ভোট পরবর্তী হিংসা অব্যাহত, খানুকুলে তৃণমূল কর্মীকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ

২০২১ -এর ভোটের পর এটাই খানাকুলের প্রথম রাজনৈতিক খুন। খুন হলেন তৃণমূলেরই কর্মী। গোটা রাজ্যে তৃণমূল একচেটিয়া ভাবে জিতলেও আরামবাগ মহকুমায় চারটি বিধানসভাই বিজেপির দখলে এসেছে। আর তাতেই দফায় দফায় ব্যাপক গণ্ডগোল শুরু হয় মহকুমা জুড়ে।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 18:23 PM, 3 May 2021
ভোট পরবর্তী হিংসা অব্যাহত, খানুকুলে তৃণমূল কর্মীকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ
নিজস্ব চিত্র

আরামবাগ: একুশের ভোট (West Bengal Assembly Election 2021)-এর ফল প্রকাশের পর জায়গায় জায়গায় অশান্তির খবর উঠে আসছে। এবার খানাকুলে এক তৃণমূল কর্মীকে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে।

খানাকুলের নতিবপুরের বাসিন্দা দেবু প্রামাণিক (৪৮) এলাকায় সক্রিয় তৃণমূল কর্মী বলে পরিচিত। রবিবার ভোটের ফল প্রকাশের পর গভীর রাতে ওই তৃণমূল কর্মীর বাড়ি ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ। এর পর বাড়িতে ঢুকে দেবুকে বেধড়ক মারধর করা হয়। সোমবার ফের এক দফা তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে আক্রমণ চালানো হয়। আবার মারধর করা হয় দেবুকে। মারের চোটে তাঁর মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় পরিবারের আঙুল উঠেছে বিজেপির দিকে। যদিও এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে গেরুয়া শিবির।

উল্লেখ্য, ২০২১ -এর ভোটের পর এটাই খানাকুলের প্রথম রাজনৈতিক খুন। খুন হলেন তৃণমূলেরই কর্মী। গোটা রাজ্যে তৃণমূল একচেটিয়া ভাবে জিতলেও আরামবাগ মহকুমায় চারটি বিধানসভাই বিজেপির দখলে এসেছে। আর তাতেই দফায় দফায় ব্যাপক গণ্ডগোল শুরু হয় মহকুমা জুড়ে। খানাকুলের এই নতিবপুর বিজেপির শক্তিশালী ঘাঁটি বলে পরিচিত।

দেবু প্রামাণিকের পরিবারের অভিযোগ, বাড়িতেই পরিবার পরিজনের সামনেই তাঁকে টেনে নিয়ে এসে পেটাতে থাকেন আক্রমণকারীরা। স্ত্রী ও ছেলেরা বাধা দিতে গেলে তাঁদেরও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। আক্রান্ত হন মৃতের ভাইপো অসিত প্রামাণিক। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। জানা গিয়েছে, মৃত তৃণমূল কর্মীর দুই ছেলে ও স্ত্রী রয়েছেন। ছোট একটা মুদিখানা দোকানের উপার্জন থেকেই তাঁদের সংসার চলত।

আরও পড়ুন: হারিনি, টাকার বিনিময়ে তৃণমূলকে জেতানো হয়েছে: রাজ্য কমিটিতে রিপোর্ট বিজেপি প্রার্থীর 

এদিকে এই খুনের ঘটনায় ঘটনার পরেই গোটা এলাকা এখন থমথমে হয়ে রয়েছে। এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।