধিক নেতা-নেত্রী। ছিলেন কুণাল  ঘোষ, দোলা সেনও। খোয়াই থানায় তাঁদের বসে থাকতে দেখা গিয়েছিল। ওই ঘটনার জেরে আগেই নোটিস পেয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আর কয়েকদিন আগে সেই কারণেই সমন পাঠানো হয় কুণাল ঘোষকে। ৪১ এ ধারা অনুযায়ী, তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। থানায় বসে পুলিশের কাজে তথা সরকারি বাধা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে কুণালের বিরুদ্ধে।

ত্রিপুরায় মাটি তৈরি করতে লার্যত মরিয়া তৃণমূল। নিজেদের সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে ঘাসফুল শিবির। কিন্তু অভিষে বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা ঘিরে ফের অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। সম্ভবত, আগামিকাল ত্রিপুরায় গিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করবেন তৃনমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক।

আরও পড়ুন: Death Sentence: পুরুলিয়া সূচ-কাণ্ডে ফাঁসির নির্দেশ সনাতন ও মঙ্গলাকে

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla