‘ঐতিহাসিক মিছিলে’ যাননি যাঁরা, তাঁদের নিয়ে ‘চিন্তা ভাবনা করবে’ ফেডারেশন, প্রেসিডেন্ট স্বরূপ বিশ্বাসের বার্তায় বিতর্ক

মেসেজের শেষে যাঁর নাম লেখা রয়েছেন, অর্থাৎ স্বরূপ বিশ্বাসের নাম (সভাপতি, ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস্ অ্যান্ড ওয়ার্কার্স্ অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া)। ‘

  • TV9 Bangla
  • Published On - 15:30 PM, 5 Apr 2021
'ঐতিহাসিক মিছিলে' যাননি যাঁরা, তাঁদের নিয়ে 'চিন্তা ভাবনা করবে' ফেডারেশন, প্রেসিডেন্ট স্বরূপ বিশ্বাসের বার্তায় বিতর্ক
স্ক্রিনশট যা ভাইরাল।

“টলিউডে মাফিয়ারাজ চলছে”—ঠিক এই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বিজেপির প্রথম সারির নেতৃত্ব। তাঁদের এ হেন বক্তব্যের প্রতিবাদে রবিবার সকালে পথে নামেন ষ্টুডিয়ো পাড়ার শিল্পী ও কলাকুশলী। টালিগঞ্জ এলাকায় এক বিশাল মিছিল করেন তাঁরা। এটি সম্পূর্ণ ‘অরাজনৈতিক’ মিছিল বলেই দাবি করেন তাঁরা। তবে মিছিলে উপস্থিত ছিলেন অরূপ বিশ্বাস এবং স্বরূপ বিশ্বাস। দু’ভাইয়ের দাবি উদ্দেশ্যমূলকভাবে কুৎসা ছড়ানো হচ্ছে। আর অন্যদিকে বিজেপির অভিযোগ অরূপ-স্বরূপরা টলিউডে ‘একনায়কতন্ত্র’ চালাচ্ছেন। মিছিল-প্রতিবাদ, বক্তব্য-পাল্টা বক্তব্যের মাঝে গতকাল থেকে একটি হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজের স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়ে ওঠে।

 

আরও পড়ুন মেরুদণ্ড না বিক্রি করা শিল্পীদের অপমান করার অধিকার দিলীপদারও নেই: রূপাঞ্জনা মিত্র

 

 

 

কী সেই মেসেজ?

‘ফেডারেশনকে কালিমালিপ্ত করার প্রতিবাদে আজ ৪ঠা এপ্রিল ২০২১ এ ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস্ অ্যান্ড ওয়ার্কার্স্ অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া যে ধিক্কার মিছিলের আয়োজন করেছিল তাকে সুসংগঠিতভাবে পরিচালনা করার জন‍্য এবং তাতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে যোগদানের জন্য আমি আপনাদের সবাই কে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আজ যেভাবে সমস্ত কলাকুশলী নিজেদের অপমানের বিরোধিতা করতে ফেডারেশন এর পাশে দাঁড়িয়েছেন তা প্রশংসনীয়। এই ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপনের মধ্যেও অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে সমস্ত স্বনামধন্য কলাকুশলীরা যেমন ডিরেক্টর,আর্ট ডিরেক্টর, ক‍্যামেরা পার্সন, মেকআপ আর্টিস্ট প্রমুখরা আজকের এই ঐতিহাসিক মিছিলে যোগদান করলেন না, ফেডারেশনের অপমানের বিরোধিতা করলেন না, আগামীদিনে ফেডারেশন তাদের নিয়ে গভীর ভাবে চিন্তা ভাবনা করবে।

স্বরূপ বিশ্বাস
অপর্ণা ঘটক’

বিজেপি কর্মী-অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র এই মেসেজের স্ক্রিনশট পোস্ট করে লেখেন, ‘শেষের লাইনগুলো পড়ে দেখুন। আমার ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুদের বলছি। পুনশ্চ: গালাগালি কমেন্ট সেকশনে দেবেন না। ভাল ভাষা ব্যবহার করুন।’ শুধু রূপাঞ্জনা নন, আরও এক বিজেপিকর্মী রূপা ভট্টাচার্য লেখেন, ‘শেষ দু’লাইনে এই হুমকির পরেও কারওর সন্দেহ আছে ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রিতে মাফিয়া রাজ চলছে?’

 

 

মেসেজের শেষে যাঁর নাম লেখা রয়েছেন, অর্থাৎ স্বরূপ বিশ্বাসের নাম (সভাপতি, ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস্ অ্যান্ড ওয়ার্কার্স্ অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া)। ‘শেষের দুলাইন নিয়ে’ tv9 বাংলা থেকে তাঁকে ফোনে ধরা হলে তাঁকে সরাসরি প্রশ্ন করা হল, যাঁরা বিরোধিতা করলেন না তাঁদের বিরুদ্ধে ঠিক কী ধরণের ‘চিন্তাভাবনা’ করা হতে পারে? এটা কি কোনওভাবে ঘুরিয়ে হুমকি? স্বরূপবাবুর উত্তর, “আপনি বাংলায় যা মানে করবেন তা-ই। যারা বাড়িতে বসে দেখল, তাদের নিয়ে আলোচনা হবে না? যে সকল টেকনিশিয়ান রোদে পুড়ে মিছিলে পা মেলাল, আর তারা বাড়িতে বসে টিভিতে দেখল, তাদের নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হবে না? এবং গভীরভাবেই হবে তা স্বাভাবিক। এটা তো ওপেন ফোরাম, আলোচনা তো হবেই।”