পারিবারিক বিবাদের জের; পাঁচজনকে ধারাল অস্ত্রের কোপ, মৃত এক

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় ভাঙড় থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। পুলিশকে দেখেই পালিয়ে যান সামসের আলি। তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে ভাঙড় (Bhangar) পুলিশ।

পারিবারিক বিবাদের জের; পাঁচজনকে ধারাল অস্ত্রের কোপ, মৃত এক
নিজস্ব চিত্র।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: পারিবারিক বিবাদের জের। পাঁচজনকে কুপিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। একজনের মৃত্য হয়েছে। বাকিদের মধ্যে তিনজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কলকাতা চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভাঙড়ের বড়ালি এলাকায় বৃহস্পতিবার এই ঘটনা ঘিরে চরম উত্তেজনা ছড়ায়।

বড়ালির বাসিন্দা সামসের আলি মোল্লা। অভিযোগ, প্রায় সময়ই তিনি পরিবারের বাকি সদস্যদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। অকথ্য ভাষায় কথা বলেন। বৃহস্পতিবার দুপুরেও একই ঘটনা ঘটে। সামসেরের গালিগালাজ সহ্য করতে না পেরে বাড়ির বউ নাজমা বিবি প্রতিবাদ করেন।

অভিযোগ, এরপরই সামসের নাজমাকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপাতে যান। নাজমা বিবি পালিয়ে স্থানীয় আলাউদ্দিন মোল্লার বাড়িতে আশ্রয় নেন। সামসের পিছু নিয়ে সেই বাড়িতে পৌঁছলে আলাউদ্দিনের পরিবার তাঁকে বাধা দেয়। অভিযোগ, এরপরই আলাউদ্দিনের বাড়ির সদস্যদের দিকে অস্ত্র নিয়ে তেড়ে যান সামসের। কোপ মারেন।

আরও পড়ুন: একাদশে কোনওটায় ২০, কোনওটায় ২৪! ‘আমরা সন্তুষ্ট নই’, নম্বর বাড়ানোর দাবিতে স্কুলে বিক্ষোভ

এই ঘটনায় আলাউদ্দিন মোল্লা-সহ চারজনের আঘাত গুরুতর হওয়ায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে নলমুড়ি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় চারজনকেই কলকাতা চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। আলাউদ্দিন মোল্লা, সফিকুল মোল্লা এবং নাজমা বিবি গুরুতর আহত হন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় ভাঙড় থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। পুলিশকে দেখেই পালিয়ে যান সামসের আলি। তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে ভাঙড় পুলিশ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla