Durga Puja 2021: বিদ্যুৎ চুরি করে পুজো ক্লাবের! ফুল তুলতে গিয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু মা-ছেলের!

Electrocution: হুকিং করে দুর্গাপুজোর প্যান্ডেলে আনা হয়েছিল বিদ্যুতের তার। তাই দিয়ে মণ্ডপে চলছিল মাইক, জ্বলছিল আলো। স্থানীয় পুজো কমিটির এই অনৈতিক কাজের মাশুল দিতে হল মা ও ছেলেকে।

Durga Puja 2021: বিদ্যুৎ চুরি করে পুজো ক্লাবের! ফুল তুলতে গিয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু মা-ছেলের!
নিজস্ব চিত্র

পূর্ব মেদিনীপুর: হুকিং করে দুর্গাপুজোর প্যান্ডেলে আনা হয়েছিল বিদ্যুতের তার। অভিযোগ, তাই দিয়ে মণ্ডপে চলছিল মাইক, জ্বলছিল আলো। স্থানীয় পুজো কমিটির এই অনৈতিক কাজের মাশুল দিতে হল মা ও ছেলেকে। বাগানে ফুল তুলতে গিয়ে বিদ্যুতের তার লেগে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল মা ও ছেলের! নবমর দিনে ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের এগরায়।

জানা গিয়েছে, এদিন সকাল ৮ টা নাগাদ বাসন্তী জানা ও তাঁর ছেলে অমলের বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়। এগরা নেগুয়া শিবমন্দির প্রাঙ্গণে দুর্গা পূজা উপলক্ষে পূজা কমিটি বিদ্যুৎ হুকিং করে বিদ্যুৎ ব্যবহার করে করছিল। সকালবেলা বাসন্তী জানা ফুল তুলতে গিয়েছিলেন। জানতেন না সেখান দিয়েই টানা হয়েছে হুকিং করে বিদ্যুতের তার। ফুল তুলতে গিয়ে কারেন্টের তারে হাত লেগে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন তিনি। এদিকে প্রথমে বউমা দেখতে না পেয়ে বাসন্তী দেবীর শাশুড়ি তাকে খুঁজতে বের হন। বউমাকে উদ্ধার করতে গিয়ে ছিটকে পড়েন তিনি। তিনিন পড়িমরিকরে বাড়িতে ছোটেন বাড়িতে খবর দিতেয়। এদিকে ছেলে ছুটে গিয়ে মাকে বাঁচানোর চেষ্টা করে। কিন্তু বিদ্যুতের লাইন টেনে ছিঁড়ে দিতে গেলে আটকে যায়। আর সেখানে থেকে হয় বিপত্তি। তিনিও তড়িদাহত হন।

পরে স্থানীয় লোকজন এসে উদ্ধার মাও ছেলেকে উদ্ধার করে স্থানীয় ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁদের মৃত বলে ঘোষণা করেন। গ্রামবাসীরা পার্শ্ববর্তী পদ্ম লোচন দাসের মারুতি হাসপাতালে চিকিৎসা জন্য নিয়ে যেতে চাইলে উনি তা দিতে অস্বীকার করেন বলেও অভিযোগ। পরে গ্রামবাসীরা টোটো করে তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে যান। ঘটনাস্থলে জেনারেটর ও মাইকের মালিক সুশান্ত জানা, মারুতির মালিক পদ্ম লোচন দাসকে ঘিরে বিক্ষোভ শুরু হয়। মৃতদেহ দুটি মারুতির মালিকের বাড়িতে রাখা রয়েছে। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ।

অপরদিকে পুজোর নতুন জামা কাপড় হয়নি। বাবা-মার কাছে নতুন জামা কেনার জন্য আর্জি জানিয়েছিল বছর ১৫ বছরের এক কিশোরী। সাংসারিক অনটনের জন্য নতুন জামা-কাপড় কিনে দিতে পারেননি বাব মা। এই অভিমানে গলায় গামছা ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে কিশোরী। এদিনই ঘটনাটি পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মান্দারমনি উপকূল থানার কালিন্দী এলাকায়। পুলিশ ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে মৃত কিশোরীর নাম বাসন্তী দেবনাথ ‌(১৫)। তার বাড়ি ভূপতিনগর থানার এক্তারপুর এলাকায়। মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সূত্রের খবর, ভূপতিনগর এক্তারপুরে বাড়ি হলেও মাছের ভেড়ির কাজের জন্য মান্দারমনি কালিন্দী এলাকায় সপরিবারে থাকতেন লালু দেবনাথ। আর্থিক অনটনের কারণে এবার পুজোয় কিশোরী মেয়েকে নতুন জামাকাপড় কিনে দিতে পারেননি বাবা। বুধবার দুপুরে বাবা-মার সঙ্গে এ নিয়ে ঝগড়া করে মেয়ে। তার পর অভিমানে বাড়িতে থাকা গামছা গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে সে।

আরও পড়ুন: Post Poll Clash: ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় সিবিআই হেফাজতে ৮ 

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla