নমোর মন্ত্রিসভায় বাড়তে পারে বাঙালি উপস্থিতি! জল্পনায় বাংলার ৬ সাংসদের নাম

মোদীর মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাওয়ার তালিকায় বাংলার মোট ৬ বিজেপি সাংসদের নাম নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। যদিও মন্ত্রিত্ব বড়জোড় এক বা দু'জন পেতে পারেন, এমনটাই জানাচ্ছে সূত্র।

নমোর মন্ত্রিসভায় বাড়তে পারে বাঙালি উপস্থিতি! জল্পনায় বাংলার ৬ সাংসদের নাম
ফাইল ছবি

নয়া দিল্লি: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে পারেন বাংলা আরও কয়েকজন সাংসদ! বিগত দু’বছর যাবৎ অপেক্ষার পর জনাকয়েক সাংসদের ভাগ্যে শিকে ছিঁড়তে পারে, এমন সম্ভাবনার কথা জানা যাচ্ছে সূত্র মারফৎ। সোমবার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে এক দীর্ঘ বৈঠকের পর এই সম্ভাবনা আরও তীব্রতর হয়েছে। নমো ছাড়াও আজকের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রী নীতিন গড়করি। এমনকী, বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নড্ডাও এই বৈঠকে হাজির ছিলেন বলে খবর।

বৈঠকের আলোচ্য বিষয় হিসেবে একাধিক প্রসঙ্গ উঠে এলেও মন্ত্রিসভায় রদবদল এবং সম্প্রসারণ নিয়েই মূল আলোচনা হয়। সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টা নাগাদ এই বৈঠক শুরু হয়। শেষ হয় রাত সাড়ে ১০ টা নাগাদ। তারপর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছে, এ রাজ্যের আরও জনাকয়েক সাংসদ মন্ত্রিত্ব পেতে পারেন। মোদীর মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাওয়ার সম্ভাব্য তালিকায় বাংলার মোট ৬ বিজেপি সাংসদের নাম নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। যদিও মন্ত্রিত্ব বড়জোড় এক বা দু’জন পেতে পারেন, এমনটাই জানাচ্ছে সূত্র।

কার কার নাম রয়েছে তালিকায়? প্রত্যাশিত কিছু নাম তো রয়েছেই, সেই সঙ্গে অপ্রত্যাশিত কয়েকটি নামকে ঘিরেও চলছে জল্পনার জাল বোনা। মন্ত্রী হতে পারেন, এমন সম্ভাব্যদের মধ্যে প্রথমেই নাম রয়েছে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। যেহেতু রাজ্য বিজেপি এই মুহূর্তে নতুন দলনেতা পেয়ে গিয়েছে, সেই কারণে মেদিনীপুরের সাংসদকে দিল্লিতে ডেকে নেওয়া হতে পারে, এমন একটা জল্পনা রয়েছে। এ বাদেও নিশীথ প্রামাণিক এবং লকেট চট্টোপাধ্যায়ের নাম নিয়ে তীব্র জল্পনা রয়েছে।

আরও পড়ুন: বিশ্লেষণ: মুকুল রায়কে দলত্যাগ বিরোধী আইনে ‘শাস্তি’ দিতে পারেন শুভেন্দু? কী বলছে সংবিধান…

মনে রাখতে হবে, মুকুল রায় তৃণমূলে ফেরার পরই তাঁর ফোন গিয়েছিল নিশীথ প্রামাণিকের কাছে। ফলে নিশীথের নাম ঘিরে জল্পনা যে বিশেষভাবে তাৎপর্যপূর্ণ তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এ ছাড়াও সাংসদ সুভাষ সরকার, শান্তনু ঠাকুর এবং জন বার্লার নাম শোনা যাচ্ছে। উল্লেখ্য নাগরিকত্ব আইন প্রণয়নে বিলম্বের কারণে শান্তনুও দীর্ঘ কয়েকমাস ধরে খুব একটা সন্তুষ্ট নেই নেতৃত্বের উপর। কেন্দ্রীয় নেতারাও সেটা বিলক্ষণ জানেন। ফলে জল্পনায় থাকা সমস্ত নামের মধ্যে আলাদা করে নজর টানছে নিশীথ এবং শান্তনুর নাম।

২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের আগে নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় মন্ত্রী ছিলেন কেবল বাবুল সুপ্রিয়। সেই সময় বাংলা থেকে বিজেপি সাংসদের সংখ্যা ছিল ২। এরপর তা বেড়ে হয় ১৮। কিন্তু মন্ত্রিত্বের ভাগে খুব একটা কিছু আসেনি বাংলায়। বাবুল বাদে মন্ত্রিসভায় স্থান পান বালুরঘাটের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী। কিন্তু দু’জনের কেউই পূর্ণ মন্ত্রী হননি। প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছিল বাবুল ও দেবশ্রীকে। এ বার পূর্ণ মন্ত্রিত্ব কাউকে দেওয়া হয় কি না সেদিকেই নজর রাজনৈতিক মহলের।

আরও পড়ুন: বিশ্লেষণ: মুকুল রায়কে দলত্যাগ বিরোধী আইনে ‘শাস্তি’ দিতে পারেন শুভেন্দু? কী বলছে সংবিধান…

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla