West Bengal Assembly Election 2021: শালবনিতে সুশান্ত ঘোষের গাড়িতে ‘হামলা’, প্রিজন ভ্যানে উদ্ধার করে আনা হল TV9 বাংলার প্রতিনিধিকে

শালবনিতে (Salboni) সুশান্ত ঘোষের (Susanta Ghosh) গাড়িতে হামলার অভিযোগ। খবর করতে গিয়ে আক্রান্ত TV9 বাংলার প্রতিনিধি। (West Bengal Assembly Election 2021) শালবনির ছোটতারা শিক্ষাকেন্দ্রে সুশান্ত ঘোষ ঢুকলেই উত্তেজনা ছড়ায়।

West Bengal Assembly Election 2021: শালবনিতে সুশান্ত ঘোষের গাড়িতে 'হামলা', প্রিজন ভ্যানে উদ্ধার করে আনা হল TV9 বাংলার প্রতিনিধিকে
সুশান্ত ঘোষের গাড়িতে হামলা


শালবনি: শালবনিতে (Salboni) সুশান্ত ঘোষের (Susanta Ghosh) গাড়িতে হামলার অভিযোগ। খবর করতে গিয়ে আক্রান্ত TV9 বাংলার প্রতিনিধি। (West Bengal Assembly Election 2021) শালবনির ছোটতারা শিক্ষাকেন্দ্রে সুশান্ত ঘোষ ঢুকলেই উত্তেজনা ছড়ায়।

সুশান্ত ঘোষের গাড়িতে হামলা করে কয়েকজন যুবক। গাড়িতে ধাক্কা মারা হয়। শুরু হয় ধস্তাধস্তি। এলাকায় চিৎকার করে বিক্ষোভকারীদের বলতে শোনা যায়, ‘খুনিকে আমরা এভাবে এলাকায় ঢুকতে দেব না।’ খবর করতে গিয়ে আক্রান্ত হতে হয় সাংবাদিকদেরও। সাংবাদিকদের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। তবে এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, ঘটনার পর প্রথমে পুলিশের ভূমিকা ছিল নীরব দর্শকের মতো। বুথের বাইরেও কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায় নি। বেশ কিছুক্ষণ পর আরও পুলিশ কর্মী এলাকায় আসেন। পুলিশ দেখা মাত্রই এলাকা ছাড়তে থাকেন তৃণমূল কর্মীরা।

শুধু তাই নয়, হামলা হয় সাংবাদিকদের ওপরেও। সাংবাদিকদের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। তাঁদের আটকে রাখা হয়, কেড়ে নেওয়া হয় প্রেস কার্ড। পরে পুলিশের প্রিজন ভ্যানে সাংবাদিকদের উদ্ধার করে আনা হয়। হাতজোড় করে মেলে রেহাই। ঘটনায় কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

West Bengal Assembly Election 2021 West Bengal Assembly Election 2021 Phase 1

শালবনিতে থেকে গ্রেফতার এক

প্রথম দফা নির্বাচনের সাম্প্রতিকতম আপডেট জানতে ক্লিক করুন 

ঘটনা প্রসঙ্গে বাম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, “সুশান্তকে ওরা ভয় পাচ্ছে। সংযুক্ত মোর্চাকে ওরা ভয় পাচ্ছে। গত দশ বছর ধরে মানুষের মুখ বন্ধ করতে চেয়েছে। মিথ্যা মামলা দিয়েছে। এবার স্পষ্ট হয়ে গেল তারা ভয় পাচ্ছে।”

আরও পড়ুন: রাস্তায় খোলা তলোয়ার, পাশে ভাঙা বাইক, দক্ষিণ কাঁথিতে রক্তাক্ত বিজেপি কর্মী, খেজুরিতে বোমাবাজি

সকাল থেকেই সুশান্ত ঘোষ বিভিন্ন বুথে ঘুরছেন। একাধিক বুথে সিপিএমের এজেন্টকে বসতে দেওয়া হচ্ছিল না বলে অভিযোগ করতে থাকেন তিনি। শালবনির কয়েকটি বুথে গিয়ে নিজে এজেন্ট বসিয়ে আসেন। তবে শালবনির শুক্লাতোড় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। তাঁর অভিযোগ, “তৃণমূলের এজেন্টরা প্রাথমিক পার্টটুকুই জানেন না। নির্বাচন কমিশন এবছর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, শুধু বুথ নয়, বুথের বাইরে যে থাকবেন, বিধানসভা এলাকার যে কোনও ভোটার এজেন্ট হতে পারবেন। তৃণমূল তা নিয়ে বিরোধিতা করে।”