Ring Worm: দাদের সমস্যায় নাজেহাল হয়ে উঠেছেন? এই ঘরোয়া পদ্ধতিগুলো মেনে চললে দাদের নিরাময় সম্ভব…

প্রাথমিকভাবে কিছু ঘরোয়া টোটকাও দাদ নিরাময়ে ব্যবহার করে দেখতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার যেটা সুবিধা হবে তা হল অল্প সময়ের মধ্যেই আপনি দাদ বা চুলকানি থেকে বেশ কিছুটা মুক্তি বোধ করতে পারেন।

Ring Worm: দাদের সমস্যায় নাজেহাল হয়ে উঠেছেন? এই ঘরোয়া পদ্ধতিগুলো মেনে চললে দাদের নিরাময় সম্ভব...

দাদ ব্যাপারটা অনেকের কাছেই খোরাকের ব্যাপার হতে পারে। কিন্তু, দাদা, হাজা এগুলো যার হয়, সেই একমাত্র এর অস্বস্তি বা ক্ষতিকর দিকের টের পায়। দাদ এতটাই ভয়ঙ্কর একটা রোগ যে এমন অনেক সময় দেখা যায় যে চুলকে চুলকে চামড়া ছিঁড়ে যাচ্ছে, রক্ত পর্যন্ত পড়ছে তাও চুলকানি কমছে না। তাই, দাদ নিয়ে খোরাক করার আগে আমাদের দাদ নিয়ে অনেক বেশি সচেতন হওয়া প্রয়োজন। কারণ আর কিছুই না, এই দাদ মারাত্মক ছোঁয়াচে।

দাদ হলে সব সময়ই চিকিৎসক বা স্কিন স্পেশ্যালিস্টের পরামর্শ নেওয়া উচিত। এসব ক্ষেত্রে শুরুর দিকে সাধারণ চুলকানি মনে হলেও, খুব তাড়াতাড়ি এটা শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে। প্রাথমিকভাবে কিছু ঘরোয়া টোটকাও দাদ নিরাময়ে ব্যবহার করে দেখতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার যেটা সুবিধা হবে তা হল অল্প সময়ের মধ্যেই আপনি দাদ বা চুলকানি থেকে বেশ কিছুটা মুক্তি বোধ করতে পারেন। তাহলে, আসুন জেনে নেওয়া যাক দাদের মতো ভয়ঙ্কর রোগের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে আপনি কোন কোন ঘরোয়া টোটকা নিতে পারেন…

নিম পাতা:

নিম পাতা যে জীবাণু বিনাশ করতে খুবই কার্যকরী সে কথা আমরা সবাই জানি। নিম পাতা বেটে যদি প্রতিদিন দাদের উপর লাগানো যায় তাহলে খুব তাড়াতাড়ি এই বিশ্রী সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।

Ringworm Prevention

রসুন:

দু’-এক কোয়া রসুনের খোসা ছাড়িয়ে ভাল করে ধুয়ে থেঁতো করে দাদের উপরে নিয়ম করে লাগাতে হবে। রসুন যেহেতু যে-কোনও রকমের ফাঙ্গাল ইনফেকশন দূর করতে সক্ষম, তাই থেঁতো করা রসুন দাদের উপরে লাগালে মূল থেকে দাদের সমস্যা দূর হবে।

কর্পূর:

কর্পূর যে শুধুমাত্র দাদ এবং ফাঙ্গাল ইনফেকশন দূর করতে সাহায্য করে তা নয়, দাদ যাতে শরীরের অন্যান্য অংশে ছড়িয়ে না পড়ে তাতেও সাহায্য করে। এছাড়া দাদের একটা বিশ্রী দাগ থেকে যায়, নিয়মিত সংক্রামিত অংশে কর্পূর লাগালে দাদের দাগও মিলিয়ে যাবে।

নারকেল তেল:

দাদ যেহেতু একটি ফাঙ্গাল ইনফেকশন কাজেই এই সংক্রমণ রোধ করতে নারকেল তেল খুবই উপকারী কারণ নারকেল তেলে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল প্রপারটিস। এছাড়াও নারকেল তেল ত্বকের চুলকানি বা জ্বালা-পোড়া কমাতেও সাহায্য করে।

অ্যালোভেরা জেল:

ঠিক অন্যান্য ঘরোয়া টোটকার মতোই, অ্যালোভেরাও কিন্তু দাদ নির্মূল করতে সক্ষম। ভাল কোনও আয়ুর্বেদিক ব্র্যান্ডের অ্যালোভেরা জেল নিয়মিত সংক্রামিত জায়গায় লাগান, কিছুদিনের মধ্যেই দাদ ও জীবাণু দূর হবে।

হলুদ বাটা:

হলুদও অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টিফাঙ্গাল গুণে সমৃদ্ধ। হলুদ বাটার সঙ্গে সামান্য জল মিশিয়ে দাদ দ্বারা আক্রান্ত শরীরের অংশে লাগান। কিছুক্ষণ রেখে স্নান করে নিন।

উচ্ছে পাতা:

শুনতে অবাক লাগলেও, উচ্ছে পাতা কিন্তু দাদের সমস্যা দূর করতে খুব ভাল ঘরোয়া টোটকা। নিম পাতার মতো উচ্ছে পাতাও বেটে নিয়ে নিয়মিত দাদ সংক্রামিত অংশে লাগান। কয়েকদিনের মধ্যেই এই ফাঙ্গাল ইনফেকশন থেকে মুক্তি পাবেন।

আরও পড়ুন: International Men’s Day: Erectile Dysfunction: বিশেষজ্ঞের থেকে জেনে নিন ১৬ থেকে ২৬ বছর বয়সী যুবকের ইরেক্টাইল ডিসফাংশনের সমস্যায় কী করণীয়…

আরও পড়ুন: World Toilet Day 2021: মহিলারা ইউরিনের বেগ চেপে রাখছেন! বাড়ছে ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশনের ভয়!

আরও পড়ুন: Eye Problems: ডিজিটাল স্ট্রেন আর কাজের চাপ থেকে চোখকে সুরক্ষিত রাখবেন কীভাবে?

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla