বিয়ের ১২ বছর পর উদ্ধার বধূর ঝুলন্ত দেহ, খুনের অভিযোগ জামাইয়ের বিরুদ্ধে

সোমবার রাতে এই নিয়েই টুলার সঙ্গে বাপির অশান্তি হয়। মঙ্গলবার সকালে টুলার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 20:10 PM, 23 Feb 2021
Suicide
প্রতীকি চিত্র।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: স্বামীর বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের প্রতিবাদ করেছিলেন স্ত্রী। মঙ্গলবার সকালে শ্বশুরবাড়িতেই বধূর ঝুলন্ত (Hanged) দেহ উদ্ধার হল। এই ঘটনায় বারুইপুরের মাদারহাট গ্রামের বিশ্বাসপাড়ার বাসিন্দা বাপি সরদারকেই দায়ী করছে মৃতার পরিবার।

মৃতা টুলা সরদারের পরিবারের অভিযোগ, প্রায় বারো বছর আগে বাপি সরদারের সঙ্গে বিয়ে হয় টুলার। পেশায় গাড়িচালক বাপির সঙ্গে প্রায়ই অশান্তি হত তাঁর। তাঁদের একটি পুত্র সন্তানও রয়েছে। ইদানিং, বাপি একটি অন্য সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। সেখান থেকেই চূড়ান্ত মতান্তরে জড়িয়ে পড়েন দম্পতি।

আরও পড়ুন: পরকীয়ার প্রতিবাদ করতেই স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে ‘খুন’, কাঠগড়ায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ি

সোমবার রাতে এই নিয়েই টুলার সঙ্গে বাপির অশান্তি হয়। মঙ্গলবার সকালে টুলার ঝুলন্ত (Hanged) দেহ উদ্ধার হয়। তাঁর দেহটি বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। স্ত্রীকে খুন করে ঝুলিয়ে (Hanged) দিয়েছেন বাপি ও তাঁর পরিবার, এমনটাই অভিযোগ মৃতার পরিবারের তরফে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।