মাইক্রোফোনেই শুনছেন অভিযোগ, কোভিড রুখতে অভিনব উদ্যোগ থানায়

পুলিশ আক্রান্ত হলে পরিষেবা পাবেন না সাধারণ মানুষ। সে কথা মাথায় রেখেই এই অভিনব ব্যবস্থা।

মাইক্রোফোনেই শুনছেন অভিযোগ, কোভিড রুখতে অভিনব উদ্যোগ থানায়
নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ (নিজস্ব চিত্র)

নরেন্দ্রপুর: করোনা অতিমারী শুরুর পর থেকে একাধিক পুলিশকর্মীদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা সামনে এসেছে। গত বছর প্রাণ হারিয়েছেন রাজ্য ও কলকাতা পুলিশের বহু কর্মী। তাই এবার আগে থেকে সাবধানতা অবলম্বন করছেন তাঁরা। পরিষেবা তো বন্ধ করা তো সম্ভব নয়। তাই নিরাপদে থাকাই একমাত্র উপায়। আর সেই কারণেই এক অভিনব ছবি দেখা গেল নরেন্দ্রপুর থানায়। মাইক্রোফোনে অভিযোগ জানাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। সংক্রমণ যাতে না ছড়ায়, তাই এই বিশেষ ব্যবস্থা।

পুলিশ কর্মীরা যাতে কোভিড আক্রান্ত না হন, তার জন্য এ ভাবে সাউন্ড সিস্টেমের ব্যবহার শুরু করেছে নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ৷ কোভিড মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাই একমাত্র উদ্দেশ্য। এই ব্যবস্থায় সাউন্ড সিস্টেম চালু করার ফলে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখেই নিজেদের অভিযোগ জানাতে পারছেন সাধারণ মানুষজন৷ তাঁদের বক্তব্য তাঁরা মাইক্রোফোনের সাহায্যে জানাচ্ছেন৷ অন্যদিকে টেবিলে কর্তব্যরত পুলিশ অফিসারও তাঁর বক্তব্য ও প্রয়োজনীয় জিজ্ঞাসাবাদ নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে মাইক্রোফোনের সাহায্যে করতে পারছেন৷ এ ছাড়া থানায় আসা ব্যাক্তিরা যাতে কোভিড বিধি মেনে চলেন তার জন্য প্রচারও চালানো হচ্ছে পুলিশের পক্ষ থেকে৷ হাত ধুয়ে থানায় ঢোকার জন্য বেসিনের ব্যবস্থাও করা হয়েছে৷ থানায় ঢোকার মুখে গোল দাগ কেটে রাখা হয়েছে যাতে সকলেই নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে দাঁড়াতে পারেন ৷ থানায় অভিযোগ জানাতে আসা এক ব্যক্তি জানিয়েছেন এই সিস্টেমে খুবই সুবিধা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: থামল লোকাল ট্রেনের চাকা, বাসে গাদাগাদি ভিড়ে আশঙ্কা বাড়ছে আরও

বারুইপুর পুলিশ জেলার ডিএসপি সুপ্রভাত চক্রবর্তী বলেন, ‘পুলিশ আক্রান্ত হলে সাআরণ মানুষকে পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা হয়। তাই, এই বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুলিশ ও অভিযোগকারীর মধ্যে একটি কাঁচের দেওয়াল থাকছে। আর মা্ক্রোফোনের মাধ্যমে কথা বলছেন তাঁরা।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla