TMC VS Congress: জোর তরজা হাত-ঘাসফুলে! এবার তৃণমূলের নিশানায় ছত্তীসগঢ়ের কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী

Congress: ২০২৪-এর লড়াইয়ের অনেক আগেই জোটের তোড়জোর শুরু হয়েছিল। কিন্তু নেতৃত্ব কে দেবে এই প্রশ্নে বিভাজন ক্রমশ সামনে আসছে কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে।

TMC VS Congress: জোর তরজা হাত-ঘাসফুলে! এবার তৃণমূলের নিশানায় ছত্তীসগঢ়ের কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী
কংগ্রেস-তৃণমূল তরজা। ফাইল চিত্র।

কলকাতা: ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেলকে (Bhupesh Baghel) জবাব দিল তৃণমূল কংগ্রেস (Trinamool Congress)। পাল্টা টুইটে বাঘেলের পাশাপাশি রাহুল গান্ধীকেও কটাক্ষ করেছে তারা। তৃণমূলের বক্তব্য, প্রথমবারের একজন মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে বড় বড় কথা শোনা যাচ্ছে। নিজের ওজন না বুঝে কথা বললে সম্মান পাওয়া সম্ভব নয়। গত লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর হারের প্রসঙ্গও টেনে এনে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল। তাদের বক্তব্য অমেঠিতে ঐতিহাসিক পরাজয়ের কথা মুছে দেওয়ার চেষ্টায় কংগ্রেস কি নয়া টুইটার ট্রেন্ড শুরু করল?

ক্রমশই জটিল হচ্ছে কংগ্রেস ও তৃণমূলের সম্পর্ক। বিজেপি বিরোধী জোটের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে কংগ্রেসকে সম্প্রতি টুইট-খোঁচা দিতে দেখা যায় ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরকে। কংগ্রেসের সাংগঠনিক দুর্বলতার দিকে ইঙ্গিত করে পিকে টুইট করেন, ‘লখিমপুর খেরিকে ঘুঁটি করে গ্র্যান্ড ওল্ড পার্টির (GOP) সঙ্কট মিটবে না।’ এনিয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে তাঁর তরজা যখন একেবারে হাড্ডাহাড্ডি, তখনই ছত্তীসগঢ়ের কংগ্রেসী মুখ্যমন্ত্রীকে দেখা গেল তৃণমূলকে নিশানা করতে।

কংগ্রেসে যাব যাব করেও যাননি পিকে। তাঁকে নিয়ে আপত্তি ছিল সোনিয়া গান্ধীর দলেই। কংগ্রেস-তৃণমূলের মধ্যে যখন চাপানউতর চলছে, তখন ‘গ্র্যান্ড ওল্ড পার্টি’কে নিশানা করলেন পিকে। পিকের টুইট, ‘লখিমপুর খেরির ঘটনাকে হাতিয়ার করে যাঁরা গ্র্যান্ড ওল্ড পার্টির নেতৃত্বাধীন বিরোধী জোটের দ্রুত এবং স্বতঃস্ফূর্ত পুনরুজ্জীবন চাইছেন, তাঁরা আসলে বড় মাপের হতাশার জন্যই নিজেদের তৈরি করছেন। দুর্ভাগ্যজনক ভাবে গ্র্যান্ড ওল্ড পার্টির কাঠামোগত সমস্যার কোনও চটজলদি সমাধান নেই।’

জিওপি বা গ্র্যান্ড ওল্ড পার্টি। পিকের এই তকমাতেই কংগ্রেসের প্রতি খোঁচা প্রচ্ছন্ন। পিকের শব্দ ধার করেই তাঁকে জবাব দিয়েছে কংগ্রেস। নিজের কুর্সি ধরে রাখতে ব্যস্ত ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেলের পাল্টা টুইট, ‘আমাদের দলে থেকে যাঁরা নিজেদের আসনেই জিততে পারেননি, তাঁদের ভাঙিয়ে জাতীয় বিকল্প গড়ার কারিগররা খুব হতাশ হবেন। জাতীয় বিকল্প হতে গেলে গভীর ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস দরকার। দুর্ভাগ্যজনক ভাবে এর চটজলদি কোনও সমাধান নেই।’ সাম্প্রতিক অতীতে একের পর এক কংগ্রেস নেতাকে দলে নিয়েছে তৃণমূল। ফলে পিকেকে সামনে রেখে ভূপেশ বাঘেলের এই টুইট যে আসলে তৃণমূলকে নিশানা করেই, তা স্পষ্ট।

আরও পড়ুন: India-Japan Relation: জাপানের নয়া প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা নমোর, ডাক দিলেন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মজবুতের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla