ত্রিপল চুরি মামলায় আদালতের রক্ষাকবচ অধরা শুভেন্দু-সৌমেন্দুর

আদালত (Calcutta High Court) জানিয়ে দিল, এখনই কোনও স্থগিতাদেশ নয়। আপাতত তদন্ত চলবে। অর্থাৎ এই সময়ের মধ্যে অভিযুক্তদের ক্ষেত্রে কোনও কড়া পদক্ষেপও করতে পারে পুলিশ।

ত্রিপল চুরি মামলায় আদালতের রক্ষাকবচ অধরা শুভেন্দু-সৌমেন্দুর
ফাইল ছবি

কলকাতা: ত্রিপল চুরির মামলায় অস্বস্তি কাটল না শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari) ও সৌমেন্দু অধিকারীর। এই মামলায় রক্ষাকবচ চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন জানিয়েছিলেন দুই ভাই। কিন্তু শুক্রবারও কোনও অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশ দিল না কলকাতা হাইকোর্ট।

কাঁথি পুরসভার গোডাউন থেকে লক্ষাধিক টাকার ত্রাণের ত্রিপল লুঠের অভিযোগে চলতি মাসের প্রথম দিকে শুভেন্দু অধিকারী ও সৌমেন্দু অধিকারীর নামে এফআইআর দায়ের হয় কাঁথি থানায়। অভিযোগ ওঠে, কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপস্থিতিতে কাঁথি পুরসভার পুরনো বিল্ডিং ডরমেটরি মাঠ সংলগ্ন পুর-গোডাউন থেকে ত্রিপল বার করা হয়েছে। আর তা শুভেন্দু অধিকারীর লোকজন করেছেন বলে অভিযোগ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান কাঁথি পুরসভার প্রশাসক মণ্ডলীর সদস্য-সহ পুর প্রশাসক সিদ্ধার্থ মাইতি। শুভেন্দু অধিকারী প্রভাব খাটিয়ে এই ধরনের ঘটনা করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। পুর প্রশাসক মণ্ডলীর দুই সদস্য হাবিবুর রহমান ও রত্নদীপ মান্না এবং কাঁথি শহর তৃণমূল কংগ্রেস সম্পাদক বিশ্বজিৎ মাইতি, কাঁথি শহর যুব তৃণমূল নেতৃত্ব সুরজিৎ নায়ক গোডাউনের দায়িত্বে থাকা পুরসভার কর্মচারী হিমাংশু মান্নাকে দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদ করেন বলে খবর। এরপরই কাঁথি থানায় এ নিয়ে অভিযোগ দায়ের হয়। ঘটনা গড়ায় আদালত পর্যন্ত।

আরও পড়ুন: ‘এবার বাংলায় ভ্যাকসিন সিন্ডিকেট’, সামাজিক মাধ্যমে সোচ্চার দিলীপ

শুভেন্দু, সৌমেন্দু এই মামলার অন্তবর্তীকালীন স্থগিতাদেশ চেয়ে হাইকোর্টে যান। এদিন তারই শুনানি ছিল। কলকাতা হাইকোর্ট জানিয়ে দিল, এখনই কোনও স্থগিতাদেশ নয়। আপাতত তদন্ত চলবে। অর্থাৎ এই সময়ের মধ্যে অভিযুক্তদের ক্ষেত্রে কোনও কড়া পদক্ষেপও করতে পারে পুলিশ।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla