রাজ্যে হিংসার ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে রাজ্যপালকে ফোন মোদীর

৬ কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছে বিজেপি (BJP)। আক্রান্তদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে রাজ্যে আসছেন জেপি নাড্ডা (JP Nadda)।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 14:19 PM, 4 May 2021
রাজ্যে হিংসার ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে রাজ্যপালকে ফোন মোদীর
ফাইল চিত্র

কলকাতা: রাজ্যে গত কয়েকদিন ধরে ভোট পরবর্তী হিংসার ছবিতে তৈরি হয়েছে উদ্বেগ। বিজেপির (BJP) তরফ থেকে অভিযোগ আনা হচ্ছে রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে। রাজনৈতিক কর্মীদের খুন, পার্টি অফিস জ্বালিয়ে দেওয়ার মতো অভিযোগ উঠেছে। এ বার সেই বিষয়েই উদ্বেগ প্রকাশ করে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে (Governor Jagdeep Dhankhar) ফোন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। মঙ্গলবার টুইটে সে কথা জানিয়েছেন রাজ্যপাল।

এ দিন টুইটারে রাজ্যপাল জানিয়েছেন, রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। আগেই এই ইস্যুতে রাজ্যের কাছে রিপোর্ট চেয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। অন্য দিকে, মঙ্গলবারই এই ইস্যু নিয়ে আলোচনা করতে রাজ্যে আসছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাও। আর এই পরিস্থিতিতে এবার খোদ প্রধানমন্ত্রীর ফোন রাজনৈতিকভাবে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। রাজ্যপাল আরও জানিয়েছেন, তিনি প্রধানমন্ত্রীকে অশান্তি, হিংসা, লুঠপাটের বর্ণনাও দিয়েছেন।

ভোটের ফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যের কলকাতা-সহ রাজ্যের একাধিক জেলা থেকে রাজনৈতিক হিংসার খবর এসেছে। শুধু বিজেপি নয়, অন্যান্য দলের কর্মীদের মৃত্যুর খবরও সামনে এসেছে। ইতিমধ্যেই এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সরব হয়েছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে না বলেও অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: গড়ে ঘাসফুলের দাপট, ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন অর্জুন সিং!

রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতে সোমবারই রাজ্য পুলিশের ডিজি ও কলকাতার পুলিশ কমিশনার তলব করেছিলেন রাজ্যপাল।এ ছাড়া সোমবার সন্ধেয় পদত্যাগপত্র জমা দিতে রাজভবনে যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মমতার সঙ্গেও অশান্তির ঘটনা নিয়ে কথা হয়েছে বলে টু্‌ইটে নিজেই জানান জগদীপ ধনখড়। আর এবার তাঁকে ফোন করে পরিস্থিতির খোঁজ নিলেন খোদ নরেন্দ্র মোদী। উল্লেখ্য, আগামিকাল ৫ মে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শপথ বন্ধ রাখার আর্জি জানিয়েছে বঙ্গ বিজেপি।

এই খবর প্রকাশ্যে আসার পর প্রধানমন্ত্রী কটাক্ষ করে টুইট করেন তৃণমূলের রাজ্যভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। তিনি লিখেছেন, রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা আসলে অতিরঞ্জিত। তিনি লিখেছেন, ‘এ সব স্টান্ট বন্ধ করুন আর করোনা বিষয়ক ফোন করুন।’