চারুকলার সদস্য, প্রদর্শনীর নামে টাকা হাতিয়েছেন ভাগ্নে দেবাঞ্জন, এবার অভিযোগ মামার!

Debanjan Deb গত জুলাই মাসে মামাকে রাজ্য চারুকলা ভবনের সদস্য করা হয়েছে বলে জানান। ২২ জুলাই থেকে তাঁকে মাসিক সাড়ে ১১ হাজার টাকা ভাতার ব্যবস্থাও করেন।

চারুকলার সদস্য, প্রদর্শনীর নামে টাকা হাতিয়েছেন ভাগ্নে দেবাঞ্জন, এবার অভিযোগ মামার!
নিজস্ব চিত্র

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন (Kasba Vaccine) কাণ্ড। সেই একটি অভিযোগের তদন্ত করতে গিয়ে মূল অভিযুক্ত দেবাঞ্জনের (Debanjan Deb) বিরুদ্ধে অভিযোগের অন্ত নেই! শিক্ষক থেকে পরিচিত- একের পর এক মানুষজন প্রতারণার অভিযোগ করছেন ধৃত ভুয়ো আইএএস দেবাঞ্জনের দেবের বিরুদ্ধে।  প্রতারিতের তালিকায় নতুন সংযোজন দেবাঞ্জনের মামা ও মামী।

ডায়মন্ড হারবারের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের গোপালদাস পাড়া এলাকার বাসিন্দা সন্দীপ মান্না। পেশায় এই চিত্রশিল্পীর অভিযোগ, কলকাতায় তাঁর আঁকা ছবির প্রদর্শনীর জন্য একাধিকবার মোটা টাকা নেন ভাগ্নে দেবাঞ্জন। বেশিরভাগ প্রদর্শনীই হয়নি। তবে তাঁকে রাজ্যপাল এবং একাধিক দফতর থেকে সার্টিফিকেট পাঠিয়েছিলেন ভাগ্নে! কিন্তু এখন ভাগ্নের বিরুদ্ধে যে পাহাড় প্রমাণ জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে, তাতে সন্দীপবাবুর ঘোর সন্দেহ এই সার্টিফিকেটগুলিও ভুয়ো হতে পারে! ভাগ্নের এহেন কাণ্ডে কার্যত ভেঙে পড়েছেন তিনি।

মধ্য বয়স্ক সন্দীপ মান্না পেশায় চিত্রশিল্পী। নাট্য পরিচালক হিসেবেও জেলায় বিশেষ পরিচিতি রয়েছে তাঁর। ২০১৯-এর জুন মাসে তাঁর আঁকা ছবি নিয়ে কলকাতায় একটি প্রদর্শনীর আয়োজন করার কথা জানিয়েছিল ভাগ্নে দেবাঞ্জন। সেই অছিলায় মামার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা চান তিনি। পরে অবশ্য ৩৫ হাজার টাকাতেই প্রদর্শনীর আয়োজন করতে রাজি হন ভাগ্নে।

শেষে ১১ জুন কলকাতার গগনেন্দ্র প্রদর্শনশালায় প্রদর্শনীর আয়োজনও হয়। এরপর একদিন দেবাঞ্জন তাঁর মামাকে জানান, রাজ্যপাল তাঁর আঁকা ছবি দেখে একটি শংসাপত্র পাঠাতে চেয়েছেন। কিছুদিনের মধ্যে তদানীন্তন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর স্বাক্ষর সম্বলিত একটি শংসাপত্র হাতে আসে সন্দীপ বাবুর।

এরপর জুলাই মাসে তাঁকে রাজ্য চারুকলা ভবনের সদস্য করা হয়েছে বলে জানান ভাগ্নে। গত বছরের ২২ জুলাই থেকে তাঁকে মাসিক সাড়ে ১১ হাজার টাকা ভাতার ব্যবস্থাও করা হয়। কিন্তু ২০২১-এর এপ্রিল থেকে সেই ভাতাও বন্ধ হয়ে যায়।

আরও পড়ুন: Fake Vaccine: ‘আমিও তো প্রতারিত’, দেবাঞ্জন গ্রেফতার হতেই সুর চড়ালেন ‘ডেপুটি সেক্রেটারি’ সুস্মিতা 

এরপর ভাগ্নের ভ্যাকসিন কাণ্ড প্রকাশ্যে আসতেই ঘুম ছুটেছে মামার। তাঁর দাবি, রাজ্যপাল ও অন্যান্য জায়গা থেকে সার্টিফিকেটগুলো এসেছিল সেগুলো ভুয়ো হতে পারে। বিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে ভাগ্নে দেবাঞ্জন প্রতারণা করেছে বলে অভিযোগ করছেন তিনি।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla