পাশবিক ‘নীতিপুলিশি’! চুরির অভিযোগে ২ যুবককে চাবুক দিয়ে মার

Crime News: স্থানীয়দের অভিযোগ, বেশ কিছুদিন ধরে রামপুরহাটের কালীডাঙাতে একটি কামারশালা থেকে লোহা চুরি হচ্ছিল। তবে কে বা কারা চুরি করছিল তা জানা যায়নি। সম্প্রতি, এলাকায় নতুন দুই যুবককে ওই কামারশালার কাছাকাছি ঘুরতে দেখে সন্দেহ হয় স্থানীয়দের।

পাশবিক 'নীতিপুলিশি'!  চুরির অভিযোগে ২ যুবককে চাবুক দিয়ে মার
নিজস্ব চিত্র

বীরভূম: ফের বর্বর নীতিপুলিশি। ফের অকথ্য অত্যাচার। সামান্য অপরাধেও সালিশি সভা বসিয়ে ‘শাস্তির নিদান’ তুলে নিচ্ছেন গ্রামের ‘কেষ্ট-বিষ্টুরা’। সম্প্রতি, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ফুটে উঠেছে এই ছবি। এ বার, রামপুরহাটে চোর সন্দেহে দুই যুবককে ইলেকট্রিক খুঁটিতে বেঁধে চাবুক দিয়ে মারধরের ছবি প্রকাশ্যে এল।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বেশ কিছুদিন ধরে রামপুরহাটের কালীডাঙাতে একটি কামারশালা থেকে লোহা চুরি হচ্ছিল। তবে কে বা কারা চুরি করছিল তা জানা যায়নি। সম্প্রতি, এলাকায় নতুন দুই যুবককে ওই কামারশালার কাছাকাছি ঘুরতে দেখে সন্দেহ হয় স্থানীয়দের। রবিবার সকালে, ওই যুবকদের ধরে কালীডাঙার মোড়েই বৈদ্যুতিক খুঁটিতে বেঁধে দেন এলাকাবাসী। কিছু সময়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর চলে মারধর। সঙ্গে অকথ্য় ভাষায় গালিগালাজ। জানা গিয়েছে ওই দুই যুবক একজন কালীডাঙা ও অন্যজন বানারহাটের বাসিন্দা।

প্রকাশিত ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে,  দুই যুবককে ইলেকট্রিক খুঁটির সঙ্গে বেঁধে ঘিরে দাঁড়িয়ে রয়েছেন এলাকাবাসী। প্রথমে চ্যালা কাঠ, পরে চাবুক দিয়ে অকথ্য মারধর করা হচ্ছে দুই যুবককে। তাঁরা যতই অভিযোগ অস্বীকার করছেন ততই বেড়ে যাচ্ছে মারধরের মাত্রা। মাত্র কয়েক মিনিটের ভিডিয়ো। তাতেই চক্ষু চড়কগাছ! পুলিশের কাছে না গিয়ে কেন নিজেদের হাতে আইন তুলে নিচ্ছেন গ্রামের মানুষ তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। মাঝরাস্তার মোড়ে এভাবে গণপিটুনি দেওয়াতেও এগিয়ে আসছেন না কোনও পথচারী। প্রতিবাদও করছেন না কেউ! জেলা প্রশাসন সূত্রে যদিও এ বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন: ‘ও হিরো’! ‘ধর্ষকের’ তকমা গলায় ঝুলিয়ে গ্রামে ঘুরছেন পুরোহিত, ‘শাস্তি’ দিলেন গ্রামবাসীরা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla