সন্ত রামানুজের সহস্রাব্দ উত্‍সবে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানালেন ত্রিদান্ডি চিন্না জিয়ার স্বামী

শ্রীমদ ভগবান রামানুজের মূর্তি উদ্বোধনের অনুষ্ঠান ২০২২ সালের ২ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

সন্ত রামানুজের সহস্রাব্দ উত্‍সবে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানালেন ত্রিদান্ডি চিন্না জিয়ার স্বামী
খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছেও পৌঁছে গেল সন্ত রামানুচার্যের ১০০০ তম জন্মবর্ষের আমন্ত্রণ

নয়া দিল্লি: রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, এমনকি সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবতের কাছেও আমন্ত্রণ পৌঁছে গিয়েছিল আগেই। বাকি ছিলেন কেবলমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শনিবার খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছেও পৌঁছে গেল সন্ত রামানুচার্যের ১০০০ তম জন্মবর্ষের আমন্ত্রণ। নমোর কাছে আমন্ত্রণপত্র নিয়ে হাজির হয়েছিলেন খোদ এই সংগঠনের বর্তমান প্রধান ত্রিডান্ডি চিন্না জিয়ার স্বামী। তাঁর সঙ্গে হাজির ছিলেন মাই হোম গ্রুপের চেয়ারম্যান ড. জে রামেশ্বর রাও।

শ্রীমদ ভগবান রামানুজের মূর্তি উদ্বোধনের অনুষ্ঠান ২০২২ সালের ২ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে। এই উপলক্ষে শ্রী ত্রিদান্ডি চিন্না জিয়ার স্বামী ব্যক্তিগতভাবে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়ে আসেন। এ বাদেও উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর কাছে আমন্ত্রণ পৌঁছে গিয়েছিল।

হায়দরাবাদের মুচিন্তালে এখন ব্যস্ততা তুঙ্গে। কয়েকমাস পরেই সন্ত রামানুজের সহস্রাব্দ উত্‍সব। শ্রী রামানুচার্য স্বামীর হাজারতম জন্মবর্ষের উদযাপন নজর কেড়ে নেবে সকলের। আগামী ফেব্রুয়ারিতে শ্রী ত্রিদান্ডি চিন্না জিয়ার স্বামীর পরিকল্পনায় উন্মোচিত হবে শ্রীমদ রামানুজের ২১৬ ফুট মূর্তি।

একাদশ শতকের হিন্দু দার্শনিক রামানুজ ছড়িয়ে দিয়েছিলেন সম্প্রীতির বার্তা। দিয়েছিলেন সাম্যের পাঠ। তাই হায়দরাবাদের কাছে সামসাবাদে নব প্রতিষ্ঠিত আশ্রমে গড়ে উঠছে সন্ত রামানুজের মূর্তি, স্ট্যাচু অফ ইকুয়্যালিটি।

২০২২ সালের ২ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি ভগবদ রামানুজের মূর্তি উন্মোচন অনুষ্ঠান। এ বার সেই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ পৌঁছল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে। শনিবার তাঁর হাতে আমন্ত্রণপত্র তুলে দেন শ্রী ত্রিদণ্ডী চিন্নাজিয়র স্বামী এবং মাই হোম চেয়ারম্যান ডক্টর জুপল্লি রামেশ্বর রাও। আগেই আমন্ত্রণ পেয়েছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু। আমন্ত্রণ গিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতের কাছে। শুক্রবার আমন্ত্রণ পেয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এন ভি রামানা।

পদ্মের উপর আসীন রামানুজের সুবিশাল মূর্তির পাশে ১০৮ মন্দির নজর কাড়বে। প্রতিষ্ঠানের আশা, এই আশ্রম দিব্য সাকেতম দ্রুত হয়ে উঠবে বিশ্বের জনপ্রিয় তীর্থস্থান। অনুষ্ঠানের দিন হাজারের অধিক কুণ্ডে লোককল্যাণের জন্য লক্ষ্মী নারায়ণ যজ্ঞের আয়োজন করা হবে। মোট ১ হাজার ৩৫ টি হোমকুণ্ড তৈরি করা হবে এবং প্রায় ২ লক্ষ কেজি গরুর ঘি ব্যবহার করা হবে যজ্ঞের কাজে। মুচিন্তালের এই আশ্রম দিব্য সাকেতাম শীঘ্রই বিশ্ববিখ্যাত আধ্যাত্মিক স্থান হিসেবে জনপ্রিয় হবে হবে মনে করা হচ্ছে।

সন্ত রামানুজ তাঁর ১২০ বছরের জীবনকালের বেশিরভাগ সময়টাই বিশিষ্টদ্বৈতের হিন্দু দর্শন প্রচারের জন্য ব্যয় করেছিলেন। রামানুজাচার্যই জাতি, বর্ণ এবং ধর্মের নামে বৈষম্যের বিরুদ্ধে লড়াই করেন এবং প্রস্তাব করেন যে সবার মধ্যেই সর্বশক্তিমান ঈশ্বর বিরাজমান। এ জন্যই এই বিশালাকার নামকরণ করা হয়েছে ‘স্ট্যাচু অফ ইকুয়্যালিটি।’

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla